Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ১৩ জুন ২০২১ ||  জ্যৈষ্ঠ ৩০ ১৪২৮ ||  ০১ জিলক্বদ ১৪৪২

করোনায় না ফেরার দেশে সাংবাদিক সৈয়দ শাহজাহান

জ্যেষ্ঠ প্রতি‌বেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:৫৯, ২৮ এপ্রিল ২০২১   আপডেট: ০৪:২০, ২৯ এপ্রিল ২০২১
করোনায় না ফেরার দেশে সাংবাদিক সৈয়দ শাহজাহান

ফাইল ফটো

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে না ফেরার দেশে চলে গেলেন প্রবীণ সাংবাদিক, বাংলাদেশের প্রথম অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলামের প্রেস সচিব, বীর মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ শাহজাহান।

বুধবার (২৮ এপ্রিল) বিকালে জামালপুরের এই কৃতিসন্তান রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, এক ছেলে, এক মেয়েসহ বহু গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। 

তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন জামালপুর সাংবাদিক ফোরাম ঢাকার সভাপতি মোহাম্মদ আবু সাঈদ ও সাধারণ সম্পাদক উবায়দুল্লাহ বাদল। তারা মরহুমের বিদেহী আত্নার মাগফেরাত করেন এবং তার শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

এছাড়া শোক জানিয়েছেন, বৃহত্তর ময়মনসিংহ সাংবাদিক সমিতির সভাপতি মোল্লা জালাল একং সাধারণ সম্পাদক উদয় হাকিম।

গত ২৩ এপ্রিল থেকে রাজধানীর উত্তরার বেসরকারি ক্রিসেন্ট হাসপাতালে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন ছিলেন ৭৮ বছর বয়সী এই সাংবাদিক। 

সৈয়দ শাজাহানের স্ত্রী সৈয়দা জাহানারা শেফালী জানান, গত বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) অসুস্থ বোধ করলে তার নমুনা পরীক্ষা করা হয়। পরে তার করোনা পজিটিভ আসে। ২৩ এপ্রিল রাত প্রায় আড়াইটার দিকে ক্রিসেন্ট হাসপাতালে সৈয়দ শাজাহানকে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে তাকে হাসপাতালের আইসিইউ শয্যায় রাখা হয়। 

সৈয়দ শাহজাহানের ভাতিজা সৈয়দ শফিউল আলম বলেন, ‘বুধবার দুপুরের পর থেকে চাচার অবস্থার অবনতি ঘটে। বিকালে অক্সিজেন লেভেল একেবারে কমে যাওয়ায় লাইফ সাপোর্ট খুলে দিয়ে ডাক্তাররা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তার লাশ জামালপুর শহরের ১ নম্বর ওয়ার্ডে গ্রামের বাড়িতে নিয়ে জানাজা শেষে দাফন হবে।’ 

সৈয়দ শাহজাহান দৈনিক ইত্তেফাকে প্রায় ৪৫ বছর সাংবাদিকতা করেন। প্রধান প্রতিবেদক, শিফট ইনচার্জসহ বিভিন্ন বিভাগে দায়িত্ব পালন করেছেন ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের এই সদস্য। 

তিনি কচি-কাঁচার আসরের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সঙ্গেও ছিল তাঁর বেশ ঘনিষ্ঠতা। জাতীয় প্রেস ক্লাবের স্থায়ী সদস্য জামালপুরের এই কৃতিমান সন্তান।

ঢাকা/নঈমুদ্দীন/সনি

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়