ঢাকা     সোমবার   ১০ আগস্ট ২০২০ ||  শ্রাবণ ২৬ ১৪২৭ ||  ২০ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

যে কারণে সাবেক সঙ্গীর সঙ্গে কথা বলা উচিত নয়

|| রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৬:৪১, ৫ জুলাই ২০২০  
যে কারণে সাবেক সঙ্গীর সঙ্গে কথা বলা উচিত নয়

মাঝে মাঝে আমরা আশা করে বসে থাকি যে, হয়তো সাবেকের সঙ্গে পুরোনো সম্পর্কটা আবার জোড়া লাগতে পারে। কিন্তু তা আসলে হয় না বরং পরিস্থিতি একই থেকে যায়। সাবেককে আর নতুন করে কোনোদিনও পাওয়া হয় না। সম্পর্কগুলো হয়তো এমনই। ভালোবাসার মানুষ চলে যাওয়ার বেদনাটা থেকেই যায়।

একবার ব্রেকআপ হয়ে গেলে সেই সম্পর্ক আবার ঠিকঠাক হয়ে যাওয়া বেশ মুশকিল। আপনি ব্রেকআপ করে থাকেন অথবা কেউ আপনার সঙ্গে ব্রেকআপ করুক, ব্যাপারগুলো একই প্রভাব ফেলে। অনেক সময় আপনি না করে আপনার ভালোবাসার মানুষ আপনার মনে আঘাত দিলে সেটা আরো বেশি কষ্টদায়ক। তারপরও মনকে মিথ্যা বুঝিয়ে এগিয়ে যেতে হয় জীবন সংগ্রামের পথে; তাছাড়া ব্যাপারগুলো বেশি ঘাটালে সেগুলো বিষাক্ত হয়ে ওঠে। আপনার যদি এতই কষ্ট বেড়ে গিয়ে থাকে তাহলে ব্রেকআপ হয়েছে এমন কারো সঙ্গে মনের কথা শেয়ার করুন। এতে করে আপনার অনুভূতিগুলো বুঝতে সুবিধা হবে। কথায়ই তো আছে, কষ্ট ভাগাভাগি করে নিলে কমে যায়।

আমাদের অবচেতন মনে অনেকসময় আমরা ভাবি, হয়তো ধৈর্য ধরে থাকলে সম্পর্কে নতুন এক আমেজ আসলেও আসতে পারে। বন্ধু হয়ে থাকা বা একে অন্যের সঙ্গে যোগাযোগ রাখলে যদি আবার সে মুখ তুলে চায়। কিন্তু প্রায়শই আমাদের সেই আশার গুড়ে বালি পড়ে। প্রিয়তমা বা প্রিয়তম আর ফিরে আসে না, তারা আর ভালোবাসে না। আপনি যতই চেষ্টা করুন না কেন পরিস্থিতির কোনো পরিবর্তন হয় না, বরং দুজনের মধ্যে আরো রেশারেশি বেড়ে যায়। সুতরাং উভয় পক্ষের মঙ্গলের জন্য বিষাদময় সময়টুকু নিজ নিজ অবস্থানে থেকে পার করে দেওয়া ভালো। কেননা জীবনে এগিয়ে যাওয়ার মূল্যের কাছে একটি বিচ্ছেদ কিছুই নয়।

ব্রেকআপের পর হয়তো এমন ধারণাগুলোই আমাদের মনে ঘুরপাক খায়-

* তার সঙ্গে যোগাযোগ থাকলে দৈনন্দিন জীবন আরো হয়তো সহজ হতো

আপনি এবং আপনার সাবেক যত একে অপরের সঙ্গে যোগাযোগ রাখবেন আপনাদের সামনে এগিয়ে যাওয়ার ব্যাপারটা তত বিলম্বিত হবে। তাছাড়া আপনারা দুজনই ভবিষ্যতে ভালো কিছু অর্জনের সম্ভাবনা হারিয়ে ফেলবেন; কেননা আপনারা তখনও একে অপরের মধ্যেই আছেন। এ কারণে আপনাদের দুজনকেই পেছনের ঘটনা পেছনে ফেলে জীবনের পথে এগিয়ে যেতে হবে এবং নতুন জীবন শুরু করতে হবে।

* তার সঙ্গে বন্ধুত্ব রাখা যেতে পারে

আপনি মনে করতে পারেন আপনার নতুন করে বন্ধু হওয়ার পরিকল্পনা হয়তো কোনো না কোনোভাবে কাজ করছে। এমনও হতে পারে আপনার সাবেক আপনাকে তার নতুন সম্পর্কের কথা জানাল। তখন একে অপরকে নানান প্রশ্ন করা, দোষ দেওয়া এবং অভিযোগ আনার মতো ব্যাপার ঘটা শুরু হতে পারে। এর ফলে আপনি পরিস্থিতি আরো বেগতিক করে ফেলবেন এবং তার সঙ্গে বন্ধুত্ব করার ব্যাপারটাও নষ্ট হয়ে যাবে। সুতরাং কথা বললেই যে ইতিবাচক কিছু ঘটবে তা কিন্তু নয়।

* নতুন কিছু ঘটা থেকে নিজেকে হয়তো সরিয়ে নিচ্ছি

আপনার সাবেকের সঙ্গে আবেগের বেড়াজালে জড়িয়ে যাওয়ার মতো বিড়ম্বনা আর নেই। কেননা এটা এমন এক ব্যাপার যা চলতে থাকে তো থাকেই। আপনি আপনার সাবেকের সঙ্গে অতীতকে আকড়ে ধরে পড়ে থাকলে ভবিষ্যতের উজ্জ্বল সম্ভাবনা থেকে বঞ্চিত হয়ে পড়বেন। সুতরাং আপনার সাবেক থেকে দূরে থাকলেই বরং আপনার সঙ্গে নিত্যনতুন ঘটনা ঘটবে, যা আপনার ভবিষ্যৎ জীবনকে আরো সুন্দর ও স্বাভাবিক করে তুলবে।

 

ঢাকা/ফিরোজ

রাইজিংবিডি.কম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়