ঢাকা     সোমবার   ০৫ ডিসেম্বর ২০২২ ||  অগ্রহায়ণ ২১ ১৪২৯ ||  ০৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪১৪

দাম্পত্য সঙ্গী পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়ার বড় একটি কারণ

লাইফস্টাইল ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২২:৫৬, ১৩ নভেম্বর ২০২২   আপডেট: ২৩:০৭, ১৩ নভেম্বর ২০২২
দাম্পত্য সঙ্গী পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়ার বড় একটি কারণ

দাম্পত্যে সম্পর্কে যারা প্রতারিত হয়, সম্ভবত তারা বলবে যে, আগে থেকে তা বুঝতে পারেননি। কিন্তু সম্পর্ক বিষয়ক এক বিশেষজ্ঞের মতে, একটি বিষয় রয়েছে যার মাধ্যমে আগে থেকেই অনুমান করা যায় যে, আপনার সঙ্গী অবিশ্বস্ত হতে পারে।

সম্পর্ক বিশেষজ্ঞ ইন্ডিয়া কাংয়ের মতে, কোনো নারী বা পুরুষ তার সঙ্গীর চেয়ে বেশি অর্থ উপার্জন করলে এবং পর্যাপ্ত সম্মান পাচ্ছে না মনে করলে, সম্ভাবনা থাকে অবিশ্বস্ত হয়ে যাওয়ার বা প্রতারণা করার।

কাং ব্যাখ্যা করেছেন যে, একজন সঙ্গী যদি অন্য জনের চেয়ে বাড়িতে বেশি টাকা উপার্জন করে নিয়ে আসেন কিন্তু তার প্রতি যথাযথ সম্মান প্রদর্শন না করা হয় তখন এটা বিবেচনা করা যেতে পারে যে, তারা তাদের ভালোবাসা অন্যত্র বিলিয়ে দিচ্ছেন।

ফিমেল-এর সঙ্গে কথা বলার সময় তিনি এ বিষয়ে একটি ব্যাখ্যাও দেন। তিনি বলেন, ‘একজন সঙ্গী অন্য জনের চেয়ে বেশি অর্থ উপার্জন করছেন, এর মানে এই নয় যে সে তার সঙ্গীর সঙ্গে প্রতারণা করবেন-ই। তবে এক্ষেত্রে সম্মান ও কৃতজ্ঞতা প্রদর্শন করতে হবে, করতে হবে প্রশংসা। তাহলেই কেবল প্রতারণার ঝুঁকি এড়ানো যাবে।’

কাং এটাও উল্লেখ করেন যে, একজন উচ্চ পদধারী পুরুষকে সম্মান প্রদর্শন করাটা একজন মহিলার জন্য বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ।

তিনি বলেন, ‘পুরুষদের কাছে সম্মানটা অক্সিজেনের মতো, পুরুষরা সব সময় সম্মান আকাঙ্ক্ষা করে। আপনি যদি তাকে সম্মান করেন, তাহলে সে সবসময় আপনাকেই পেতে চাইবে।’

‘পুরুষরা জানে যে, তাদের একটা দায়িত্ব আছে। আর তা হলো তার সঙ্গিনীকে রক্ষা এবং সমর্থন করা। এক্ষেত্রে মহিলাদের দায়িত্ব হলো অত্যন্ত শৃঙ্খলার সঙ্গে তার সেই সমর্থন গ্রহণ করা। এবং তার প্রচেষ্টার জন্য কৃতজ্ঞতা দেখানো।’

‘উদাহরণস্বরূপ, যদি কোনো পুরুষ বুঝতে পারে যে, সে তার সঙ্গিনীকে যা দিচ্ছে তা তার জন্য যথেষ্ট নয় তখন তিনি হীনমন্যতায় ভোগেন। তখন যে তাকে মূল্যবান মনে করে তার দিকে আগ্রহী হয়।’

‘অনুরূপভাবে যদি কোনো মহিলা সব সময় বিরক্তি প্রকাশ করেন, অন্য পুরুষের সঙ্গে তুলনা করেন এবং তাকে সব সময় সমালোচনা করেন তাহলেও পুরুষটি অন্যত্র ঝুঁকে পড়তে শুরু করেন।’

কাং তার তত্ত্বকে একটি কর্মক্ষেত্রে দৃশ্যকল্পের সঙ্গে তুলনা করেছেন।

‘আপনি যদি কাজে এসেই সবকিছু সম্পর্কে অভিযোগ করতে থাকেন তাহলে কোনো সন্দেহ নেই যে, অফিস শিগগির আপনাকে অব্যাহতি পত্র ধরিয়ে দিয়ে অন্য লোক খুঁজবেন।’

‘উদাহরণস্বরূপ, যদি আপনার কোম্পানি আর্থিকভাবে এবং অফিসের দিক দিয়ে সমৃদ্ধ হয়, আপনাকে ভালো বোনাস দেয়, বিশেষ দিবসে জাঁকজমক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে, কিন্তু তারপরও আপনি সব সময় মুখ গোমড়া করে থাকেন এবং ব্যবস্থাপনা সম্পর্কে অভিযোগ করতে থাকেন তাহলে কোনো এক সময় তারা আপনাকে বের হওয়ার দরজা দেখিয়েই দিবে।’

তাই সম্পর্কের ক্ষেত্রে সন্তুষ্ট থাকা ও কৃতজ্ঞতা দেখানো অত্যন্ত জরুরি।

তথ্যসূত্র: ডেইলি মেইল

/ফিরোজ/

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়