Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     বুধবার   ০১ ডিসেম্বর ২০২১ ||  অগ্রহায়ণ ১৭ ১৪২৮ ||  ২৪ রবিউস সানি ১৪৪৩

ইলিয়াস চৌধুরীর ২৮তম মৃত্যুবার্ষিকী রোববার

আসাদ আল মাহমুদ || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৭:৪৫, ১৮ মে ২০১৯   আপডেট: ০৫:২২, ৩১ আগস্ট ২০২০
ইলিয়াস চৌধুরীর ২৮তম মৃত্যুবার্ষিকী রোববার

নিজস্ব প্রতিবেদক : আগামীকাল রোববার (১৯ মে) প্রাক্তন সংসদ সদস্য ও গণপরিষদের সদস্য, বীর মুক্তিযোদ্ধা, বিশিষ্ট ক্রীড়া সংগঠক, সমাজসেবক, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাগ্নে ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরীর (দাদা ভাই)  ২৮তম মৃত্যুবার্ষিকী।

ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরীর ২৮তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে মাদারীপুর জেলার শিবচর উপজেলার দত্তপাড়ায় নিজ বাড়ির জামে মসজিদে বাদ আসর মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরীর বড় ছেলে নূর-ই-আলম চৌধুরী বর্তমান একাদশ জাতীয় সংসদের চিফ হুইপের দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি মাদারীপুর-১ আসন থেকে ছয় বারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য।

ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরীর ছোট ছেলে মজিবুর রহমান চৌধুরী (নিক্সন চৌধুরী) ফরিদপুর-৪ আসন থেকে দশম এবং একাদশ জাতীয় সংসদে সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন।

ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরী ১৯৩৪ সালের ১৫ আগস্ট মাদারীপুর জেলার শিবচর উপজেলার দত্তপাড়া ইউনিয়নের জমিদার পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা নুরুদ্দিন আহমেদ চৌধুরী। মা চৌধুরী ফাতেমা বেগম ছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বড় বোন। ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরীর শিক্ষাজীবন শুরু হয় দত্তপাড়ার টিএন একাডেমিতে। মুন্সীগঞ্জ হরগঙ্গা কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিএসসি পাশ করেন তিনি। ১৯৬৬ সালের ছয় দফা আন্দোলন, ১৯৬৯ সালের গণঅভ্যূত্থানের উত্তাল দিনগুলোতে নিরলসভাবে কাজ করেন ইলিয়াছ আহমেদ চৌধুরী। তিনি ১৯৭০ সালের নির্বাচনে প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন। মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরী মুজিব বাহিনীর কোষাধ্যক্ষেরও দায়িত্ব পালন করেন । তিনি মাদারীপুর থেকে ১৯৭৩ সালের প্রথম জাতীয় সংসদের সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৭৫ পরবর্তী সময়ে আওয়ামী লীগ পুনর্গঠনসহ বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন তিনি।

ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরী (দাদা ভাই) ১৯৯১ সালের ১৯ মে ৫ম জাতীয় সংসদের সদস্য থাকাকালীন মারা যান।

ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরী ছিলেন জনপ্রিয় দৈনিক বাংলার বাণী পত্রিকার সম্পাদকমণ্ডলীর সভাপতি। তিনি আরামবাগ ক্রীড়াচক্রের সভাপতি ও খুলনা আবহানী ক্রীড়াচক্রের সভাপতি ছিলেন। তিনি ছিলেন সফল ব্যবসায়ী ও সমাজসেবক এবং খুলনা অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন মালিক সমিতির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি। তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও মাদারীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলেন। তিনি মাদারীপুরের জনগণের ভাগ্নোন্নয়নে আজীবন কাজ করে গেছেন। তিনি শিবচরে শিক্ষা বিস্তারের জন্য বহু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করেন।

 

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৮ মে ২০১৯/আসাদ/রফিক

রাইজিংবিডি.কম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়