Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     মঙ্গলবার   ২৭ জুলাই ২০২১ ||  শ্রাবণ ১২ ১৪২৮ ||  ১৪ জিলহজ ১৪৪২

অকারণে নিয়াসাকে নির্যাতন করতো তানজিলা

নিজস্ব প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:১৫, ১২ জুন ২০২১   আপডেট: ১৯:১৯, ১২ জুন ২০২১
অকারণে নিয়াসাকে নির্যাতন করতো তানজিলা

প্রতীকী ছবি

‘গত এক বছর ধরে রাজধানীর উত্তরায় তানজিলা রহমানের বাসায় গৃহপরিচারিকার কাজ করে আসছে গৃহকর্মী নিয়াসা। কাজ শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত অকারণে নিয়াসাকে শারীরিকভাবে নির্যাতন করে আসছেন তানজিলা।’

শনিবার (১২ জুন) তানজিলাকে আদালতে হাজির করে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উত্তরা পশ্চিম থানার এসআই কাঞ্চন রায়হান একথা উল্লেখ করেন।

এদিকে ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আতিকুল ইসলামের আদালত শুনানি শেষে জামিন নামঞ্জুর করে তানজিলাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

কারাগারে আটক রাখার আবেদনে তদন্ত কর্মকর্তা বলেন, ‘‘গত ৯ জুন দেড়টার দিকে তানজিলার মা অফিসে ছিল। গৃহকর্মী নিয়াসা বাসায় কাজ করছিলো। হঠাৎ তানজিলার কথিত মেয়ে সোহা (১০) নিয়াসার কাছে সাবানের গুঁড়া চায়। সাবানের গুঁড়া না দেওয়ায় তানজিলা তরকারি কাটার লোহার বটির বাট দিয়ে নিয়াসার গলায় আঘাত করে। 

‘সেসময় ‘কাজ করছে একটু পরে সাবানের গুঁড়া দেবে’ বলে জানালে রাগান্বিত হয়ে চুলায় বসানো ফুটন্ত ভাত মাড়সহ নিয়াসার গায়ে ঢেলে দেন তানজিলা। এতে তার ডান কাঁধের ওপর এবং ঘাড়সহ পিঠের কিছু অংশ ঝলসে যায়।”

তদন্ত কর্মকর্তা আরও বলেন, ‘ব্যথায় কান্নাকাটি করতে থাকলে তানজিলা ভিকটিমকে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে চুপ থাকতে বলে। ভিকটিম ভয়ে কান্না বন্ধ করে। শরীরে প্রচণ্ড ব্যথা হওয়ায় নিয়াসা আসামিকে ডাক্তারের কাছে নেওয়ার জন্য অনুরোধ করে। তানজিলা তা না করে উল্টো মাকে এ বিষয়ে জানালে মেরে ফেলা হবে বলে হুমকি দেয়। পরে ১১ জুন দুপুরে ৯৯৯ এ ফোন পেয়ে নিয়াসাকে উদ্ধার করা হয়।’

মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে তানজিলাকে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন তদন্ত কর্মকর্তা।

তানজিলার পক্ষে তার আইনজীবীরা জামিনের আবেদন করেন। রাষ্ট্রপক্ষ থেকে জামিনের বিরোধীতা করা হয়।

শুনানি শেষে আদালত জামিনের আবেদন নাকচ করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

সিলেটের রুপনগর এলাকার আরিকুল ইসলামের মেয়ে নিয়াসা। নিয়াসাকে উদ্ধারের পর শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন এন্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনিস্টিউটে নেওয়া হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর বিকেলে তাকে ঢামেক হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) রেফার করে। মেয়েটির শরীরের পাঁচ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে।

 

আরও পড়ুন > উত্তরায় গৃহকর্মী নির্যাতন, আটক ১

ঢাকা/মামুন/সনি

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়