ঢাকা     বুধবার   ২৫ মে ২০২২ ||  জ্যৈষ্ঠ ১১ ১৪২৯ ||  ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩

গরমকালে পায়ের গোড়ালি ফেটে চৌচির?

লাইফস্টাইল ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:৩৭, ১১ মে ২০২২   আপডেট: ১৬:৪৪, ১১ মে ২০২২
গরমকালে পায়ের গোড়ালি ফেটে চৌচির?

শীতে আবহাওয়া শুষ্ক হয়ে যায়, তাই সেসময়ে পায়ের গোড়ালি ফাটার সমস্যায় ভোগা স্বাভাবিক। কিন্তু অনেকে গরমকালেও পা ফাটার সমস্যার পরেন। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতে, এর অন্যতম কারণ শরীরে পর্যাপ্ত পানির অভাব। 

গরমের সময় বেশি ঘাম হওয়ায় শরীর থেকে অনেকটা পানি বেরিয়ে যায়। তাছাড়া, গ্রীষ্মকালে ডিহাইড্রেশনের সমস্যাও খুব বেশি হয়। গরমকালে তাপমাত্রা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়ে দূষণও। ধুলো-ময়লা, দূষণের প্রভাবে গোড়ালি ফাটার সমস্যা বেশি করে দেখা যায়।

তবে কিছু ঘরোয়া পদ্ধতি প্রয়োগে পা ফাটার সমস্যা কমতে পারে। জেনে নিন কী করবেন-

* স্ক্রাব: পায়ের গোড়ালি থেকে ময়লা পরিষ্কার করা প্রয়োজন। এ জন্য স্ক্রাবার দিয়ে গোড়ালি ঘষে ময়লা পরিষ্কার করুন। গোড়ালিতে লোশন ব্যবহার করুন, যা গোড়ালিকে ময়েশ্চারাইজ করে।

* মধু: মধু হলো প্রাকৃতিক অ্যান্টিসেপটিক, যা ফাটা পা নিরাময়ে সাহায্য করে এবং ত্বককে পুনরুজ্জীবিত করতে সাহায্য করে। হাফ গামলা গরম পানিতে এক কাপ মধু মিশিয়ে তাতে পা ডুবিয়ে রাখুন ১৫-২০ মিনিট। এরপর আলতো করে স্ক্রাব করুন। পায়ের ত্বক কোমল হয়ে উঠবে।

* পেট্রোলিয়াম জেলি: ২০ মিনিটের জন্য হালকা গরম পানিতে পা ভিজিয়ে রাখুন, তারপরে স্ক্রাবার দিয়ে গোড়ালি পরিষ্কার করুন। রাতে ঘুমানোর সময় পায়ের গোড়ালিতে পেট্রোলিয়াম জেলি লাগান। এতে গোড়ালির ফাটল কমে যাবে।

* চালের গুঁড়া: চালের গুঁড়া ত্বককে এক্সফোলিয়েট করে, পাশাপাশি ত্বককে মসৃণ ও নরম করে তোলে। দুই থেকে তিন টেবিল চামচ চালের গুঁড়ার সঙ্গে কয়েক ফোঁটা মধু এবং অ্যাপেল সিডার ভিনেগার মিশিয়ে ঘন পেস্ট তৈরি করুন। যদি আপনার গোড়ালি খুবই শুষ্ক এবং ফাটল থাকে, তাহলে এই মিশ্রণে এক চা-চামচ অলিভ অয়েল বা আমন্ড অয়েলও মেশাতে পারেন। ১০ মিনিট গরম পানিতে পা ভিজিয়ে এই পেস্ট দিয়ে পায়ে আলতো করে স্ক্রাব করুন। এতে ত্বকের মৃত কোষ দূর হবে।

* অ্যালোভেরা: ত্বকের যত্নে অ্যালোভেরা জেল ‍উপকারী। রাতে ঘুমানোর আগে পা ভালো করে ধুয়ে নিন। এরপর অ্যালোভেরা জেল লাগান। এটি দ্রুত ফাটল পূরণ করতে সাহায্য করবে।

* পর্যাপ্ত পানি পান: ত্বক শুষ্ক হয়ে গেলেই পা ফাটার সমস্যা দেখা যায়। তাই পর্যাপ্ত পানি পান করুন। পাশাপাশি জিঙ্ক, ভিটামিন ই, ভিটামিন সি, ওমেগা-৩ এবং ভিটামিন বি৩ সমৃদ্ধ খাবার খান। খাদ্যতালিকায় বাদাম ও বীজ ব্যবহার করুন। এটি শরীরের শুষ্কতা কমাতে সাহায্য করে এবং প্রয়োজনীয় পুষ্টি সরবরাহ করে।

* পা পরিষ্কার রাখুন: ধুলাবালি পায়ের বড় শত্রু। তাই বাইরে থেকে ফেরার পর পা ধুতে দেরি করবেন না। পায়ে ক্ষারযুক্ত সাবান ব্যবহার থেকেও বিরত থাকুন। পা ভেজা থাকা অবস্থায় পায়ে ক্রিম বা ময়েশ্চারাইজার লাগান। দিনের বেলা পেট্রোলিয়াম জেলি ব্যবহার করবেন না। কারণ এতে ধুলাবালি আটকানোর আশঙ্কা বেশি।

তথ্যসূত্র: বোল্ডস্কাই

/ফিরোজ/

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়