Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||  আশ্বিন ১১ ১৪২৮ ||  ১৭ সফর ১৪৪৩

কর্মীদের অফিসে ফেরা পিছিয়েছে গুগল

আন্তর্জাতিক ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:১৮, ২৯ জুলাই ২০২১   আপডেট: ১৬:২১, ২৯ জুলাই ২০২১
কর্মীদের অফিসে ফেরা পিছিয়েছে গুগল

করোনা সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতির কারণে কর্মীদের অফিসের ফেরা পিছিয়ে দিয়েছে গুগল। তবে অফিস খোলার পর যারা পূর্ণ টিকা নিয়েছেন তারাই কেবল ফিরতে পারবেন বলে প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে। কর্মীদের কাছে পাঠানো ইমেইল বার্তায় গুগলের প্রধান নির্বাহি সুন্দর পিচাই এই নির্দেশনা দিয়েছেন।

করোনা মহামারি শুরুর পর থেকে গুগলের কর্মীরা বাড়ি থেকে কাজ করছেন।

সুন্দর পিচাই তার ইমেইলে লিখেছেন, চলমান টিকা কার্যক্রমই একমাত্র কারণ, যার জন্য আমরা শিগগিরই আমাদের অফিসগুলো পুনরায় খুলে দেওয়ার ব্যাপারের ইতিবাচক চিন্তা করছি। আমাদের কিছু কিছু অফিসে ইতোমধ্যে কার্যক্রম শুরু হয়েছে। আমি খুবই আনন্দিত যে, আমাদের মেধাবী কর্মীরা আবারো তাদের নতুন আইডিয়া ও পরিকল্পনা নিয়ে ব্যস্ততা ও কর্মচঞ্চলতায় মেতে উঠছে। 

তিনি লিখেছেন, ‘আশা করি সবাই ভালো আছেন। করোনা মহামারি শুরুর পর থেকে আমরা সবসময় চেষ্টা করেছি আমাদের অংশীদার ও গ্রাহকদের পাশাপাশি গুগল কমিউনিটির প্রতি মনযোগী হতে। তাই ২০২০ সালের মার্চে আমরা সিদ্ধান্ত নেই, সংক্রমন রোধে কর্মীদের বাসা থেকে কাজ করার উপর গুরুত্ব দিতে। এখন যেহেতু টিকা চলে এসেছে, তাই আমরা দ্রতই আমাদের কেন্দ্রীয় ও আঞ্চলিক অফিসগুলো খোলার কথা ভাবছি। যদিও বিশ্বের অনেক দেশে এখনও ভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ছে, তবে টিকার কার্যক্রম অব্যাহত থাকায় আমরা অনেকটা আশাবাদী ও ইতিবাচক অবস্থানে আছি। তাই আপনাদের সবাইকে যত দ্রুত সম্ভব টিকা গ্রহণের আহবান জানাচ্ছি, কারণ, আপনার অফিসে ফেরার একমাত্র পথ হচ্ছে এটি। আমরা যুক্তরাষ্ট্রের অফিসগুলোতে এই নীতি জানিয়ে দিয়েছি। খুব দ্রুত আমাদের আঞ্চলিক অফিসগুলোতেও এটি কার্যকর করা হবে। আপনারা আপনাদের প্রধান নির্বাহীর কাছ থেকে গাইডলাইন পেয়ে যাবেন। যারা অন্যান্য কারণে টিকা গ্রহণ করতে পারবেন না তাদের ক্ষেত্রে যা করনীয় তা আমরা শিগগিরই জানিয়ে দেব।’
 
অবশ্য প্রয়োজনে বাড়ি থেকে কাজ করার সময় প্রয়োজনে বাড়তে পারে উল্লেখ করে সুন্দর পিচাই লিখেছেন, ‘বহু দেশ এখন করোনার ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্ত। উদ্ভুত পরিস্থিতি বর্তমানে কতটা গুরুতর তা আমরা অনুধাবন করতে পারছি। তাই আমরা ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোম’ পলিসি ১৮ অক্টোবর পর্যন্ত বাড়িয়েছি। যদি প্রয়োজন পড়ে তাহলে তা চলতি বছরের শেষ নাগাদও বৃদ্ধি পেতে পারে।’

 

ঢাকা/সাব্বির

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়