RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     শুক্রবার   ২৩ অক্টোবর ২০২০ ||  কার্তিক ৮ ১৪২৭ ||  ০৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

অর্থ আত্মসাতের মামলায় ব্যাংক কর্মকর্তাসহ দুজনের কারাদণ্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:৫৪, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ১৬:০৫, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০
অর্থ আত্মসাতের মামলায় ব্যাংক কর্মকর্তাসহ দুজনের কারাদণ্ড

মতিঝিল মডেল হাইস্কুল ও কলেজের হিসাব থেকে ৫ লাখ টাকা আত্মসাতের মামলায় ব্যাংক এশিয়ার প্রধান শাখার জুনিয়র অফিসারসহ দুজনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

রোববার (২৭ সেপ্টেম্বর) ঢাকা বিশেষ জজ আদালত-৯ এর বিচারক শেখ হাফিজুর রহমান আসামিদের অনুপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন।

ব্যাংক এশিয়ার প্রধান শাখার জুনিয়র অফিসার মোশারফ হোসেনকে (৩৪) তিন বছরের সশ্রম কারাদণ্ড, ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায় আরও এক মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। মামলার আরেক আসামি মেসার্স জেড এইচ চৌধুরী ট্রেডার্স এর স্বত্বাধিকারী জাকির হোসেন চৌধুরীকে দুই বছরের সশ্রম কারাদণ্ড এবং ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায় আরও এক মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জের পূর্ববিঘা গ্রামের মৃত আলী হোসেনের ছেলে মোশারফ হোসেন। একই গ্রামের আবুল কালামের ছেলে জাকির হোসেন চৌধুরী।

আসামিরা পলাতক থাকায় আদালত তাদের সাজা পরোয়ানাসহ গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন। ৫ লাখ টাকা আত্মসাতের ঘটনায় ব্যাংক এশিয়ায় প্রধান শাখার ফাস্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট ও ম্যানেজার অপারেশনস্ মোর্শেদ আলম ২০১৭ সালের ১৭ মার্চ মতিঝিল থানায় মামলা করেন।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, মোশারফ হোসেন ওই শাখায় কর্মরত থাকা অবস্থায় ২০১৫ সালের ১৬ জুন মতিঝিল শাখায় পরিচালিত মতিঝিল মডেল হাইস্কুল ও কলেজ শাখা থেকে নিয়ম  বহির্ভূতভাবে ৫ লাখ টাকা মেসার্স জেড এইচ চৌধুরী ট্রেডার্স এর স্বত্বাধিকারী জাকির হোসেন চৌধুরীর হিসাবে স্থানান্তরের মাধ্যমে আত্মসাৎ করেন।  ২০১৭ সালের ১২ মার্চ মোশারফকে এ বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেন কর্মকর্তারা। বিষয়টি স্বীকার করে মোশারফ হোসেন বলেন, ২০১৫ সালের ১৬ জুন বিকেলে দুই লাখ টাকা এবং ১৭ জুন দুপুরে তিন লাখ টাকা ওই হিসাব থেকে উত্তোলন করে আত্মসাৎ করেন।

মামলাটি তদন্ত করে ২০১৮ সালের ৩০ আগস্ট দুজনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের উপ-সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ নেয়ামুল আহসান গাজী। পরে আদালত মামলাটিতে চার্জ গঠন করে বিচার শুরু করেন। মামলার বিচার চলাকালে আদালত চার্জশিটভুক্ত ৬ জন সাক্ষীর মধ্যে তিন জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেন।

মামুন/সাইফ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়