RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     বুধবার   ২৫ নভেম্বর ২০২০ ||  অগ্রাহায়ণ ১১ ১৪২৭ ||  ০৭ রবিউস সানি ১৪৪২

‘সোনালি আঁশের সুদিন ফিরেছে’

মোহাম্মদ নঈমুদ্দীন || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১২:২২, ১১ জানুয়ারি ২০১৭   আপডেট: ০৫:২২, ৩১ আগস্ট ২০২০
 ‘সোনালি আঁশের সুদিন ফিরেছে’

সচিবালয় প্রতিবেদক : সরকারের বাস্তবমুখী পদক্ষেপ ও বাস্তবায়নের কারণে সোনালি আঁশের দিন ফিরে এসেছে। বাংলাদেশকে আবারও সোনালি আঁশের দেশে রূপান্তর করে পাটের হারানো ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছি।

বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী মুহা. ইমাজ উদ্দিন প্রামাণিক বুধবার দুপুরে সচিবালয়ে নিজ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে পাটবিষয়ক উপদেষ্টা কমিটির সভায় একথা বলেন।

তিনি বলেন, পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার আইন-২০১০ সুষ্ঠুভাবে শতভাগ বাস্তবায়ন করা হয়েছে।  অতি দ্রুত আরো ১১টি পণ্য মোড়কীকরণের ক্ষেত্রে পাটজাত পণ্যের ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে। এ শিল্পের বিকাশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পাটকে কৃষিপণ্য হিসেবে ঘোষণা করে যুগান্তকারী পদক্ষেপ নিয়েছেন।

তিনি আরো বলেন, বৃহস্পতিবার জুট ডাইভারসিফিকেশন প্রমোশন সেন্টারে (জেডিপিসি) বহুমুখী পাটপণ্যের প্রদর্শনী ও বিক্রয় কেন্দ্র  উদ্বোধন  করা হবে।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম এমপি, বিজেএমসি চেয়ারম্যান ড. মাহমুদুল হাসান ছাড়াও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, অর্থ মন্ত্রণালয়, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ ব্যাংক, পরিকল্পনা কমিশন, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড এবং পাটবিষয়ক উপদেষ্টা কমিটির সদস্যরা।

প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম বলেন, বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের জেডিপিসিতে বহুমুখী পাটপণ্যের অত্যাধুনিক ডিসপ্লে সেন্টার আগামীকাল উদ্বোধন হওয়ার পরই দ্রুত দেশের সব বিভাগীয় ও জেলা শহরে অত্যাধুনিক ডিসপ্লে সেন্টার স্থাপন করা হবে।

তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের গৃহিত নীতিমালা ও পরিকল্পনাকে কাজে লাগিয়ে পাট ও বস্ত্রখাতের রপ্তানি বাজার সম্প্রসারণ, বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন, পরিবেশ রক্ষা এবং কর্মসংস্থান সৃষ্টির মাধ্যমে বাংলাদেশকে ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত করতে এ মন্ত্রণালয় ভূমিকা রাখবে।

সভায় পাটজাত পণ্যকে কৃষিপণ্য ও প্রক্রিয়াজাত কৃষিপণ্যের তালিকাভুক্ত করার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণাকে জরুরি ভিত্তিতে বাস্তবায়ন বিষয়ে অগ্রগতি পর্যালোচনা করা হয়। পাটশিল্পের ব্লক ঋণ ফেরত দেওয়ার সময় পাঁচ বছর থেকে বৃদ্ধি করে ১০ বছর করার বিষয়ে আলোচনা হয়।

তাছাড়া ইডিএফ ফান্ডের ন্যায় পাটশিল্পের জন্য ২ ভাগ সুদে ৫ হাজার কোটি টাকার পুনঃঅর্থায়ন তহবিল তৈরির বিষয়ে আলোচনা হয়।

বৈঠকে পাটশিল্পকে বাংলাদেশ ব্যাংকের গ্রিন ফান্ডিংয়ের আওতায় নিয়ে আসা, ব্যাংক ঋণের সুদের হার কমিয়ে একক অংকে আনাসহ সরকারি ও বেসরকারি ব্যাংকের সুদের হার সমতায় আনার বিষয়ে আলোচনা হয়।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১১ জানুয়ারি ২০১৭/নঈমুদ্দীন/মুশফিক

রাইজিংবিডি.কম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়