RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     শনিবার   ৩১ অক্টোবর ২০২০ ||  কার্তিক ১৬ ১৪২৭ ||  ১৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

প্রতিটি শিশু বাঁচবে সুন্দরভাবে: প্রধানমন্ত্রী

জ‌্যেষ্ঠ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৪:০৭, ১৮ অক্টোবর ২০২০   আপডেট: ১৪:৪২, ১৮ অক্টোবর ২০২০
প্রতিটি শিশু বাঁচবে সুন্দরভাবে: প্রধানমন্ত্রী

দেশের প্রতিটি শিশু যেন আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে দেশ গড়ার কাজে মনোনিবেশ করতে পারে, তাদের সেই সুন্দর জীবনের লক্ষ‌্যে সরকার কাজ করছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রোববার (১৮ অক্টোবর) শেখ রাসেলের জন্মদিন উপলক্ষে শেখ রাসেল শিশু কিশোর পরিষদ আয়োজিত এক আলোচনায় সভা এবং এসএসসিতে জিপিএ-৫ প্রাপ্তদের পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ‌্যমে অনুষ্ঠানে যুক্ত হন।

শেখ হাসিনা বলেন, আমার একটাই লক্ষ‌্য জাতির পিতা এই দেশ স্বাধীন করেছেন। ত্রিশ রাখ শহীদ জীবন দিয়েছেন, দুই লাখ মা-বোন সম্ভম হারিয়েছেন। এই স্বাধীনতার সুফল প্রতিটি মানুষ পাবে। প্রতিটি শিশু লেখাপড়া শিখে আগামী দিনে দেশের কর্ণধার হবে। সুন্দরভাবে বাঁচবে সেই লক্ষ‌্য নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি।

তিনি আশাবাদ ব‌্যক্ত করে বলেন, আমাদের শিশুরা দেশপ্রেমিক হবে। মানুষকে সেবা করতে, নিজেকে যোগ‌্য নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলবে। আধুনিক শিক্ষায় সুশিক্ষিত হবে।

এ সময় করোনার কারণে স্কুলে যেতে না পারলেও ঘরে বসে মনোযোগ দিয়ে লেখাপড়া করতে শিশু-কিশোরদের প্রতি পরামর্শ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, অভিভাবকদের অনুরোধ করবো তাদের লেখাপড়ার দিকে মনোযোগ দিতে হবে। পাশাপাশি তারা যেন একটু খেলাধুলা, এক্সারসাইজ করতে পারে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

বক্তব‌্যের এক পর্যায়ে পনেরো আগস্টে নির্মম হত‌্যাকাণ্ড এবং ছোট্ট শেখ রাসেলকে হত‌্যার ঘটনা বলতে গিয়ে কণ্ঠ কেঁপে উঠে প্রধানমন্ত্রীর।

“সেই শিশুটিকে বাঁচতে দেওয়া হয়নি। নির্মমভাবে হত‌্যা করা হয়েছে। এই ধরনের ঘটনা আর না ঘটুক তা আমরা চাই”, বলেন তিনি।

এ সময় শেখ রাসেলের স্মরণে বিভিন্ন উদ‌্যোগ নেওয়ায় যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় এবং শেখ রাসেল শিশু কিশোর পরিষদকে ধন‌্যবাদ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, শেখ রাসেল শিশু কিশোর পরিষদ ৮৯ সাল থেকে গড়ে উঠেছে।  এটা করার উদ্দেশ‌্য এদেশের শিশুদেরকে সঠিকভাবে গড়ে তোলা। তারা যেন  দেশপ্রেমিক এবং দেশকে সেবা গড়ার মনোভবে নিজেদের গড়ে তোলে।

এ সময় এসএসসি পরীক্ষা জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা দেওয়া এবং অনুষ্ঠানের আয়োজন করায় ধন‌্যবাদ জানান প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, এতে শিশুদের মধ্যে সুপ্ত প্রতিভা বিকশিত হওয়ার সুযোগ থাকে।

শেখ রাসেলের বিশ্ববিদ‌্যালয় ল‌্যাবরেটরি স্কুলে ছোট্ট শিশুদের সঙ্গে শেখ রাসেলের জন্মদিনের অনুষ্ঠানে সশরীরে না থাকতে পারায় আক্ষেপ প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, জিজিটাল বাংলাদেশ হয়েছে বলেই সবার সঙ্গে এই অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ‌্যমে মিলিত হতে পারলাম। সশরীরে ছোট্ট ছোট্ট সোনামুনিদের স্কুলে, রাসেলের স্কুলে যেতে পারলাম না..খুব খারাপ লাগছে। 

এ সময় করোনা প্রাদুর্ভাবের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে লোক সমাগমের স্থলে মাস্ক পড়ার স্বাস্থ‌্যবিধি মেনে শরীরে প্রতি যত্ন নেওয়ার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।

পারভেজ/সাইফ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়