Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     শুক্রবার   ১৪ মে ২০২১ ||  চৈত্র ৩১ ১৪২৮ ||  ০১ শাওয়াল ১৪৪২

গরমে ত্বকের সৌন্দর্য ধরে রাখবেন যেভাবে

লাইফস্টাইল ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৪:১১, ৪ মে ২০২১   আপডেট: ১৪:১১, ৪ মে ২০২১
গরমে ত্বকের সৌন্দর্য ধরে রাখবেন যেভাবে

গরমে সৌন্দর্য ধরে রাখা বেশ কঠিন একটা কাজ। রোদের প্রচণ্ড তাপ, ধুলোবালি এবং বিরূপ আবহাওয়ার কারণে এই সময়ে ত্বকের ক্ষতি হয় বেশি। রোদের অতিরিক্ত উত্তাপ আপনার ত্বকে কালো ছোপ ছোপ দাগ তৈরি করতে পারে, ত্বকের চামড়া ঝুলে যেতে পারে, ত্বকের রঙ নষ্ট হতে পারে এবং প্রখর রোদের কারণে চামড়া শক্ত হয়ে উঠতে পারে।

এ প্রতিবেদনে বেশ কিছু পরামর্শ দেয়া হলো, যার মাধ্যমে আপনি গরমের অতিরিক্ত উত্তাপের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে নিজের সৌন্দর্য ধরে রাখতে পারবেন এবং প্রাণবন্ত ও উজ্জ্বল ত্বকের অধিকারী হতে পারবেন। চলুন জেনে নেওয়া যাক, ত্বকের যত্নে করণীয় সম্পর্কে।

পর্যাপ্ত পানি পান: গরমের দিনে ত্বকের সুস্থতার জন্য পর্যাপ্ত পানি পান করা জরুরি। গরমের সময়ে একটি সমস্যা হচ্ছে, প্রচুর ঘাম হওয়ার ফলে শরীর থেকে পানি বেরিয়ে যায়। আপনার দেহের আর্দ্রতা ধরে রাখার জন্য এবং পানিশূন্যতার ফলে যাতে দুর্বল হয়ে না পড়েন সেজন্য পর্যাপ্ত পানি পান করুন। প্রতিদিন অন্তত ৮-১০ গ্লাস পানি পান করুন এবং প্রচুর পরিমাণে ফলের রস ও পানিসমৃদ্ধ খাবার গ্রহণ করুন।

সানস্ক্রিন ব্যবহার: ত্বকের সুরক্ষার জন্য রোদে বের হওয়ার আগে ত্বকে সানস্ক্রিন লাগিয়ে বের হোন। কথায় আছে, প্রতিকারের চেয়ে প্রতিরোধ ভালো। সুতরাং ত্বকের ক্ষতি হওয়ার আগেই সানস্ক্রিনের মাধ্যমে তা সুরক্ষিত রাখুন। সূর্যের ক্ষতিকারক রশ্মির ফলে ত্বকে শুষ্কতা, কালো ছটা এবং দাগ হয়ে যেতে পারে। এসপিএফ-৩০ উপাদানযুক্ত সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন এবং কয়েক ঘণ্টা পরপর ব্যবহার করতে থাকুন।

* তৈলাক্ত প্রসাধনী ব্যবহার না করা: আপনার ত্বকের ছিদ্র বন্ধ করে ফেলে এমন কোনো প্রসাধনী ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন। কেননা ত্বকের ছিদ্র বন্ধ হয়ে গেলে ত্বকের প্রদাহ, ইনফেকশন এবং ব্রণ হতে পারে। দৈনন্দিন ব্যবহারের জন্য তেলবিহীন প্রসাধনী ব্যবহার করুন। কেননা ত্বকের ছিদ্রবন্ধকারী প্রসাধনীর ফলে আপনার ত্বকে মৃতকোষ এবং ব্যাকটেরিয়ার পরিমাণ বেড়ে যাবে। তাছাড়া গরমের দিনে যখন আপনি প্রতিনিয়ত প্রচুর ঘামছেন, আপনি অবশ্যই চাইবেন না যে আপনার ত্বকের ছিদ্র বন্ধ হয়ে গিয়ে তা আরো বেগতিক অবস্থা সৃষ্টি করুক।

* স্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস: বিভিন্ন রকমের ফল, শাকসবজি, বাদাম ইত্যাদি খাবারের সংমিশ্রণে তৈরি একটি স্বাস্থ্যসম্মত খাদ্যাভ্যাস গড়ে তুলুন। আপনার শরীরের পাশাপাশি ত্বকের চাহিদা অনুযায়ী পর্যাপ্ত পরিমাণে পুষ্টিকর খাবার নিয়মিত গ্রহণ করুন। বিশেষ করে যথেষ্ট পরিমাণে ক্যালসিয়াম আছে এমন খাবার, যেমন বাদাম খেতে পারেন যা আপনার ত্বকে পুষ্টি যোগাবে।

* ত্বকের মৃতকোষ অপসারণ: ত্বকে কোনো ক্রিম বা লোশন সঠিকভাবে কাজ করার জন্য ত্বক পরিষ্কার থাকা প্রয়োজন। সেজন্য ত্বকের মৃতকোষগুলো অপসারণ করা অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। তবে খেয়াল রাখবেন, ত্বক থেকে মৃতকোষ অপসারণের ব্যাপারটা যেন প্রতিদিন না ঘটে। ত্বকে অতিরিক্ত ঘষামাজার ফলে ত্বক লাল হয়ে উঠতে পারে, ত্বকে ফুসকুড়ি হতে পারে এবং ত্বক ক্ষয়প্রাপ্ত হতে পারে। সপ্তাহে অন্তত ২-৩ দিন স্ক্রাবিংয়ের মাধ্যমে ত্বক পরিষ্কার করুন। সূর্যের আলোতে বের হওয়ার আগে কখনো ত্বক স্ক্রাবিং করবেন না এবং পারলে এই কাজটি সন্ধ্যায় করুন।

* কম মেকআপ: এই সময়ে যতটা সম্ভব কম মেকআপ ব্যবহার করুন। গরমে ঘাম বেশি হয়। তার ওপরে মেকআপ করলে ত্বকে চাপ পড়ে যা অত্যন্ত ক্ষতিকারক। গরমে মেকআপ সামগ্রীও বুঝে বাছাই করুন।

* ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখা: ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখা ত্বকের সুস্থতার জন্য অতীব প্রয়োজনীয় একটি বিষয়। আপনার ত্বকের চাহিদা অনুযায়ী আর্দ্রতা প্রদান করুন। তেলবিহীন এবং ভিটামিন-ই সমৃদ্ধ কোনো ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন। আপনার ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখতে প্রতিদিন তা আপনার ত্বকে ভালমতো লাগান।

* অ্যালোভেরা ব্যবহার: ত্বকের বিভিন্ন ধরনের সমস্যার সমাধান রয়েছে অ্যালোভেরার মধ্যে। বিশেষত গরমের দিনে সূর্যের দাবদাহ থেকে ত্বকের সুরক্ষা প্রদানের পাশাপাশি ত্বকে প্রশান্তি যোগানোর জন্য অ্যালোভেরা খুবই উপযোগী। অ্যালোভেরা ত্বকের প্রদাহজনিত সমস্যা দূর করে এবং ত্বককে আর্দ্রতা প্রদান করে। তাছাড়া ত্বকে প্রশান্তি যোগানোর পাশাপাশি ভেতর থেকে পুষ্টি যোগায়। অ্যালোভেরায় প্রচুর অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট থাকে যা ত্বকের ক্ষয়রোধ করে। গাছ থেকে অ্যালোভেরার তাজা পাতা নিয়ে পাতায় থাকা জেলি সরাসরি ত্বকে ব্যবহার করুন অথবা বাজারে অ্যালোভেরা সমৃদ্ধ প্রসাধনী সামগ্রী ব্যবহার করুন।

* ত্বক শীতল রাখার মাস্ক: ত্বক ঠান্ডা রাখতে ব্যবহার করতে পারেন শসার মাস্ক। এটি ত্বকে এনে দেবে। শসা ফ্রিজে রেখে ঠান্ডা করে নিন। এরপর থেঁতলে রস বের করুন। তুলায় করে এই রস নিয়ে মুখে মাখুন। পুরো শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলবেন। এতে ত্বক শীতল তো থাকবেই, ত্বকের আর্দ্রতাও বজায় থাকবে।

জীবনযাপনে পরিবর্তন: গরমকালে জীবনযাপনে পরিবর্তন নিয়ে আসাটাও জরুরি। যেমন: বাইরে যাওয়ার সময় ছাতা কিংবা ক্যাপ, রোদ চশমা ব্যবহার করুন। এতে রোদের ক্ষতি থেকে রেহাই মিলবে। বাইরে যখনই সুযোগ পাবেন পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। ত্বকে যেন বেশিক্ষণ ধুলাবালি আটকে না থাকে। দিনে অন্তত তিনবার হাত-মুখ ধুয়ে নিবেন। রোদের তাপে ত্বক কালো হয়ে যেতে পারে, যতটা সম্ভব রোদ এড়িয়ে চলুন। এ সময় বেশি রাত জেগে থাকা ঠিক না, প্রতিদিন নির্দিষ্ট সময়ে ঘুমাতে হবে। রাতে ঘুম ভালো হলে ত্বক ভালো থাকবে।

একটু সময় বের করে করতে পারেন যোগব্যায়াম। এতে ত্বক ও শরীর উভই ভালো থাকবে। ঘন ঘন চা পান পরিহার করতে হবে, এতে ত্বক ভালো থাকবে। প্রতিদিনই একটু সময় করে ত্বকের যত্ন নিতে হবে। গরমের দিনে ত্বক নিয়ে বাড়তি সচেতনতাই আপনাকে দিতে পারে ত্বকসংক্রান্ত যাবতীয় ঝামেলা থেকে মুক্তি।

ঢাকা/ফিরোজ

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়