ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫ আষাঢ় ১৪২৭, ০৯ জুলাই ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

‘ঈদ করোনায় কাইরা নিছে’

হাসিবুল ইসলাম : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৫-২৫ ৯:১৭:২৬ এএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৫-২৬ ১:৫০:৩০ পিএম

‘ঘরে চাল নাই, বাজার করার টাকা নাই, পোলাপানরে একটা নতুন জামা কিননা দিমু তাও পারি নাই। আমাদের মতো গরিব অসহায়দের আবার ঈদ আছে নাকি? ঈদ হইছে বড়লোকদের। আমাদের মতো দিন আনা দিন খাওয়া মানুষের ঈদ নাই। এই বছরের ঈদ করোনায় কাইরা নিছে। কথাগুলো বলছিলেন পরিবহন শ্রমিক মোহাম্মদ আক্কাস হোসেন।

করোনাভাইরাসের কারণে বন্ধ রয়েছে গণপরিবহন। আর এতে দুর্বিসহ জীবন-যাপন করতে হচ্ছে মোহাম্মদ আক্কাস হোসেনের মতো আরও অনেককে।

রাজধানীর গাবতলী থেকে মোহাম্মদ আক্কাস জানান, তিনি গ্রামীণ ট্রাভেলস নামের বাস কোম্পানিতে চালকের সহকারী হিসেবে কাজ করেন।

মোহাম্মদ আক্কাস বলেন, ‘গত ২ মাস ধইরা কোনো কাজ নাই। কিছু টাকা জমানো ছিলো সেইটা দিয়েই বউ, পোলা নিয়া চলতাছি। কিন্তু সেই টাকাও শেষ। বাস মালিক প্রথমে কিছু টাকা দিছিলো এখনতো সেইটাও দেয় না। কীভাবে চলছি সেই খবরও রাখে না। খুব কষ্টের মধ্যে দিন কাটাইতেছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘ঘরে আমার ছোটো একটা ছেলে। গত পরশুদিন আমাকে বলে, বাবা এইবার ঈদে নতুন জামা কিনা দিবা না? আমি কোনো উত্তর দিতে পারিনাই। করোনা বুঝাইয়া দিলো খুদার জ্বালা কী।’

তার পাশ থেকে রাজু হোসেন নামে আরেক শ্রমিক বলেন, ‘আমি ঢাকার মৌমিতা বাস কোম্পানিতে ড্রাইভারের কাজ করি। পরিবারের সবাই জামালপুর থাকে। আমি একা থাকি ঢাকাতে। গত ২ মাস বসে আছি। মাঝে কিছু দিন কাজ না পেয়ে মাস্ক বিক্রি করেছিলাম। কিন্তু সেটা এখন আর করতেছিনা। লাভ খুব কম। আর বিক্রিও বেশি হয় না। করনোর কারণে এবার সব এলো মেলো হয়ে গেছে।’

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্যাহ রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘এবারের ঈদে আসলে আমাদের আনন্দ বলে কিছু নেই। করোনার কারণে বাস মালিক ও শ্রমিকরা এক কাতারেই বাস করছি। বাসের চাকা না ঘুরলে যেমন শ্রমিকদের বেতন হয় না ঠিক তেমনি মালিকের পকেটও খালি থাকে। তারপরেও আমার এনা বাস কোম্পানিতে যারা কাজ করছেন তাদের অল্প হলেও সহযোগিতা করার চেষ্টা করেছি। আমি বলবো, অন্য যারা বাস মালিক রয়েছেন তারাও যেন শ্রমিকদের পাশে দাঁড়ায়।’


ঢাকা/হাসিবুল/ইভা