ঢাকা, শুক্রবার, ১৫ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

এ কেমন বাবা!

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০১-১৭ ৩:৪৬:০১ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০১-১৭ ৭:০৬:৩৮ পিএম

মহাজন আবুল হাসানের মুরগির দোকানে কাজ করতেন মো. লিটন। অভাবের তাড়নায় মহাজনের কাছ থেকে টাকা ধার করেন। সেই টাকা পরিশোধ করতে না পারায় গোপনে নিজের কিশোরী মেয়েকে তুলে দেন মহাজনের হাতে। দিনের পর দিন ওই কিশোরীর ওপর চলতে থাকে পাশবিক নির্যাতন।

রাজধানীর কামরাঙ্গীরচরে চাঞ্চল্যকর এ ঘটনা ঘটে।

শুক্রবার দুপুরে কামরাঙ্গীরচর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মশিউর রহমান বলেন, ঘটনাটি অত্যন্ত হৃদয়বিদারক ও স্পর্শকাতর। বাবা কীভাবে তার কিশোরী মেয়েকে আরেকজনের কাছে তুলে দিতে পারেন! ওই কিশোরীর বাবা মো. লিটন এবং মহাজন আবুল হাসানকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ওই কিশোরী জবানবন্দিতে বলেছে, বাবার জন্য সে অবৈধ সম্পর্কে বাধ্য হয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আবুলের কাছ থেকে ৬ হাজার টাকা ধার করেন লিটন। টাকা পরিশোধ না করতে পারায় প্রায় এক বছর আগে নিজের মেয়েকে আবুলের হাতে তুলে দেন তিনি। মুরগি ব্যবসায়ী আবুলের দোকানে চাকরি করতেন লিটন, পাশাপাশি ভ্যানও চালাতেন। গত ১১ জানুয়ারি ওই কিশোরী ধর্ষণের শিকার হলে সহ্য করতে না পেরে এক প্রতিবেশী নারীকে বিষয়টি জানায়।

কখনো কখনো মেয়েটিকে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে ওই মহাজনের কাছে দেয়া হতো। মহাজন তাকে সুবিধাজনক স্থানে নিয়ে যেত। আবার কখনো কিশোরীকে তার বাবার বাড়িতেও যৌন নির্যাতন করত। মেয়ের মা ঘটনাটি জানলেও তাকে ভয়ভীতি দেখাতেন লিটন। মেয়েটিকে অনেক সময় অসুস্থ দেখাতো। নির্বাক হয়ে থাকত সে। কারো সঙ্গে ঠিকমতো কথা বলত না। লজ্জায় ঘর থেকে বেরও হতো না। দিনের পর দিন এ অবস্থা চলতে থাকায় সর্বশেষ ঘটনার দিন এক প্রতিবেশী জরুরি হেল্পলাইন নম্বর ৯৯৯ এ ফোন দিয়ে বিষয়টি পুলিশকে জানায়। পুলিশ সে দিনেই তাকে উদ্ধার করে। মেয়েটি ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) চিকিৎসাধীন আছে।


ঢাকা/মাকসুদ/রফিক

     
 
রাইজিংবিডি স্পেশাল ভিডিও