ঢাকা     বুধবার   ১৭ আগস্ট ২০২২ ||  ভাদ্র ২ ১৪২৯ ||  ১৮ মহরম ১৪৪৪

‘সিরিয়াল রেপিস্ট’ শামীম ঢাকায় গ্রেপ্তার

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৪:১৭, ১৭ জুন ২০২২   আপডেট: ১৫:০৯, ১৭ জুন ২০২২
‘সিরিয়াল রেপিস্ট’ শামীম ঢাকায় গ্রেপ্তার

শামীম হোসেন। ছবি: র‌্যাব

পিরোজপুরের ভান্ডারিয়ায় স্কুলছাত্রীকে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে ধর্ষণের ঘটনায় ‘সিরিয়াল রেপিস্ট’ মো. শামীম হোসেন মৃধাকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)। বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) রাতে রাজধানীর উত্তরা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

শুক্রবার (১৭ জুন) সকালে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন এসব তথ্য জানান।

কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেন, শামীম পিরোজপুর জেলার ভান্ডারিয়ায় স্কুলপড়ুয়া ছাত্রীকে পরীক্ষা শেষে বাড়ি ফেরার পথে ধারালো অস্ত্রের মুখে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে ফেলে রেখে পালিয়ে যায় এবং ঘটনার পরপরই ঢাকায় আত্মগোপন করে। সে একজন সিরিয়াল রেপিস্টও। ২০১৫ সালে ২৬ জানুয়ারি ভান্ডারিয়া উপজেলার এসএসসি পরীক্ষার্থী এক ছাত্রীকে গভীর রাতে ঘরের দরজা ভেঙে হামলা করে ধর্ষণের চেষ্টা করে। ২০১৭ সালে ১ নভেম্বর একই উপজেলার মাদ্রাসার ছাত্রীকে মাদ্রাসা থেকে বাড়ি ফেরার পথে রামদা দিয়ে হত্যার ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ করে।  ২০২১ সালে ১০ অক্টোবর আরেক মাদ্রাসা ছাত্রীকে যৌনপীড়ন করে। এসব ঘটনায় ভান্ডারিয়া থানায় বিভিন্ন সময়ে মামলা  হয়।  শামীম আরও কয়েকটি ধর্ষণের মতো অপরাধ সংঘঠিত করেছে বলে তথ্য পাওয়া গেছে।

র‌্যাবের সংবাদ সম্মেলন

সাংবাদিকদের প্রশ্নে র‌্যাবের এই কর্মকর্তা আরও জানান, ১১ জুন ভান্ডারিয়া উপজেলার এক স্কুলছাত্রীকে অস্ত্রের মুখে জোরপূর্বক ধর্ষণের ঘটনা ঘটায়।  ঘটনার পর ছাত্রীর মা বাদি হয়ে  থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। ধর্ষককে গ্রেপ্তারের দাবিতে স্কুলশিক্ষক এবং শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন করেন। ঘটনাটি প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ায় গুরুত্বসহকারে প্রচার হলে দেশব্যাপী ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করে। এরপরই র‌্যাব গোয়েন্দা নজরদারি করে। শামীমকে গ্রেপ্তার করে।

র‌্যাব জানায়, শামীম ঢাকার বাবু বাজার ও গাবতলী এলাকায় সিএনজি এবং প্রাইভেটকার চালক হিসেবে কাজ করে।  ১৬ বছর বয়সে সে এলাকায় বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড, মাদক সেবন ও মাদক কেনাবেচার মাধ্যমে অপরাধ জগতে প্রবেশ করে। বিভিন্ন এলাকায় সে নারী নির্যাতন ও ধর্ষণসহ অন্যান্য অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড করে ঢাকা, কিশোরগঞ্জ, বরিশাল ও খুলনা এলাকায় আত্মগোপনে চলে যেত। আত্মগোপনে থাকাকালীন একাধিক ধর্ষণের ঘটনা ঘটায়। তবে সে গ্রেপ্তার এড়াতে এক স্থানে বেশিদিন অবস্থান করত না। এছাড়াও, তার নামে বিভিন্ন থানায় ধর্ষণ, হত্যা চেষ্টা ও মাদকসহ অন্যান্য অপরাধে ১০টিরও বেশি মামলা রয়েছে। শামীম ইতোপূর্বে ধর্ষণ ও অন্যান মামলায় বিভিন্ন মেয়াদে  ৪-৫ বার কারাভোগ করেছে। তার বিরুদ্ধে ৬টি গ্রেপ্তারি পরোয়ানাও রয়েছে।

/মাকসুদ/সাইফ/

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়