ঢাকা     বুধবার   ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ ||  আশ্বিন ১৩ ১৪২৯ ||  ০১ রবিউল আউয়াল ১৪১৪

গুজরাট দাঙ্গায় গণধর্ষণ কাণ্ডে মুক্ত ১১ জনকে সংবর্ধনা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২২:৪২, ১৭ আগস্ট ২০২২  
গুজরাট দাঙ্গায় গণধর্ষণ কাণ্ডে মুক্ত ১১ জনকে সংবর্ধনা

২০০২ সালে ভারতের গুজরাট দাঙ্গার সময়ে  বিলকিস বানুকে গণধর্ষণ করা হয়। ওই সময় তার পরিবারের আরও সাত সদস্যকে হত্যা করা হয়। ওই ঘটনা ভারতজুড়ে সাড়া ফেলে দিয়েছিল। ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ত ১১ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। আদালত তাদের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডও দিয়েছিল। কিন্তু গত ১৫ আগস্ট ভারতের স্বাধীনতা দিবসের প্রাক্কালে এই ১১ জনকেই মুক্তি দেওয়া হয়েছে। 

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানিছে, গুজরাট সরকারকে সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশ দিয়েছিল শাস্তির সাজা পুনর্বিবেচনা করতে। আর তারপরেই গুজরাট সরকার ১১ জনকে মুক্তি দেয়। আর এই নিয়েই শুরু হয়েছে দেশজুড়ে সমালোচনা। এরই মধ্যে এই ১১ জন মুক্তিপ্রাপ্তকে নিয়ে যাওয়া হয় বিশ্ব হিন্দু পরিষদের অফিসে এবং সেখানে তাদের রীতিমতো সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

আদালতের এই এই পদক্ষেপ ‘ন্যায়বিচারের প্রতি তার আস্থাকে নষ্ট করে দিয়েছে’ বলে বুধবার মন্তব্য করেছেন বিলকিস বানু।

তিনি বলেন, ‘দুদিন আগে, ১৫আগস্ট, ২০২২ এ আমার উপর বিগত ২০ বছরের ঝড় আবার আঘাত দিয়ে গেল, যখন আমি শুনলাম ১১ জন দোষী ব্যক্তি যারা আমার পরিবার এবং আমার জীবন ধ্বংস করেছে এবং আমার তিন বছরের মেয়েকে আমার কাছ থেকে কেড়ে নিয়েছে, তারা মুক্তি পেয়েছে।’

বিলকিস বলেন, ‘আমি বাকহীন হয়ে পড়েছিলাম। আমি এখনও অসাড়। আজ, আমি শুধু এইটুকুই বলতে পারি - কীভাবে কোনও নারীর জন্য ন্যায়বিচার এভাবে শেষ হতে পারে? আমি আমাদের দেশের সর্বোচ্চ আদালতকে বিশ্বাস করেছি। আমি ব্যবস্থার উপর আস্থা রেখেছি, এবং আমি ধীরে ধীরে আঘাত নিয়ে বাঁচা শিখছিলাম।’

নিজের চোখের সামনে পরিবারের সাত সদস্যের খুন হতে দেখা এই নারী বলেন, ‘এই দোষীদের মুক্তি আমার শান্তি কেড়ে নিয়েছে এবং ন্যায়বিচারের প্রতি আমার বিশ্বাসকে নাড়িয়ে দিয়েছে। আমার এই দুঃখ ও দোদুল্যমান বিশ্বাস আমার একার জন্য নয়, প্রতিটি নারীর জন্য যারা আদালতে ন্যায়বিচারের জন্য সংগ্রাম করছেন।’
 

ঢাকা/শাহেদ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়