ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

ভোটের মাঠে প্রতারকচক্র!

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০১-২৮ ৫:৪১:৫৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০১-২৮ ৭:৫৮:১৩ পিএম
প্রতিকী ছবি

হাতেগোনা কয়েকদিন বাকি ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনের। নির্বাচনের এই ডামাডোলের মধ‌্যে এক শ্রেণির প্রতারক চক্র আঁটঘাট বেঁধে নেমে পড়েছেন।

নিজেদেরকে ওসি, ম্যাজিস্ট্রেট ইত‌্যাদি পরিচয় দিয়ে কাউন্সিলর প্রার্থীদের কাছ থেকে হাতিয়ে নিচ্ছেন লাখ লাখ টাকা। আর এর বিনিময়ে নির্বাচনে জেতার নিশ্চয়তা দিচ্ছেন তারা।

বেশ কয়েকজন ভুক্তভোগী পুলিশের কাছে এ অভিযোগ করেছেন।

পুলিশ জানায়, গত ২২ জানুয়ারি ৩০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী ইয়াসিন মোল্লার কাছে আদাবর থানার ওসির পরিচয়ে ফোন করে এক প্রতারক। লাটিম প্রতীকের প্রার্থীকে কাউন্সিলর পদে জিতিয়ে দেওয়ার নিশ্চয়তা দেয়া হয়। এজন‌্য তার কাছে ১৫ লাখ টাকা দাবি করে ফোনের অপর প্রান্তের ব‌্যক্তি। মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে ওই প্রতারক তার কাছ থেকে পাঁচ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়।

বাকি ১০ লাখ নির্বাচনের পর দেওয়া হবে বলে জানায়। এ ঘটনায় ইয়াসিন মোল্লার ছেলে কাওসার মোল্লা বাদী হয়ে গত ২৪ জানুয়ারি অজ্ঞাতনামাদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন।

মঙ্গলবার কাওসার মোল্লা রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘১২ দফায় পাঁচ লাখ টাকা পাঠানো হয়। ওই দিন সন্ধ্যায় ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয়ে ওই প্রতারক আবারো ফোন করে তিন লাখ ৩০ হাজার টাকা চায়। সন্দেহ হলে ওসিকে ফোন করে বিষয়টি জানানো হয়।’

ওই প্রতারককে এর আগে কখনো দেখেননি বলে উল্লেখ করেন কাওসার মোল্লা।

আদাবর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শহিদুজ্জামান বলেন, ‘ইয়াসিন মোল্লা প্রতারণার শিকার হয়েছেন। ফোন নম্বর ক্লোন করে এঘটনা ঘটানো হয়ে থাকতে পারে। প্রতারকদের গ্রেপ্তারে পুলিশের সঙ্গে গোয়েন্দারা কাজ করছে।’

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রতারকচক্র একই ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগ প্রার্থী আবুল কাশেম এবং ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের প্রার্থী ডেইজী সারওয়ারের কাছ থেকেও একই পদ্ধতিতে পাঁচ লাখ করে ১০ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।

এছাড়া ২০ ও ২১ নম্বর ওয়াডের্র আরো তিন প্রার্থীকে ফোন করে চক্রটি। তবে তাদের পাতা ফাঁদে আর কেউ পা দেয়নি বলে রাইজিংবিডিকে নিশ্চিত করেন ভুক্তভোগিরা।

প্রতারকচক্র প্রথমে নিজেকে ওসি পরিচয় দেয়। এরপর ম্যাজিস্ট্রেটের সঙ্গে যোগাযোগ করতে বলে। এ কারণে উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের বিভিন্ন ওয়ার্ডের গোয়েন্দা নজরদারি বাড়ানো হয়েছে।


ঢাকা/মাকসুদ/সনি

     
 
রাইজিংবিডি স্পেশাল ভিডিও