ঢাকা     সোমবার   ১০ আগস্ট ২০২০ ||  শ্রাবণ ২৬ ১৪২৭ ||  ২০ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

শত্রুতার জেরে মর্নিং বার্ডকে ডুবিয়ে দেয় ময়ূর-২

নিজস্ব প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:৩৭, ৯ জুলাই ২০২০  
শত্রুতার জেরে মর্নিং বার্ডকে ডুবিয়ে দেয় ময়ূর-২

পূর্ব শত্রুতার জেরে ময়ূর-২ লঞ্চের মালিক মোসাদ্দেক হানিফের পরিকল্পনা অনুযায়ী তার লঞ্চ দিয়ে মর্নিং বার্ড লঞ্চকে ধাক্কা দিয়ে নদীতে ডুবিয়ে দেওয়া হয়।

বৃহস্পতিবার (৯ জুলাই) মোসাদ্দেক হানিফকে আদালতে হাজির করে সাত দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা নৌ পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. শহিদুল আলম। রিমান্ড আবেদনে এমনটাই উল্লেখ করেছেন তদন্ত কর্মকর্তা।

আবেদনে তদন্ত কর্মকর্তা বলেন, ‘গত ২৯ জুন সকাল ৯টা ১৩ মিনিটে শ্যামবাজার বরাবর ফরাশগঞ্জ ঘাট সংলগ্ন বুড়িগঙ্গা নদীর দক্ষিণ পাশে মর্নিং বার্ড লঞ্চকে এমভি ময়ূর-২ বেপরোয়াভাবে ধাক্কা মারে। এতে লঞ্চটি ডুবে যায়। এতে ৮৫ লাখ টাকার ক্ষতি হয়। লঞ্চটিতে থাকা ৬০-৬৫ জন যাত্রীর মধ্যে ৩৪ জনের মৃতদেহ উদ্ধার হয়।’

বৃহস্পতিবার দুপুর সোয়া ২টার দিকে ঢাকার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মনিকা খানের আদালতে রিমান্ড শুনানি হয়। আসামি মোসাদ্দেকের পক্ষে ঢাকা আইনজীবী সমিতির সভাপতি ইকবাল হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক হোসেন আলী খান হাসানসহ কয়েকজন আইনজীবী রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিন শুনানি করেন।

শুনানিতে তারা দাবি করেন, তার সাথে মর্নিং বার্ড লঞ্চের মালিকের শত্রুতা নেই। মর্নিং বার্ড লঞ্চ মুন্সীগঞ্জ-ঢাকা এবং ময়ূর-২ লঞ্চ চাঁদপুর-ঢাকা রুটে চলাচল করে। তাই তাদের মধ্যে শত্রুতা থাকার প্রশ্নও নেই। দুর্ঘটনার সময় তিনি লঞ্চেও ছিলেন না। তাই তাকে কোনভাবেই দায়ী করা যায় না। তিনি জামিন পেতে পারেন।

অন্যদিকে, রাষ্ট্রপক্ষে অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর আয়োরুল কবীর বাবুল জামিনের বিরোধিতা করেন। তিনি বলেন, এটা (লঞ্চডুবি) কোনো দুর্ঘটনা নয়। মর্নিং বার্ডকে ইচ্ছাকৃতভাবে আঘাত করা হয়েছে। তাই তিনি (মোসাদ্দেক হানিফ) দায় এড়াতে পারেন না।

উভয় পক্ষের শুনানি শেষে আদালত জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে তিন দিনের রিমান্ডের আদেশ দেন।

গত বুধবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে সোবহানবাগ  থেকে মোসাদ্দেককে গ্রেপ্তার করা হয়।

এর আগে গত ৭ জুলাই মামলাটিতে ময়ূর-২ এর সুপারভাইজার আব্দুস সালামের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। এখন তিনি রিমান্ডে আছেন।

গত ২৯ জুন লঞ্চডুবির ঘটনায় নৌ পুলিশের সদরঘাট থানার উপ-পরিদর্শক সামশুল আলম বাদী হয়ে দক্ষিণ কেরাণীগঞ্জ থানায় মামলা করেন।


ঢাকা/মামুন/রফিক

রাইজিংবিডি.কম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়