ঢাকা, সোমবার, ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০১ জুন ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

করোনা পরিস্থিতিতে শিশুদের যত্নে করণীয়

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৩-২৮ ১২:১৩:২০ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৩-২৮ ১২:১৩:৪৩ পিএম

মহামারি করনোভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণের মতো কঠিন সময়ে শিশুদের শারীরিক ও মানসিকভাবে সুস্থ রাখা নিয়ে অভিভাবকরা আছেন শঙ্কায়।

কী করবেন আর কী করবেন না এবং কী করা উচিত এসব নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছেন।

কারণ হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকাকালে কিংবা বাইরের পৃথিবীর খবর শুনতে শুনতে শিশুরা এক ধরনের মানসিক চাপ অনুভব করছে। অনেক সময়ে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া দেখাতে শুরু করছে তারা।

এ উপলদ্ধি থেকে অভিভাবকদের জন্য বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) বেশ কিছু গাইড লাইন দিয়েছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে (কোভিড-১৯) করোনাভাইরাস চলাকালীন বাচ্চাদের মানসিক চাপ সহ্য করতে সহায়তা করুন। শিশুরা বিভিন্নভাবে মানসিক চাপের প্রতিক্রিয়া জানাতে পারে। যেমন-কুকড়েঁ থাকা, উদ্বিগ্নতা প্রকাশ, ভয় পাওয়া, রাগান্বিত বা উত্তেজিত হওয়া, ঘরকুনো হওয়া ইত্যাদি।

আপনার সন্তানের এমন প্রতিক্রিয়ার একটি সহায়ক সমাধান হলো তাদের উদ্বেগের কথা শোনা। শিশুদের অধিক ভালোবাসা ও তাদের প্রতি মনোযোগ দেওয়া।

বাচ্চাদের কঠিন সময়ে বড়দের ভালোবাসা এবং মনোযোগ বেশি প্রয়োজন। তাই শিশুদের অতিরিক্ত সময় এবং মনোযোগ দিন। আপনারাবাচ্চাদের কথা শুনুন, দয়া করে কথা বলুন এবং তাদেরকে আশ্বস্ত করুন। যদি সম্ভব হয় শিশুদের সঙ্গে খেলতে এবং খুশি করার চেষ্টা করুন।

নিয়মিত চেষ্টা করুন বাচ্চাদের বাবা-মা এবং পরিবারের নিকটে রাখতে। যতটা সম্ভব শিশুদের প্রতি যত্নশীল হোন। তাদের আলাদা রাখবেন না। যদি বিচ্ছেদ ঘটে (যেমন-হাসপাতালে ভর্তি হওয়া) নিয়মিত যোগাযোগ নিশ্চিত করুন। ফোনের মাধ্যমে কিংবা অন্য কোনো উপায়ে।

যথাসম্ভব নিয়মিত রুটিন এবং সময়সূচী অনসরণ করুন। স্কুল ও শিক্ষার পাশাপাশি নিরাপদে খেলা এবং আরাম দিয়ে নতুন পরিবেশে নতুন তৈরিতে সহায়তা করুন।

কোনো ঘটনা ঘটে গেলে বা রোগে আক্রান্ত হয়ে গেলে কি করবেন?

প্রথমে কী ঘটেছে সে সম্পর্কে জানার চেষ্টার করুন। এরপর কী হয়েছে তা ব্যাখ্যা করুন এবং তাদের বয়স বিবেচনায় নিয়ে বুঝাতে চেষ্টা করুন ঝুঁকি কমাতে কী করা উচিত। সে বিষয়ে পরিষ্কার ধারণা দিন। যদি হাসপাতালে যেতে হয় তাহলে আশ্বস্ত করার চেষ্টা করুন যে কিছু সময়ের জন্য হাসপাতালে যেতে হয়েছিল, যাতে চিকিৎসকরা তাদের আরও ভাল সহায়তা করতে পারে।

মহামারি করোনাভাইরাস বা কোভিড-১৯ নিয়ে জনসচেতনতা বাড়াতে হোয়াটসঅ্যাপে একটি বিশেষ চ্যানেল তৈরি করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।  যেখানে সদস্য হয়ে যে কেউ চ্যাটের মাধ্যমে জেনে নিতে পারবেন প্রয়োজনীয় তথ্য। সেবাটি পেতে আপনার হোয়াটসঅ্যাপে যোগ করে নিন +41 79 893 18 92 -এই নম্বরটি।  এবার ‘hi’ লিখলেই শুরু হয়ে যাবে আলাপচারিতা। বিস্তারিত জানতে লিংকে- https://bit.ly/2vG6wpt ক্লিক করুন।

এর আগে কোভিড-১৯ ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে শিশু এবং স্কুলের রক্ষায় সহায়তা করার জন্য বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বেশকিছু নির্দেশনা দিয়েছিল।  স্কুল বন্ধের ক্ষেত্রে, শিশুদের পড়াশোনার এবং সুস্থতার উপর সম্ভাব্য নেতিবাচক প্রভাব কমানোর সুপারিশ দেওয়া হয়েছিল ওই নির্দেশিকায়।

যেসব দেশে কোভিড-১৯ সংক্রমণ নিশ্চিত হয়েছে, সেসব দেশ ছাড়াও অন্যান্য সকল ক্ষেত্রেই এই নির্দেশিকা প্রাসঙ্গিক হবে বলেও জানিয়েছিল। 

সংস্থাটির মতে শিক্ষাই পারে স্কুলে, নিজেদের বাড়িতে এবং তাদের কমিউনিটিতে ভাইরাসটির বিস্তার রোধ ও নিয়ন্ত্রণ করতে। শিক্ষার্থীরা অন্যদের সাথে সাথে রোগটির প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ নিয়ে কথা বলার মাধ্যমে এ কাজটি করতে পারে।

 

ঢাকা/এম এ রহমান/জেনিস