RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ২৯ অক্টোবর ২০২০ ||  কার্তিক ১৪ ১৪২৭ ||  ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

অ‌্যারোমা থাই স্পা’র ৩ কোটি টাকার তথ্য গোপন

এম এ রহমান মাসুম || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২৩:০৪, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ১২:৪৪, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০
অ‌্যারোমা থাই স্পা’র ৩ কোটি টাকার তথ্য গোপন

রাজধানীর অভিজাত এলাকা গুলশানে অবস্থিত অ‌্যারোমা থাই স্পা। বিভিন্ন সেবার মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানটিতে আড়াই বছরে লেনদেনের পরিমাণ প্রায় সাড়ে তিন কোটি টাকা। অথচ  মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট) ফাঁকি দিতে কাগজপত্রে লেনদেন দেখিয়েছে মাত্র ২ লাখ ৯৩ হাজার টাকা।

ভ্যাট আদায়যোগ্য ২ কোটি ৯৯ লাখ ৮২ হাজার ৯১৬ টাকার  বিক্রির তথ্য গোপন করেছে অ‌্যারোমা থাই স্পা কর্তৃপক্ষ। এছাড়া, বাড়িভাড়ার ক্ষেত্রে অর্ধকোটি টাকার বেশি তথ্য গোপন করেছে তারা। ভ্যাট নিরীক্ষা ও গোয়েন্দা অধিদপ্তরের অনুসন্ধানে এসব তথ্য বেরিয়ে এসেছে।

ইতোমধ্যে এ বিষয়ে ভ্যাট আইনে মামলাও দায়ের করেছে প্রতিষ্ঠানটি। একই সঙ্গে প্রতিষ্ঠানটিকে ঝুঁকিপূর্ণ প্রতিষ্ঠান হিসেবে চিহ্নিত করে সংশ্লিষ্ট সার্কেল ও বিভাগীয় অফিস হতে তদারকি জোরদার করার পরামর্শ দিয়েছে ভ্যাট কর্তৃপক্ষ।

এ বিষয়ে ভ্যাট নিরীক্ষা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মইনুল খান রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘ভ্যাট গোয়েন্দা অভিযানকালে প্রাপ্ত নথিপত্র ও প্রতিষ্ঠানটি ব্যাংক হিসাব পর্যালোচনা করে এমন ভ্যাট ফাঁকির তথ্য উদঘাটন করেছে আমাদের টিম। এরই মধ্যে মামলা দায়ের করা হয়েছে। আমরা সার্বক্ষণিক তাদের কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করছি।’

এ বিষয়ে অ‌্যারোমা থাই স্পা কর্তৃপক্ষের অফিসিয়াল ফোনো যোগাযোগ করা হলেও তাদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

ভ্যাট গোয়েন্দা কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা যায়, চলতি বছরের ১৬ আগস্ট অ‌্যারোমা থাই স্পা’র গুলশান অফিসে অভিযান পরিচালনা করে। যার ঠিকানা হচ্ছে-গুলশান-২, রোড-৪৪, বাড়ি-৬বি। অভিযানকালে জব্দকৃত নথিপত্র যাচাই করে দেখা যায়, প্রতিষ্ঠানটির নিজেদের পস মেশিনেরই তথ্য অনুযায়ী ২০১৮ সালের মার্চ থেকে ২০২০ সালের আগস্ট পর্যন্ত মোট সেবার বিক্রয় মূল্য ছিলো ৩ কোটি ৪৮ লাখ ১৮ হাজার ৪২২ টাকা। ওই বিক্রয় মূল্যের মধ্যে ৩ কোটি ২ লাখ ৭৬ হাজার ৮৮৯ টাকার ওপর ভ্যাট প্রযোজ্য।  

কিন্তু অ‌্যারোমা থাই-এর ভ্যাট রিটার্নের তথ্য যাচাই-বাছাই শেষে দেখা যায় তারা কাগজপত্রে মাত্র ২ লাখ ৯৩ হাজার ৯৭৩ টাকার বিক্রয় প্রদর্শন করেছে। অর্থাৎ ২ কোটি ৯৯ লাখ ৮২ হাজার ৯১৬ টাকার বিক্রয়ের তথ্য গোপন করে ৪৪ লাখ ৯৭ হাজার ৪৩৭ টাকার ভ্যাট ফাঁকি দিয়েছে।
অন্যদিকে ওই ভ্যাটের টাকা যথাসময়ে পরিশোধ না করায় ২০১২ সালের সালের মূসক ও সম্পূরক শুল্ক আইনের ১২৭ এর ১ ধারা অনুযায়ী মাসিক ২ শতাংশ হারে ১০ লাখ ৭৭ হাজার ৯২৩ টাকা জরিমানা হিসাব করলে মোট আদায়যোগ্য ভ্যাটের পরিমাণ দাঁড়ায় ৫৫ লাখ ৭৫ হাজার ৩৬০ টাকা।

অভিযানকালে ভ্যাট গোয়েন্দা আরও দেখতে পায়- প্রতিষ্ঠানটি ২০১৮ সাল থেকে গুলশানের শেখ উর্মি আরমান ইভার মালিকানাধীন ভবনে ভাড়া নিয়ে ব্যবসা পরিচালনা করছে। ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে মাসিক ভাড়া ২ লাখ ৬৫ হাজার টাকা প্রদান করছে অ‌্যারোমা থাই স্পা কর্তৃপক্ষ। যার বিপরীতে আদায়যোগ্য ভ্যাটের পরিমাণ হয় ৩৯ হাজার ৭৫০ টাকা। 

সে হিসাবে ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে ২০২০ সালের আগস্ট পর‌্যন্ত ৮২ লাখ ১৫ হাজার টাকার ভাড়া পরিশোধ করা হয়েছে। সেক্ষেত্রে আদায়যোগ্য ভ্যাটের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ১২ লাখ ৩২ হাজার ২৫০টাকা।  এর মধ্যে মাত্র ৬০ হাজার টাকা পরিশোধ করেছে অ‌্যারোমা থাই স্পা।

অর্থাৎ ১১ লাখ ৭২ হাজার ২৫০ টাকার ভ্যাট আদায়যোগ্য। এর সঙ্গে ২ শতাংশ হিসাবে আদায়যোগ্য সুদের পরিমাণ হলো ৩ লাখ ৫ হাজার ৭৪৫ টাকা। অর্থাৎ বাড়ি ভাড়ার ক্ষেত্রে আদায়যোগ্য মোট ভ্যাটের পরিমাণ হলো ১৪ লাখ ৭৭ হাজার ৯৯৫ টাকা। দুই খাত মিলিয়ে আদায়যোগ্য ভ্যাটের পরিমাণ হলো ৭০ লাখ ৫৩ হাজার ৩৫৫ টাকা।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ভ্যাট গোয়েন্দার এক কর্মকর্তা বলেন, ‘অ‌্যারোমা থাই স্পা মূসক রিটার্নে নামমাত্র বিক্রয় মূল্য প্রদর্শন করে প্রকৃত বিক্রয় তথ্য গোপন করেছে। এর মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানটি রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে নিজেরা ব্যক্তিগতভাবে লাভবান হচ্ছেন কিন্তু সরকার আর্থিক ক্ষতির শিকার হচ্ছে। অভিযানকালে প্রতিষ্ঠানটির ভেতরে ছোট ছোট কক্ষ ও স্টাফের বাইরে বেশ কয়েকজন তরুণী দেখা গেছে এবং পর্যবেক্ষণে তাদের গতিবিধি সন্দেহজনক মনে হয়েছে। এজন্য প্রকৃত সেবা বিক্রির তথ্য গোপন করায় প্রতিষ্ঠানটিকে ঝুঁকিপূর্ণ প্রতিষ্ঠান হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।’

ঢাকা/এম এ রহমান/সনি

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়