ঢাকা     সোমবার   ০৫ ডিসেম্বর ২০২২ ||  অগ্রহায়ণ ২১ ১৪২৯ ||  ০৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪১৪

শীতের সকালে করলার রস কেন খাবেন?

লাইফস্টাইল ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২২:০৪, ২০ নভেম্বর ২০২২  
শীতের সকালে করলার রস কেন খাবেন?

শীতকাল আসি আসি করছে। হালকা ঠান্ডা আবহাওয়া প্রতিদিন সে কথাই যেন জানান দিচ্ছে। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতে, শীতকালে হাড় হিম করা ঠান্ডা, মৌসুমী সংক্রমণ এবং অ্যালার্জির বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য শরীরের ভালো যত্ন নেওয়া জরুরি। এটি বছরের এমন একটা সময় যখন শরীরের যথেষ্ট শক্তি এবং উষ্ণতা প্রয়োজন হয়। অর্থাৎ সুস্থ থাকতে বিশেষভাবে যত্ন নিতে হয় শরীরের।

টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শীতের সকালে খাবারের তালিকায় অবশ্যই করলার রস রাখা উচিত।

কেন খাবেন করলার রস

করলা মূলত সবজি হিসেবে খাওয়া হয়। তেঁতো স্বাদের কারণে অনেকের কাছে এটি অবশ্য অপছন্দীয় সবজি। তবে স্বাস্থ্য ও ফিটনেস সচেতনদের মানুষের কাছে করলা বেশ লোভনীয়। করলায় আছে নানা ধরনের উপাদান, যা সাহায্য করে শরীর সুস্থ রাখতে। কাঁচা করলার রস করে খেলে বিভিন্ন উপাদান সরাসরি যায় শরীরে। করলার রস পানের অসংখ্য উপকারিতা রয়েছে।

* রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখে: করলার রস প্রাকৃতিকভাবে শরীরে ইনসুলিনের মাত্রার ভারসাম্য বজায় রাখতে এবং রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করতে পারে করে। কারণ করলার রসে এমন উপাদান রয়েছে যা ইনসুলিনের মতো কাজ করতে পারে। ডায়াবেটিস রোগীরা রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণের রাখতে করলার রস খেতে পারেন।

* রক্তের মান উন্নত করে: খাবারের তালিকায় করলার রস যোগ রাখলে তা শরীরের রক্ত বিশুদ্ধ ও ডিটক্সিফাই করতে সাহায্য করে। সকালে খালি পেটে এ রস পান করলে শরীর থেকে বিষাক্ত পদার্থ বের করে দিতে সাহায্য করে, আয়রনের মাত্রা উন্নত করে এবং রক্তকে বিশুদ্ধ করতে সাহায্য করে। যা সার্বিক স্বাস্থ্যের পাশাপাশি ত্বকের জন্যও ভালো।

* পরিপাকতন্ত্র পরিষ্কার রাখে: শীতকাল মানেই নানারকম খাবারের সমাহার। এ কারণে হজমশুক্তি বাড়ানো এবং পরিপাকতন্ত্র পরিষ্কার রাখাটা গুরুত্বপূর্ণ। করলার রস পান করা এক্ষেত্রে দুর্দান্ত উপকারী কারণ এটি লিভার ক্লিনজারের মতো কাজ করে। এ রস পান করলে লিভারের এনজাইম বৃদ্ধি পায়, যা ডিটক্সিফাই করতে সাহায্য করে এবং ধীরে ধীরে লিভারে থাকা বিষাক্ত পদার্থ দূর করতে সাহায্য করে।

* শক্তি বাড়ায়: করলার রস শক্তিবর্ধক হিসেবে কাজ করে। স্ট্যামিনা বাড়ানোর পাশাপাশি ভালো ঘুম হতেও সহায়তা করে।

* গলার প্রদাহ দূর করে: পানির সঙ্গে মধু ও করলার রস মিশিয়ে খেলে অ্যাজমা, ব্রঙ্কাইটিস, শ্বাসরোগ ও গলার প্রদাহে উপকার পাওয়া যায়।

বাসায় করলার রস যেভাবে বানাবেন

করলা ছোট ছোট টুকরো করে কেটে নিন। তারপর সব বীজ ছাড়িয়ে নিন। এবার একটি ব্লেন্ডারে দিয়ে দিন করলা। সঙ্গে দিন এক চিমটি বিট লবণ, গোলমরিচ, হলুদ, ১ ইঞ্চি আদা। এবার ব্লেন্ড করুন। এরপর এর মধ্যে ৩ চা-চামচ লেবুর রস দিয়ে আবার ব্লেন্ড করুন। ব্যাস তৈরি হয়ে গেল করলার রস। উল্লেখ্য, এটিকে আরও পুষ্টিকর করতে আপনি রসে কয়েক টুকরো বিটরুটও যোগ করতে পারেন।

করলার রস খেতে না চাইলে শীতকালে আপনার সবজির তালিকায় করলা নিয়মিত রাখতে পারেন। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতে, করলার ঔষধি গুণ অনেক। নিয়মিত করলা খেলে অনেক রোগবালাই দূরে পালায়।

/ফিরোজ/

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়