ঢাকা     মঙ্গলবার   ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ ||  আশ্বিন ১২ ১৪২৯ ||  ০১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

খরচ কমানোর বিজ্ঞানসম্মত কৌশল

লাইফস্টাইল ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:৫৩, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২   আপডেট: ১৭:৫৬, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২
খরচ কমানোর বিজ্ঞানসম্মত কৌশল

সময়ের সঙ্গে সঙ্গে খরচ যে হারে বাড়ছে, সে হারে কিন্তু সবার আয় বাড়ছে না। তারপরও মার্কেটে গেলে অনেকে একটু বেশিই খরচ করে ফেলেন, যার সবটাই প্রয়োজনীয় নয়। এ প্রতিবেদনে বিজ্ঞানসম্মত কিছু কৌশল তুলে ধরা হলো, যা বাজে খরচের পরিমাণ কমিয়ে আনতে সহায়তা করবে।

* নতুন টাকার নোট ব্যবহার করুন: ২০১২ সালে কনজ্যুমার রিসার্চ জার্নালে প্রকাশিত এক গবেষণায় বলা হয়েছে, বেশিরভাগ মানুষ যেকোনো জিনিস কেনার ক্ষেত্রে পুরোনো এবং নোংরা টাকার নোটগুলো খরচ করে থাকেন, কেননা তারা নতুন নোটের তাজা ভাবটা হারাতে চান না। গবেষণায় অংশগ্রহণকারীগণ নতুন নোটের তুলনায় পুরোনো নোট খরচে বেশি আগ্রহী ছিলেন। সুতরাং, শপিংয়ে গেলে নতুন নোট খরচ করার চেষ্টা করুন। এতে আপনার খরচের আগ্রহ কমে যাবে।

* কেনাকাটার আগে লিস্ট করুন: যুক্তরাষ্ট্রের মনোবিজ্ঞানী এপ্রিল লেন বেনসনের মতে, লিস্ট না করে শপিং মল কিংবা বাজারে গেলে এমন অনেক জিনিস কেনা হয়ে যায়, যেগুলো আপনার হয়তো এই মুহূর্তে দরকার নেই। লিস্ট ধরে ধরে কেবল প্রয়োজনীয় জিনিসগুলোই কিনুন পরিমাণ মতো। ফালতু খরচ কমে যাবে অনেকখানি।

* বেশি দোকানে ঘোরাঘুরি করবেন না: ফোর্বস ম্যাগাজিনের এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, কেনাকাটার সময় আপনি যত দোকান ঘুরবেন, আপনার কেনাকাটার পরিমাণ তত বাড়বে। আপনি হয়তো নিজেকে বোঝাবেন যে, আপনি বুঝে-শুনে যাচাইয়ের মাধ্যমে কোনো জিনিস কেনেন। কিন্তু বেশি সময় এবং শ্রম ব্যয় করার ফলে আপনি অবচেতন মনে সেটার পেছনে নিজে থেকে কিছু যুক্তি দাঁড় করানোর চেষ্টা করবেন, ফলে আপনার কেনাকাটার পরিমাণ এমনিতেই বেড়ে যাবে।

* বেশি দামাদামি করে কেনাকাটা এড়িয়ে চলুন: কেনাকাটার সময় দামাদামি না করাটা আপনার কাছে স্ববিরোধী বলে মনে হতে পারে। কিন্তু বেশি লাভ করতে গিয়ে অনেক সময় আপনি ঠকেও যেতে পারেন। যুক্তরাষ্ট্রের বাজার বিশেষজ্ঞ  ড. ইয়ারো বলেন, আপনার পরিবার বা বন্ধুদের জন্য কেনাকাটা করার পর এটা খুবই স্বাভাবিক যে, আপনার নিজের জন্যও কিছু কিনতে ইচ্ছা করবে। কিন্তু এক্ষেত্রে আপনি দামাদামি করে যে টাকাটা বাঁচিয়েছেন, নিজের জন্য কিছু কিনতে গিয়ে স্বভাবতই আপনি তার চেয়ে অনেক বেশি খরচ করে ফেলবেন।

* বিক্রেতার সঙ্গে অতিরিক্ত কথা বলা থেকে বিরত থাকুন: ফোর্বস ম্যাগাজিনের এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, আপনি কেনাকাটা করতে গিয়ে বিক্রেতাদের সঙ্গে যত কথা বলবেন, আপনার কেনাকাটার আগ্রহ তত বাড়বে। বিষয়টা অনেকটা এমন, যে আপনাকে সাহায্য করল তার মনে আপনি কষ্ট দিতে চান না। ফলস্বরূপ আপনার খরচ বেড়ে যাবে।

* কেনাকাটা থেকে সরে যাওয়ার চেষ্টা করুন: ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, কোনো জিনিস কেনার তাগিদ, আপনার মস্তিষ্কের সুখদানকারী অংশকে উত্তেজিত করে তোলে। ফলে অনিচ্ছা সত্ত্বেও আপনি বিভিন্ন অপ্রয়োজনীয় জিনিস কেনা শুরু করেন। এ বিষয়ে গবেষক টারা পার্কার পোপ বলেন, ‘কোনো জিনিস দেখলে হুট করে সিদ্ধান্ত না নিয়ে প্রয়োজনে পরেরদিন আবার আসুন। এর ফলে আপনি সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন এবং বাজে খরচের হাত থেকে রেহাই পাবেন।’

* ক্রেডিট কার্ড বাড়িতে রাখুন: গবেষণায় দেখা গেছে, মানুষজন নগদ অর্থের তুলনায় ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে কেনাকাটা করতে বেশি পছন্দ করেন। কেননা ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে যতই খরচ হোক সেটা আপাতদৃষ্টিতে চোখে পড়ে না যেমনটা নগদ অর্থ ব্যয়ের ক্ষেত্রে হয়ে থাকে। এজন্য সবসময় ক্রেডিটকার্ড সঙ্গে নিয়ে ঘুরলে আপনার বাজে খরচের পরিমাণ বেড়ে যাবে।

তথ্যসূত্র: রিডার্স ডাইজেস্ট

/ফিরোজ/

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়