RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ১৭ জানুয়ারি ২০২১ ||  মাঘ ৩ ১৪২৭ ||  ০২ জমাদিউস সানি ১৪৪২

হাইকোর্টের একটি বেঞ্চের বিরুদ্ধে প্রধান বিচারপতির কাছে অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৩:০০, ১০ নভেম্বর ২০২০  
হাইকোর্টের একটি বেঞ্চের বিরুদ্ধে প্রধান বিচারপতির কাছে অভিযোগ

দুই আইনজীবীকে জরিমানা ও অসৌজন্যমূলক আচরণ করায় হাইকোর্টের একটি বেঞ্চের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে প্রধান বিচারপতির কাছে অভিযোগ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি।

মঙ্গলবার (১০ নভেম্বর) সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির কার্য নির্বাহী কমিটির সর্ব সম্মতিতে এ অভিযোগ দেওয়া হয়। 

প্রধান বিচারপতির কাছে দাখিল করা অভিযোগে বলা হয়, দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় বার ও বেঞ্চের মধ্যে সুসম্পর্ক বজায় রাখা খুবই জরুরি। আইনজীবী ও বিচারকের মধ্যে পারস্পপারিক শ্রদ্ধাবোধ থাকলেই শুধুমাত্র আদালত সুষ্ঠুভাবে তার মহান দায়িত্ব পালন করতে পারেন। দেশের বিজ্ঞ আইনজীবীরা আইন ও আদালতের প্রতি সর্বদা শ্রদ্ধাশীল থেকে নিজেদের আইন পেশায় নিয়োজিত করেছেন। এ অনন্য ভূমিকার জন্য আইনজীবীদের আদালতের অবিচ্ছেদ্য অংশ বলা হয়ে থাকে। আদালত সহনশীলতার সঙ্গে তার ওপর অর্পিত মহান দায়িত্ব পালন করে থাকেন। অথচ ইদানিং দুই-একটি আদালতে মামলার শুনানি চলাকালে সুপ্রিম কোর্টের বিজ্ঞ আইনজীবীদের বিভিন্নভাবে তুচ্ছ তাচ্ছিল্য করার প্রবণতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। যা অত্যন্ত দুঃখজনক। এ অনাকাঙ্খিত ব্যবহারের জন্য যুগ যুগ ধরে গড়ে তোলা বার ও বেঞ্চের মধ্যে সুসম্পর্কের অবনতি হচ্ছে বলে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি মনে করে।

অভিযোগ পত্রে বলা হয়, গত ৮ নভেম্বর রিট পিটিশন নম্বর ১৩১৪২/২০১৯ এর শুনানি শেষে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির দুইজন বিজ্ঞ সদস্য সৈয়দ সাইয়েদুল হক সুমন এবং ইশরাত হাসানের বিরুদ্ধে ১০০ টাকা করে জরিমানা এবং আদালত অবমাননার রুল ইস্যু করা হয়েছে। শুনানিকালে আইনজীবীদের সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ করা হয়েছে। যা দেশের সর্বোচ্চ আদালতের আইনজীবীদের মর্যাদার সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়। মামলা দায়ের কিংবা পরিচালনার কারণে আইনজীবীদের বিরুদ্ধে জরিমানা ধার্য কিংবা আদালত অবমাননার রুল ইস্যুর ক্ষেত্রে মহামান্য আদালতের কাছে সমিতি আরও সহনশীলতা প্রত্যাশা করে। দেশের সর্বোচ্চ আদালতের আইনজীবীরা যেমন আদালতের মর্যাদা রক্ষায় বদ্ধ পরিকর। তেমনি আইনজীবীদের মর্যাদা রক্ষার দায়িত্বও আদালতের ওপর বর্তায়। এ অবস্থায় দেশের আইনের শাসন বজায় রাখার স্বার্থে বার এবং বেঞ্চের মধ্যে কোনো ভুল বোঝাবুঝির সুযোগ সৃষ্টি না হয় এবং উভয়ের মধ্যে সু-সম্পর্ক বিনষ্ট যাতে না হয়, এ ব্যাপারে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি আপনাকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য জোর দাবি জানাচ্ছে।

প্রসঙ্গত, গত ৮ নভেম্বর আইনজীবী অন্তর্ভুক্তির পরীক্ষায় অনুত্তীর্ণ এক বিচারপতির ছেলে ব্যারিস্টার জুম্মন সিদ্দিকীকে সরাসরি হাইকোর্টের আইনজীবী হিসেবে বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের গেজেট প্রকাশ বৈধ বলে রায় ঘোষণা করেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে রিটকারী আইনজীবী ব্যারিস্টার সৈয়দ সাইয়েদুল হক সুমন ও অ্যাডভোকেট ইশরাত হাসানকে একশত টাকা করে জরিমানা করেন আদালত। এ ধরনের রিট করে আদালত সময় নষ্ট করার জন্য এ জরিমানা করা হয়েছে। এদিকে এ রিট মামলার শুনানির এক পর্যায়ে ব্যারিস্টার সৈয়দ সাইয়েদুল হক সুমন ও অ্যাডভোকেট ইশরাত হাসানের বিরুদ্ধে আদালত অবমানার রুলও জারি করেন আদালত।

বিচারপতি গোবিন্দ্র চন্দ্র ঠাকুর ও বিচারপতি মোহাম্মাদ উল্লাহর হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় দেন।

গত বছরের ১৮ ডিসেম্বর এক বিচারপতির ছেলেকে সরাসরি হাইকোর্টের আইনজীবী হিসেবে জারি করা গেজেটের কার্যক্রম স্থগিত করেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে সরাসরি হাইকোর্টের আইনজীবী হিসেবে গেজেট প্রকাশ কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন আদালত। বিচারপতি তারিক উল হাকিম ও বিচারপতি ইকবাল কবিরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

গত ২১ নভেম্বর আইনজীবী অন্তর্ভুক্তির পরীক্ষায় বারবার অনুত্তীর্ণ হওয়ার পরও হাইকোর্টের এক বিচারপতির ছেলেকে সরাসরি হাইকোর্টের আইনজীবী ঘোষণার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট দায়ের করা হয়। আইনজীবী সৈয়দ সাইয়েদুল হক সুমন ও ইশরাত হাসান বাদী হয়ে এ রিট দায়ের করেন।

রিট আবেদনে বলা হয়, বাংলাদেশ বার কাউন্সিল পরীক্ষায় কয়েকবার অংশ নিয়েও কৃতকার্য হতে পারেনি হাইকোর্টের এক বিচারপতির ছেলে জুম্মান সিদ্দিকী। অথচ গত ১৯ সেপ্টেম্বর জুম্মান সিদ্দিকীকে সরাসরি হাইকোর্টের আইনজীবী হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করে গত ৩১ অক্টোবর গেজেট প্রকাশ করা হয়েছে।

তাই রিটে ওই গেজেট এবং ১৯৭২ সালের বাংলাদেশ বার কাউন্সিল অর্ডারের ২১(১)(খ) ও ৩০(৩) ধারা চ্যালেঞ্জ করা হয়েছে। জুম্মান সিদ্দিকীসহ বার কাউন্সিলের সংশ্লিষ্টদের রিটে বিবাদী করা হয়।

ঢাকা/মেহেদী/এসএম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়