ঢাকা, সোমবার, ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০১ জুন ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

রাস্তায় গাড়ি পার্কিং: ছিনতাই-ছুরিকাঘাতের শঙ্কা

হাসিবুল ইসলাম : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৪-০১ ৬:২৪:১১ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৪-০১ ১১:১৩:০০ পিএম
রাস্তার ওপর সারি সারি বাস। ছবিটি চিটাগাং রোডের সাইনবোর্ড মোড় থেকে তোলা (ছবি: শাহীন ভুঁইয়া)

মহামারি করোনার কারণে দেশে চলছে সাধারণ ছুটি। এই সময় বন্ধ রয়েছে সব ধরনের গণপরিবহন চলাচল। তবে, বন্ধ থাকা গণপরিবহনগুলো রাখা হয়েছে রাজধানীর বিভিন্ন রাস্তা-ফুটপাতের ওপর। এতে জরুরি প্রয়োজনে বাসা-বাড়ি  থেকে বের হওয়া নাগরিকে পথ চলাচলে বিঘ্ন সৃষ্টি হচ্ছে। একইসঙ্গে ছিনতাই-ছুরিকাঘাতের মতো অপরাধেরও আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

এই বিষয়ে রাজধানীর গাবতলি বাস টার্মিনাল এলাকার বাসিন্দা মোহাম্মদ ইউসুফ হোসেন বলেন, ‘আমি দীর্ঘদিন যাবত এই এলাকায় বসবাস করি। এমনিতেই গাবতলিসহ অন্যান্য বাস টার্মিনালে পকেটমার-ছিনতাইকারীদের আনাগোনা বেশি থাকে। প্রায়ই এসব এলাকায় ছিনতাই-পকেটমারের মতো ঘটনা ঘটে। আর এখন করোনার কারণে বাস চলাচল বন্ধ। বাসগুলো টার্মিনালের বাইরে ফুটপাত ঘেঁষে রাস্তার ওপর রাখায় পথচারী চলাচলে অসুবিধা হচ্ছে। অনেকেই দুই মাসের মাঝখান দিয়ে যেতে বাধ্য হচ্ছেন। এতে ছিনতাইকারী ও পকেটমারের কবলে পড়ার আশঙ্কা বাড়ছে।’

কথা হয় রাজধানীর ফুলবাড়িয়া বিআরটিসি বাস কাউন্টার এলাকায় এক পথচারীর সঙ্গে। তিনি রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘গুলিস্তান বা ফুলবাড়িয়া এলাকায় স্বাভাবিক সময়েও চলাচলের জন্য খুব ঝুঁকিপূর্ণ। এখন করোনার কারণে এই এলাকায় ফুটপাত ঘেঁষে রাস্তার ওপর বাস রাখা হয়েছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘এসব বাসের কারণে ফুটপাত বন্ধ হয়ে গেছে প্রায়। রাতের বেলা তো ফুটপাত ভূতুড়ে মনে হয়। এতে ফুটপাতে কেউ হাঁটতে গেলেই ছিনতাইয়ের কবলে পড়া ছাড়াও ছুরিকাঘাতে প্রাণ হারানোরও আশঙ্কা আছে।’

রাজধানীর গুলিস্তানে সড়কের ওপরে বাস (ছবি: শাহীন ভূঁইয়া)

 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়য়ের অপরাধ বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক জিয়া রহমান বলেন, ‘সাধারণত জরুরি পরিস্থিতির মধ্যে চুরি-ডাকাতির মতো ঘটনা ঘটে। বাংলাদেশেও এই ধরনের ঘটনা ঘটতে পারে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে সতর্ক  থাকতে হবে।’

এসব বিষয়ে জানতে চাইলে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব জানাব খন্দকার এনায়েত উল্যাহ বলেন, ‘বর্তমান পরিস্থিতে অনেকে ফুলবাড়িয়ায় যত বাস রাখা যায়, রেখেছেন। এরপর গাবতলি, মহাখালী, সায়েদাবাদ বাস টার্মিনালে ও আশেপাশের রাস্তায় রেখেছেন। কেউ কেউ জায়গা ভাড়া করেও রেখেছেন। যারা জায়গা ভাড়া পাননি, তারা রাস্তার পাশে রেখেছেন। এখন তো আর অন্য কোনো ব্যবস্থা করাও সম্ভব নয়।’

বাস রাখার বিষয়ে মালিক সমিতির পক্ষ থেকে কোনো নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে খন্দকার এনায়েত উল্যাহ বলেন, ‘আমাদের পক্ষ থেকে তেমন কোনো নির্দেশনা দেওয়া হয়নি। বাসমালিকরা তাদের সুবিধা অনুযায়ী ব্যবস্থা করেছেন।’

ফুলবাড়িয়ায় রাস্তার ওপর সারি সারি বাস। (ছবি: শাহীন ভূঁইয়া)

 

রাস্তার ওপর বাস রাখার কারণে ছিনতাই-ছুরিকাঘাতের মতো অপরাধ ঘটতে পারে কি না—এমন প্রশ্নের জবাবে দারুসসালাম জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার মিজানুর রহমান বলেন, ‘আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী বসে নেই। এই ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা যেন না ঘটে, সেজন্য সব সময়ই সজাগ রয়েছে।’  রাস্তায় পুলিশ সর্বক্ষণিক টহল দিচ্ছে বলেও তিনি জানান।   

 

ঢাকা/ হাসিবুল/এনই