Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     মঙ্গলবার   ১৩ এপ্রিল ২০২১ ||  চৈত্র ৩০ ১৪২৭ ||  ২৮ শা'বান ১৪৪২

ব্রিটিশ রাজপ্রাসাদের বিরুদ্ধে মিথ্যাচারকে প্রশ্রয়ের অভিযোগ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:০০, ৪ মার্চ ২০২১   আপডেট: ০৭:১৫, ৫ মার্চ ২০২১
ব্রিটিশ রাজপ্রাসাদের বিরুদ্ধে মিথ্যাচারকে প্রশ্রয়ের অভিযোগ

ব্রিটিশ রাজপ্রাসাদে মিথ্যাচারকে প্রশ্রয় দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন প্রিন্স হ্যারির স্ত্রী ও ডাচেস অব সাসেক্স মেগান মের্কেল। এভাবে মিথ্যাচারকে প্রশ্রয় দেওয়া হলে তারা আর নীরব থাকতে পারবেন না বলেও জানিয়েছেন রাজবধূ।

হলিউড টিভি শো উপস্থাপিকা অপরাহ উইনফ্রেকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি এ কথা বলেছেন। সাক্ষাৎকারটির ৩০ সেকেন্ডের একটি টিজার প্রকাশ করেছে সিবিএস চ্যানেল। 

রাজপ্রাসাদের বিরুদ্ধে মুখ খুললে কী পরিণতি হতে পারে সে বিষয়টি সম্পর্কে তিনি অবহিত আছেন কিনা জানতে চাইলে মেগান বলেন, ইতোমধ্যে তারা অনেক কিছু হারিয়েছেন। তাই এটি নিয়ে ভাববার কোনো কারণ নেই।

মেগানের কাছে উইনফ্রে জানতে চান ‘আপনি আজ যদি সত্য প্রকাশ করেন তবে রাজপ্রাসাদের পক্ষ থেকে কেমন প্রতিক্রিয়া জানানো হবে বলে মনে করেন?’

জবাবে মেগান বলেন, ‘আমি জানি না তারা কিভাবে প্রত্যাশা করে যে আমরা চুপ থাকব, যখন কিনা আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা রটনাকে স্থায়ী রূপ দিতে রাজপরিবার ও তাদের কর্মীরা সক্রিয় ভূমিকা পালন করছে।’

মেগান আরও বলেন, ‘কোনো কিছু হারানোর ঝুঁকির কথা যদি বলেন, তাহলে বলব এরই মধ্যে অনেক কিছু হারিয়ে ফেলেছি।’ 

রাজপরিবারের তিক্ত সম্পর্কের বিষয়টি প্রকাশ্যে আসার পর গত বছর রাজকীয় দায়িত্ব এবং কর্তব্য থেকে সরে দাঁড়ান হ্যারি ও মেগান। এই দম্পতি এখন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় বসবাস করেন।

সম্পতি দ্য টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়, মেগান কেনসিংটন প্রাসাদে থাকার সময় ২০১৮ সালে কয়েকজন কর্মীর সঙ্গে বাজে আচরণ করেছিলেন। এক কর্মীর পাঠানো ইমেইল বার্তা উদ্ধৃত করে প্রতিবদনটি প্রকাশ করা হয়। পরে এক বিবৃতিতে বাকিংহাম প্রাসাদ জানায়, এই অভিযোগ খতিয়ে দেখা হবে।

ঢাকা/শাহেদ

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়

শিরোনাম

Bulletলকডাউন: ১৪-২১ এপ্রিল। যা যা চলবে: ১. বিমান, সমুদ্র, নৌ ও স্থল বন্দর এবং তৎসংশ্লিষ্ট অফিস। ২. পণ্য পরিবহন, উৎপাদন ব্যবস্থা ও জরুরি সেবাদানের ক্ষেত্রে এ আদেশ প্রযোজ্য হবে না ৩. শিল্প-কারখানা ৪. আইনশৃঙ্খলা এবং জরুরি পরিসেবা, যেমন, কৃষি উপকরণ (সার, বীজ, কীটনাশক, কৃষি যন্ত্রপাতি ইত্যাদি), খাদ্যশস্য ও খাদ্যদ্রব্য পরিবহন, ত্রাণ বিতরণ, স্বাস্থ্যসেবা, কোভিড-১৯ টিকা প্রদান, বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস/জ্বালানি, ফায়ার সার্ভিস, বন্দরগুলোর (স্থল, নদী ও সমুদ্রবন্দর) কার্যক্রম, টেলিফোন ও ইন্টারনেট (সরকারি-বেসরকারি), গণমাধ্যম (প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়া), বেসরকারি নিরাপত্তা ব্যবস্থা, ডাক সেবাসহ অন্যান্য জরুরি ও অত্যাবশ্যকীয় পণ্য ও সেবার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট অফিসসমূহ, তাদের কর্মচারী ও যানবাহন এ নিষেধাজ্ঞার আওতা বর্হিভূত থাকবে। ৫. ওষুধ ও নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি ক্রয়, চিকিৎসা সেবা, মৃতদেহ দাফন/সৎকার ৬. খাবারের দোকান ও হোটেল-রেস্তোরাঁয় দুপুর ১২টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা এবং রাত ১২টা থেকে ভোর ৬টা পর্যন্ত কেবল খাদ্য বিক্রয়/সরবরাহ করা যাবে। ৭. কাঁচাবাজার এবং নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি সকাল ৯টা থেকে বেলা ৩টা পর্যন্ত উন্মুক্ত স্থানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্রয়-বিক্রয় করা যাবে || যা যা বন্ধ থাকবে: ১. সব সরকারি, আধাসরকারি, সায়ত্ত্বশাসিত ও বেসরকারি অফিস, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে ২. সব ধরনের পরিবহন (সড়ক, নৌ, অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক ফ্লাইট) বন্ধ থাকবে ৩. শপিংমলসহ অন্যান্য দোকান বন্ধ থাকবে