ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ মাঘ ১৪২৬, ২৮ জানুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

বাণিজ্যমন্ত্রীর পদত‌্যাগের দাবিতে পলাশের অনশনে শরবত মিজান

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১২-০৬ ৮:৩৬:২৮ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১২-০৭ ১২:৫০:২৮ এএম

নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হিসেবে চিহ্নিত করে বাণিজ্যমন্ত্রীর অপসারণের দাবিতে অনশন চালিয়ে যাচ্ছেন আরমান হোসেন পলাশ (২৭) ।

গত ৩ ডিসেম্বর থেকে প্রেসক্লাবের সামনে তিনি অনশন শুরু করেছিলেন। 

শুক্রবার আরমান হোসেন পলাশ জানান, ‘সকাল থেকে আজ শরীরটা খুব খারাপ লাগছে। কেমন যেন মাথা ঘুরছে, হালকা বমি বমি ভাবও লাগছে। কোন কিছুই ভালে লাগছেনা। ’

এর কারণ হিসাবে তিনি জানান, ‘আমি গত তিন ধরে না খেয়ে একাই অনশনে বসেছি। এক ফোটা পানিও স্পর্শ করিনি। আমি যদি মরেও যাই, তারপরেও এ অনশন ভাঙ্গবো না। আমাকে অনেকে জুস খাওয়াতে চেয়েছিলো, কিন্তু আমি খাইনি। যে পর্যন্ত বাণিজ্যমন্ত্রী পদত্যাগ না করবেন, সে পর্যন্ত আমার অনশন চলবে।’

পলাশ জানান, রাজধানীর পুরানা পল্টন মোড়ে তার একটি চায়ের দোকান রয়েছে। সেখান থেকে  প্রতিদিনের চাঁদার টাকা বাদ দিয়ে ৪০০/৫০০ টাকার মত থাকে। তা দিয়ে তার পরিবার কোন রকম চলছে।

তিনি বলেন, বর্তমানে স্ত্রী, দুই সন্তান ও পরিবারের অন্যদের নিয়ে গাজীপুরের চৌরাস্তা এলাকায় একটি ভাড়া বাসায় থাকি। গাজীপুর থেকে প্রতিদিন পুরানা পল্টনে আসা লাগে। সূর্য ওঠার আগেই ঘর থেকে বের হই। আবার গভীর রাতে বাসার উদ্দেশ্য রওনা দেই। প্রতিটি পণ্যের দাম যেভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে, তাতে আমার মত নিম্নআয়ের মানুষের ভালোভাবে খেয়ে বেঁচে থাকা কষ্টসাধ্য।’

তিনি বলেন, ‘পণ্যের দাম বাড়ছে কিন্তু আমার আয় আর বাড়ছেনা। কিভাবে চলবো, সবাই বিরক্ত। কিন্তু কেউ প্রতিবাদ করে না। তাই বসে গেলাম। অনশন অবস্থায় মরেই গেলেই মনে শান্তি নিয়ে মরতে পারবো। প্রতিবাদ করে মরতে পারছি।’

পলাশের পাশে গত কাল থেকে অবস্থান নেন ওয়াসার এমডিকে শরবত খাওয়াতে চাওয়া এবং জুরাইন এলাকায় শতভাগ বিশুদ্ধ পানির দাবির আন্দোলনের অন্যতম নেতা জুরাইন নাগরিক অধিকার বাস্তবায়ন পরিষদের সমন্বয়ক মিজানুর রহমান।

‘শরবত মিজান’ নামে পরিচিত মিজান বলেন, আমি গত কাল থেকে পলাশের পাশেই আছি। আমি শুনেছি, গত তিন ধরে সে কিছুই খায়নি। আমি তাকে অনেকবার বলেছি শরবত খেতে, কিন্তু সে কিছুতেই রাজি হয়নি। আজ সকাল থেকে তার অবস্থা খারাপের দিকে যাচ্ছে। ডাক্তারকে সংবাদ দেওয়া হয়েছে।

ঢাকার নানা আন্দোলনের এই চেনা মুখ মিজান বলেন, ‘আমি পলাশকে অনেক বুঝিয়েছি, তুমি একা মরে গেলে কারো কিছুই যায় আসবে না। পৃথিবীর অনেক রাষ্ট্রের ইতিহাসে পর্যালোচনা করে দেখা গেছে যে, পদস্থরা তাদের পদে থেকে ব্যর্থ হয়ে স্বেচ্ছায় পদ ছেড়ে দিয়েছেন। বাণিজ্যমন্ত্রী তিনি দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ করতে ব্যর্থ হয়েছেন, তাই উনার উচিত পদত্যাগ করা।


ঢাকা/মামুন খান/সাজেদ