RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     সোমবার   ১৮ জানুয়ারি ২০২১ ||  মাঘ ৪ ১৪২৭ ||  ০৩ জমাদিউস সানি ১৪৪২

ভাস্কর্য ভাঙার ঘটনায় উত্তাল সারা দেশ

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২৩:৫৮, ৫ ডিসেম্বর ২০২০   আপডেট: ০৮:০৭, ৬ ডিসেম্বর ২০২০
ভাস্কর্য ভাঙার ঘটনায় উত্তাল সারা দেশ

ভাস্কর্যের বিরোধিতার মধ‌্যে কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধুর নির্মাণাধীন ভাস্কর্য ভাঙচুরের ঘটনায় ফুঁসে উঠেছে সারা দেশ। ভাস্কর্য ভাঙচুরের ঘটনার পর রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশে তাৎক্ষনিক বিক্ষোভ, মিছিল, প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে আওয়ামী লীগ এবং সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। রোববারও (৬ ডিসেম্বর) পৃথকভাবে সারাদেশে প্রতিবাদ সমাবেশের কর্মসূচি দেওয়া হয়েছে।

ঢাকায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য স্থাপনে হেফাজতে ইসলামসহ কয়েকটি ইসলামী দলের বিরোধিতার মধ্যে শনিবার কুষ্টিয়ায় জাতির পিতার নির্মাণাধীন এক ভাস্কর্য ভাঙচুর করেছে দুর্বৃত্তরা। এ খবর ছড়িয়ে পরলে সারাদেশে বিক্ষোভে নামে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।

শনিবার (৫ ডিসেম্বর) সন্ধ‌্যায় ভাস্কর্য ভাঙার ঘটনার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল করেছে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ। এ সময় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙার সঙ্গে জড়িতদের কাপুরুষ অভিহিত করে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি জানান।

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য হবেই এবং এই ঘটনার পর ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ মাঠে আছে জানিয়ে সংগঠনের সভাপতি আবু আহমেদ মন্নাফি বলেন, ‘যারা স্বাধীনতার বিরোধিতা করছে, মুক্তিযুদ্ধ চায়নি, সেই মৌলবাদী মহল বিএনপি-জামায়াতের মদদে ভাস্কর্য ভেঙেছে। তাদের ক্ষমা করা যাবে না।’

‘এদেশে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য হবেই। অনেক মুসলিম দেশে ভাস্কর্য আছে। ভাস্কর্য আর মূর্তি এক নয়। মূর্তি পূজা করে আর ভাস্কর্য ইতিহাস ঐতিহ‌্য সংরক্ষণ করে। যে কোনো মূল‌্যে দেশের মাটিতে বঙ্গবন্ধুর আরো ভাস্কর্য নির্মাণ হবে।’

পরে বিক্ষোভ মিছিলটি সচিবালয়, স্টেডিয়াম, পল্টন হয়ে আবার কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এসে শেষ হয়। এ সময় সংগঠনের সহ-সভাপতি নুরুল আমিন রুহুল, সাজেদা বেগম, যুগ্ম সম্পাদক কাজী মোর্শেদ কামাল, সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম আশরাফ তালুকদার উপস্থিত ছিলেন। রোববার রাজধানীতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশের ডাক দিয়েছি সংগঠনটি।

এদিকে ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদে সন্ধায় রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ের সামনের রাস্তায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ।
 
মিছিল শেষে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে সভাপতি বজলুর রহমান বলেন, ‘একাত্তরে এই মৌলবাদী অপশক্তিকে মুক্তিযোদ্ধারা জবাব দিয়েছে, এখন আবার তারা মাথাচাড়া দিয়ে উঠতে চায়। তারা আবার সাম্প্রদায়িক উগ্রতা দেখাতে চাইলে দাঁত ভাঙ্গা জবাব দেয়া হবে। আগামীকাল মহানগর উত্তরেরর প্রত্যেক ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল করা হবে।’

ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদে তাৎক্ষণিক বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে যুবলীগ। রাত ৮টার দিকে বঙ্গবন্ধু অ‌্যাভিনিউতে এই কর্মসূচি পালন করে সংগঠনের নেতাকর্মীরা । এ সময় প্রেসিডয়াম সদস‌্য হাবিবুর রহমান পবন, যুগ্ম সম্পাদক বিশ্বাস মতিউর, বাদশা, সাংগঠনিক জহির উদ্দিন খসরু, প্রচার সম্পাদক জয়দেব নন্দী, দপ্তর সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, উপ তথ‌্য ও যোগাযোগ বিষয়ক সম্পাদক এন আই আহমেদ সৈকত ঢাকা মহানগর দক্ষিণের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাইনুদ্দিন রানা, সহ-সভাপতি সোহরাব হোসেন স্বপন, সাংগঠনিক সম্পাদক গাজী সারোয়ার হোসেন বাবু।

প্রতিবাদ সমাবেশে যুবলীগ নেতারা বলেন, যুবলীগের চেয়ারম‌্যান ও সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে যারা সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিকতার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে তাদের কঠোর হাতে দমন করা হবে। বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের ওপর আঘাত মানে বাংলাদেশের ওপর আঘাত। নেতাকর্মীদের সোচ্চার থেকে সাম্প্রদায়িক শক্তির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান তারা।

ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে স্বেচ্ছাসেবক লীগ। সন্ধ‌্যার পর রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ‌্যাভিনিউতে এই কর্মসূচি পালন করেন সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

এ সময় সংগঠনের সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ, সাধারণ সম্পাদক আফজালুর রহমান বাবু, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি কামরুল হাসান রিপন উপস্থিত ছিলেন। কর্মসূচি থেকে রোববার সারাদেশে বিক্ষোভ মিছিলের কর্মসূচি দেয়া হয়েছে।

কামরুল হাসান রিপন বলেন, দেশের স্বাধীনতার স্থপতির ভাস্কর্যের ওপরে যারা হাত রেখেছে, তাদের প্রতিহত করতে স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মীরাই যথেষ্ট। রাতের অন্ধকারে চোরের মতো ভাস্কর্যে হাত দিয়েছে। পারলে, সাহস থাকলে সামনাসামনি এসে ভাস্কর্যে হাত রাখুক। যেখানে সাম্প্রদায়িক অপশক্তি থাকবে সেখানেই প্রতিহত করতে স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মীরা মাঠে আছে।

কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙ্গার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে ছাত্রলীগও। শনিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ‌্যাভিনিউ দলীয় কার্যালয়ে ছাত্রলীগের সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যের নেতৃত্বে সংগঠনের বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মী এ বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশের কর্মসূচি পালন করে। মিছিলটি রাজধানীর জিরো পয়েন্ট ও গুলিস্তানের আশেপাশের সড়ক ঘুরে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে এসে সমাবেশে মিলিত হয়।

বিক্ষোভ মিছিল শেষে ছাত্রলীগ সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয় বলেন, ‘যারা রাতের অন্ধকারে চোরের মত জাতির পিতার ভাস্কর্য ভেঙেছে, দিনের আলোয় পারলে সামনে আসেন। যদি আপনাদের এতো ঈমানি শক্তি থাকে।’

ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য বলেন, ‘দেশের স্বাধীনতা বিরোধী একটি চক্র বার বার ষড়যন্ত্র করে যাচ্ছে। কখনোই তারা সফল হতে পারেনি। এখন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য নিয়ে নতুন করে ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। এর আগে আমরা প্রতিবাদ করেছি। এবার প্রতিরোধের সময় এসেছে।’

এছাড়া কৃষক লীগের সভাপতি কৃষিবিদ সমীর চন্দের নেতৃত্বে শনিবার সন্ধ্যায় বিক্ষোভ মিছিল করে সংগঠনের নেতাকর্মীরা। মিছিলটি জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে থেকে শুরু করে বঙ্গবন্ধু অ‌্যাভিনিউ’র আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ের সামনে গিয়ে শেষ হয়। 

কৃষক লীগের সভাপতি কৃষিবিদ সমীর চন্দ বিক্ষোভ মিছিলের সমাপনী বক্তব্যে বলেন, ‘১৯৭১ এর মুক্তিযুদ্ধের অপশক্তিরা যেভাবে পরাজিত হয়েছিল বর্তমানে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে ষড়যন্ত্রকারী মৌলবাদীরা একইভাবে পরাজিত হবে।’

বিক্ষোভ মিছিলে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, কৃষক লীগের সহ-সভাপতি শেখ মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, আলহাজ্ব মোস্তফা কামাল চৌধুরী, মো. আবুল হোসেন, আলহাজ্জ মাকসুদুল ইসলাম, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক বিশ্বনাথ সরকার বিটু প্রমুখ।

এছাড়া তাৎক্ষনিক বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে অন‌্য সহযোগী সংগঠনগুলো। রোববার সারাদেশে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশের ঘোষণা দিয়েছে সংগঠনগুলো।

পারভেজ/আমিনুল

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়