ঢাকা     বুধবার   ০৭ ডিসেম্বর ২০২২ ||  অগ্রহায়ণ ২৩ ১৪২৯ ||  ১২ জমাদিউল আউয়াল ১৪১৪

রাজধানীতে ২৯ ছিনতাইকারী গ্রেপ্তার

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:৫২, ৯ সেপ্টেম্বর ২০২২  
রাজধানীতে ২৯ ছিনতাইকারী গ্রেপ্তার

রাজধানীতে ছিনতাই চক্রের ২৯ সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। র‌্যাব জানিয়েছে, এসব ছিনতাইকারী বাস স্ট্যান্ড ও রেল স্টেশন এলাকায় ছদ্মবেশে ঘোরাফেরা করত। পরে ‍সুযোগ বুঝে অর্থ, অলঙ্কারসহ বিভিন্ন জিনিস ছিনতাই করে দ্রুত সটকে পড়ত।

শুক্রবার (৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে র‌্যাব-৩ থেকে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৮ সেপ্টেম্বর) কমলাপুর এলাকায় এক নারীর গলা থেকে সোনার চেইন ছিনতাই করে দৌড়ে পালানোর সময় পিছু ধাওয়া করে আরিফ হোসেন নামের এক ছিনতাইকারীকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। পরে রাজধানীর শাহজাহানপুর, মতিঝিল, মুগদা, পল্টন, হাতিরঝিল এবং তেজগাঁও এলাকায় ভিন্ন ভিন্ন অভিযান চালিয়ে অজ্ঞান পার্টি ও ছিনতাই চক্রের ২৮ সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়। তারা হলো—মো. ইসলাম, মো. বাবু, মো. টিটু, মো. শরিফ, মো. নুরে আলম, মো. মুরাদীল মুস্তাকিম ওরফে মুরাদ, মো. জালাল, হৃদয়, মো. হোসেন ওরফে মোটু, মো. জয়, মো. ইয়াছিন রাব্বি, টিটু, মো. পরান, রাসেল, মো. জীবন সরদার, মো. শুক্কুর, মাসুম খান, মিহির তালুকদার, মো. হোসেন, মো. ফারুক, মো. মেহেদী হাসান রানা, মো. সুজন, মো. জুলহাস, মো. কবির হোসেন, মো. দেওয়ান আলী এবং মো. তৌহিদ হাওলাদার। এ সময় তাদের কাছ থেকে ১৮টি মোবাইল ফোন, ৭টি সুইচ গিয়ার চাকু, ২টি অ্যান্টিকাটার, ৬টি ব্লেড, ১টি কাঁচি, চাকু, ক্ষুর, বিষাক্ত মলমের কৌটা, স্বর্ণের চেইন এবং নগদ টাকা জব্দ করা হয়।

র‌্যাব জানিয়েছে, গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তিরা রাজধানীর বাস স্ট্যান্ড, রেল স্টেশন এলাকায় ঘোরাফেরা করতে থাকে। যাত্রীদের টার্গেট করে কখনও তাদের দেশীয় অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে, কখনও চেতনানাশক ওষুধ মিশিয়ে খাওয়ায়। এভাবে ছিনতাই করে দ্রুত ভিড়ের মধ্যে মিশে যায়। তারা কখনো কখনো ভিড়ের মধ্যে যাত্রীদের চোখে-মুখে বিষাক্ত মলম মেখে দেয় কিংবা মরিচের গুড়া স্প্রে করে। এতে ভুক্তভোগীরা যন্ত্রণায় কাতর হয়ে পড়লে তাদের সর্বস্ব কেড়ে নেয় ছিনতাইকারীরা। তারা রাজধানীর বিভিন্ন অলিগলিতেও ছিনতাই করে থাকে। সুযোগ পাওয়ামাত্রই তারা পথচারী, যানজটে আটকে থাকা রিকশাআরোহী ও অটোরিকশার যাত্রীদের ধারালো অস্ত্র দেখিয়ে সর্বস্ব লুটে নেয়। সন্ধ্যা থেকে ভোর পর্যন্ত তুলনামূলক জনশূন্য রাস্তা, লঞ্চ ঘাট, বাস স্ট্যান্ড, রেল স্টেশন এলাকায় তারা বেপরোয়া হয়ে ওঠে। ছিনতাইয়ে বাধা দিলে আঘাত করতেও দ্বিধা করে না। মালিবাগ রেলগেট, দৈনিক বাংলা মোড়, পীরজঙ্গি মাজার ক্রসিং, কমলাপুর বটতলা, মতিঝিল কালভার্ট রোড, নাসিরের টেক, হাতিরঝিল, শাহবাগ, গুলবাগ, রাজউক ক্রসিং, ইউবিএল ক্রসিং পল্টন মোড়, গোলাপ শাহর মাজার ক্রসিং, হাইকোর্ট ক্রসিং, আব্দুল গণি রোড, মানিকনগর স্টেডিয়ামের সামনে, নন্দীপাড়া ব্রিজ, বাসাবো ক্রসিং এলাকায় সন্ধ্যা হতে ভোর রাত পর্যন্ত ছিনতাইকারীদের তৎপরতা বেশি পরিলক্ষিত হয়।

র‌্যাব-৩ এর সহকারী পুলিশ সুপার (মিডিয়া) ফারজানা হক জানিয়েছেন, গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে পৃথক পৃথক থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। তাদের আইনের আওতায় আনার ফলে পথচারীদের মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে।

মাকসুদ/রফিক

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়