ঢাকা     রোববার   ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||  আশ্বিন ১২ ১৪২৭ ||  ০৯ সফর ১৪৪২

করোনায় মৃত সরকারি চাকরিজীবীদের ঋণ-সুদ মওকুফের উদ্যোগ

কেএমএ হাসনাত || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:২১, ১১ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১০:৩৯, ২৫ আগস্ট ২০২০
করোনায় মৃত সরকারি চাকরিজীবীদের ঋণ-সুদ মওকুফের উদ্যোগ

করোনায় মৃত্যুবরণকারী সরকারি চাকরিজীবীদের জন্য বিশেষ সুবিধা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে সরকার।  যেসব সরকারি চাকরিজীবী করোনায় মারা যাবেন, তাদের ব‌্যাংক ঋণ মওকুফ করে দেওয়া হবে।  এই বিষয়ে একটি কমিটিও গঠন করা হয়েছে।  ওই কমিটিতে অনুমোদনের পর এই বিষয়ে প্রয়োজনীয় সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা বলেন, ‘আলোচিত ঋণের মধ্যে রয়েছে, গৃহনির্মাণ ঋণ, গৃহ-মেরামত ঋণ, কম্পিউটার, মোটরকার, মোটরসাইকেল কেনার জন্য নেওয়া ঋণ।  চাকরি-রত অবস্থায় মারা গেলে, তার ঋণের আসল ও সুদ বা দণ্ডসুদ মওকুফের বিষয়ে কমিটি বৈঠকের সিদ্ধান্ত আসতে পারে।’

সূত্র জানায়, মঙ্গলবার অর্থ বিভাগের একজন অতিরিক্ত সচিবের নেতৃত্বে অনুষ্ঠিত এই সংক্রান্ত সভা অনুষ্ঠিত হবে। ওই সভায় বিষয়টি উপস্থাপন হতে পারে।  

জানা গেছে, সরকারি চাকরিরত অবস্থায় মৃত্যুবরণকারী সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উত্তরাধিকারীর কাছ থেকে ঋণের অপরিশোাধিত আসল ও সুদ  মওকুফের বিষয়ে একটি নীতিমালা রয়েছে। ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর মাসে জারি করা এই নীতিমালার অংশ হিসেবে অর্থ বিভাগের একজন অতিরিক্ত সচিবের নেতৃত্বে ৮ সদস্যের একটি কমিটিও গঠন করা হয়েছে।
এই বিষয়ে অর্থ মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা বলেন, ‘কমিটির কাজ হচ্ছে আসল ও সুদ মওকুফের বিষয়ে সুপারিশ করা। প্রতিমাসে কমিটি একটি সভা করে। কিন্তু করোনার কারণে গত কয়েকমাস কমিটির কোনো সভা হয়নি।  শিগগিরই সভা হওয়ার কথা রয়েছে।’ 

বিদ্যমান নীতিমালা অনুযায়ী, ঋণগ্রহিতা সরকারি কর্মকর্তা/কর্মচারী চাকরিরত অবস্থায় মৃত্যুবরণ করলে অথবা অক্ষমতাজনিত কারণে অবসরে গেলে ঋণের অপরিশোধিত আসল ও সুদ মওকুফের বিষয় বিবেচনাযোগ্য হবে। এক্ষেত্রে অবসর উত্তর ছুটিকাল (পিআরএল) চাকরিকাল হিসেবে গণ্য হবে। ঋণগ্রহণকারী কর্মকর্তা/কর্মচারীর প্রাপ্য গ্রাচ্যুইটি মৃত্যুর আগে নিষ্পডিত্তি হয়ে থাকলে তাদের ক্ষেত্রে মওকুফের প্রস্তাব বিবেচনাযোগ্য হবে না।  চাকরিরত অবস্থায় কোনো সরকারি কর্মকর্তা/কর্মচারী ঋণগ্রস্ত নিঃস্ব পরিবার পরিজন রেখে মৃত্যুবরণ করলে অথবা অক্ষমতাজনিত কারণে অবসরে গেলে তাদের  আসল ও সুদ মওকুফযোগ্য হবে।  

তবে প্রাপ্য গ্র্যাচুইটি মোট ১২ লাখ টাকা বা তারও বেশি আসল মওকুফ বিবেচনায় আনা হবে না বলেও পরিপত্রে  উল্লেখ করা হয়েছে। 
 

হাসনাত/এনই

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়