RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     মঙ্গলবার   ২০ অক্টোবর ২০২০ ||  কার্তিক ৫ ১৪২৭ ||  ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

‘ভিসার মেয়াদ না বাড়ালে কোথায় যাবো, কী খাবো’

আবু বকর ইয়ামিন || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:৪২, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ১৬:৪৮, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০
‘ভিসার মেয়াদ না বাড়ালে কোথায় যাবো, কী খাবো’

কারওয়ান বাজারে সৌদি অ‌্যারাবিয়ান এয়ারলাইন্সের সামনে টিকিট প্রত‌্যাশীরা

সৌদি ভিসা ও আকামার মেয়াদ বাড়ানো এবং বিমানের টিকিট ও টোকেনের দাবিতে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে সৌদি অ্যারাবিয়ান এয়ারলাইন্সের কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ করছেন প্রবাসী কর্মীরা। তারা বলছেন, ‘ভিসার মেয়াদ না বাড়ালে আমরা কোথায় যাবো, কী খাবো?’

মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে হোটেল সোনারগাঁওয়ের সামনে বিক্ষোভ করছেন সৌদিফেরত প্রবাসী কর্মীরা।

তারা বলছেন, ‘করোনা পরিস্থিতিতে আমরা দেশে এসে আটকে গেছি। এখন বিদেশে যাওয়ার টিকেট পাচ্ছি না। আবার ওখানে গিয়ে থাকার নিশ্চয়তা নেই। সব মিলিয়ে খুব খারাপ পরিস্থিতিতে আছি আমরা।’ 

সৌদিফেরত কবির আহমেদ বলেন, ‘আমি গত মার্চে বাড়িতে এসেছি। এখন সৌদি আরবে যেতে পারছি না। আবার সেখানে গিয়ে চাকরি পাবো কি না, তার নিশ্চয়তা নেই। ভিসার মেয়াদ নেই। ভিসার মেয়াদ না বাড়ালে কই যাবো, কী খাবো? এ সমস‌্যা সমাধানে সরকার এগিয়ে না আসলে আমাদের কিছু করার নেই।’

জয়নাল নামের এক ব‌্যক্তি বলেন, ‘ধার-দেনা করে বিদেশে গিয়েছিলাম। করোনার কারণে দেশে এসেছি। এখন ভিসার মেয়াদ নেই। সরকার যদি ওই দেশের সঙ্গে আলাপ করে মেয়াদ বাড়ানোর ব্যবস্থা করতে পারে, তাহলে আমাদের অনেক উপকার হয়।’ 

কামাল হোসেন বলেন, ‘সবার কফিল এক না। সঠিক সময়ে যেতে না পারলে চাকরিতে রাখবে না। তখন পথে বসতে হবে। পাঁচ দিন ধরে এখানে আছি। এখনও টিকিট পাইনি।’  

রিয়াত মজুমদার বলেন, ‘আমরা বিদেশে গিয়ে তো সরকারের জন্য অনেক কিছুই করলাম। সরকার আমাদের জন্য কিছু করুক। ওই দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে কথা বলে আমাদের সমস্যাগুলো সমাধান করুক। এভাবে আমাদের হয়রানি করার কোনো মানে হয় না।’

আন্দোলনকারীরা জানান, এখানে একটা নির্দিষ্ট সিরিয়াল দিয়ে রাখা হয়েছে। সিরিয়ালের যে লোকগুলো অফিসের ভেতরে যাচ্ছে, তাদের হিসাব আলাদা। কিন্তু যারা এখন পর্যন্ত সিরিয়াল পাননি, তাদের ব্যাপারে কোনো নির্দেশনা দিচ্ছে না।

শাহ জালাল মিয়া বলেন, ‘পাঁচ দিন ধরে ঢাকায় আছি। তারা একবার বলে, ১ তারিখ টোকেন দেবে; আরেকবার বলে, ৪ তারিখে দেবে। এ কারণে এখানে থাকতে হচ্ছে।’

ঢাকা/ইয়ামিন/রফিক

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়