RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     শনিবার   ২৩ জানুয়ারি ২০২১ ||  মাঘ ৯ ১৪২৭ ||  ০৮ জমাদিউস সানি ১৪৪২

হ‌ুমায়ূন আহমেদের জন্মোৎসবে সাহিত্য আড্ডা

মিডিয়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:০৪, ১৩ নভেম্বর ২০২০   আপডেট: ২১:০৮, ১৩ নভেম্বর ২০২০
হ‌ুমায়ূন আহমেদের জন্মোৎসবে সাহিত্য আড্ডা

তাঁকে বলা হয় ‘গল্পের জাদুকর’। সাহিত্যের সব শাখায় অবদান রেখেছেন। টেলিভিশন নাটক, সিনেমা নির্মাণে তিনি মুন্সীয়ানা দেখিয়েছেন। জীবনের শেষ দিকে এসে চিত্রকলাতে আগ্রহী হয়েছিলেন। এমনই এক পাঠকপ্রিয় লেখক হ‌ুমায়ূন আহমেদের আজ ৭৩তম জন্মদিন। বিভিন্ন আয়োজনে দিনটি পালিত হচ্ছে।

শুক্রবার (১৩ নভেম্বর) বিকালে রাজধানীর বারিধারায় বুকল্যান্ড লাইব্রেরিতে নন্দিত এই কথাসাহিত্যিকের জন্মোৎসব উপলক্ষে এক প্রাণবন্ত সাহিত্য আড্ডা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন হ‌ুমায়ূন গবেষক, কবি ও কথাসাহিত্যিক মুম রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন কথাসাহিত্যিক ও সম্পাদক তাপস রায়।

হ‌ুমায়ূন আহমেদের সাহিত্যকর্ম নিয়ে আলোচনায় মুম রহমান বলেন, জনপ্রিয় হলেই কোনো লেখা সাহিত্য মানের দিক দিয়ে খারাপ হয়ে যায় না। অর্থাৎ জনপ্রিয় হয়েও লেখার সাহিত্য মান অটুট রাখা যায় তা প্রথম প্রমাণ করেছেন হ‌ুমায়ূন আহমেদ। তিনি তার লেখার মধ্য দিয়েই বেঁচে থাকবেন।

তাপস রায় বলেন, হ‌ুমায়ূন আহমেদ শিশুসাহিত্যকেও গুরুত্ব দিয়েছেন। রূপকথাকে তিনি ক্ষেত্রবিশেষে ভিন্ন আঙ্গিকে পরিবেশন করেছেন। বিষয়গুলো অনালোচিত রয়ে গেছে। চলচ্চিত্রে তাঁর অবদান আমাদের নতুন করে ভাবতে হবে। তিনি রাজনীতি সচেতন লেখক ছিলেন, ফলে চটুল লেখক হিসেবে তাঁকে দ্রুত খারিজ করে দেওয়া যাবে না। হ‌ুমায়ূন ভবিষ্যতে আরো পঠিত হবেন।

তরুণ সাহিত্যিক রাহাত জামিল বলেন, হ‌ুমায়ূন আহমেদের সাহিত্য এবং তাঁর নির্মিত চরিত্রের দর্শন চর্চার জন্য ‘হ‌ুমায়ূন ইনস্টিটিউট’ গড়ে তোলাটা সময়ের দাবি মাত্র। কবি শামস আরোফিন বলেন, নগর সভ্যতার যে বাস্তবতা ঢাকাকেন্দ্রিক তা তুলে ধরেছেন হ‌ুমায়ূন আহমেদ তার অনন্য চরিত্র হিমুর মাধ্যমে। এছাড়াও আলোচনায় অংশ নিয়েছেন কবি চয়নিকা সাথী, তৈয়বা মুনিয়া, কবি মিজান স্বপন, ইমামুল মানিক, পারু, আলফা, ইসমত।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেছেন বুকল্যান্ডের সহ-সভাপতি আনোয়ারুল হক। অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেছেন বুকল্যান্ড জার্নালের সম্পাদক ফারহানা হাসনা তুলি।

ঢাকা/শান্ত

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়