Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     মঙ্গলবার   ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||  আশ্বিন ১৩ ১৪২৮ ||  ১৯ সফর ১৪৪৩

রাশিয়া থেকে এক লাখ টন গম আমদানি করবে সরকার

কেএমএ হাসনাত || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:৪৪, ১ ফেব্রুয়ারি ২০২১   আপডেট: ২০:৪৪, ১ ফেব্রুয়ারি ২০২১
রাশিয়া থেকে এক লাখ টন গম আমদানি করবে সরকার

রাশিয়া থেকে সরকার এক লাখ মেট্টিক টন গম আমদানি করবে।  প্রতি মেট্রিক টন গমের দাম ৩৬৫ মার্কিন ডলার।  সে হিসেবে এক লাখ মেট্রিক টন গম আমদানিতে মোট ব্যয় হবে ৩০৯ কোটি ৫২ লাখ টাকা।

খাদ্য মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, দেশের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করাসহ সরকারি বিতরণ ব্যবস্থা সচল রাখার উদ্দেশ্যে খাদ্য মন্ত্রণালয় অভ্যন্তরীণ সংগ্রহের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক উৎস থেকে খাদ্যশস্য সংগ্রহ করে থাকে।  আন্তর্জাতিক উৎস থেকে গম সংগ্রহের ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক দরপত্রের পাশাপাশি জিটুজি পদ্ধতি অনুসরণ করা হয়।  জিটুজি পদ্ধতিতে রাশিয়ান ফেডারেশন থেকে অর্থ বছরের শুরুতেই দুই লাখ মেট্টিক টন গম কেনা হয়।

এরই ধারাবাহিকতায় রাশিয়ান ফেডারেশন এর ফরেন ইকোনমিক করপোরেশন (এফইসি) এর কাছ থেকে গম সরবরাহের প্রস্তাব পাওয়ায় আরও ২.০০ লাখ মেট্টিক টন গম কিনতে গত বছর ৪ আগস্ট নেগোসিয়েশনের ভিত্তিতে অ্যাগ্রিড মাইনিউটস অব দি মিটিং স্বাক্ষরিত হয়।  কিন্তু গমের আন্তর্জাতিক বাজার দর বাড়ায় এবং রাশিয়ান ফেডারেশন সাময়িকভাবে গম রপ্তানি বন্ধ করায় চুক্তি স্বাক্ষর করেনি।

উল্লেখ্য, চুক্তি স্বাক্ষরের বিষয়টি নিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ ও মস্কোস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের মাধ্যমে যোগাযোগ করেও চুক্তি স্বাক্ষর সম্ভব হয়নি।  এ বছরের গত ১৮ জানুয়ারি রাশিয়ার কাছ থেকে আবার নেগোসিয়েশন এর প্রস্তাব পাওয়ায় ২৭ ও ২৮ জানুয়ারি নেগোসিয়েশন সভা হয়। সভায় জিটুজি পদ্ধতিতে গম আমদানির চুক্তির শর্ত এবং মূল্য নিয়ে আলোচনা হয়।  শেষে রাশিয়ান ফেডারেশন হতে এক লাখ মেট্টিক টন গম প্রতি মেট্রিক টন ৩৬৫ মার্কিন ডলার দরে আমদানির বিষয়ে চূড়ান্ত সমঝোতা হয় এবং উভয়পক্ষ চুক্তিতে স্বাক্ষর করে।

সূত্র জানায়, যদিও প্রস্তাবিত ক্রয়ের ক্ষেত্রে নির্ধারিত মূল্য বাজার যাচাই কমিটির মাধ্যমে গম কেনার সুপারিশ করা হয়েছে।  খাদ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, খাদ্যশস্য পরিস্থিতি প্রতিবেদন অনুসারে মজুতের পরিমাণ চাল ৫.৪৮ লাখ মেট্টিক টন ও গম ১.৫৬ লাখ মেট্টিক টন অর্থাৎ সর্বমোট ৭.০৪ লাখ মেট্টিক টন।  ২০২০-২০২১ অর্থ বছরের জন্য দেশের চালের চাহিদা ও মজুত পরিস্থিতি এবং বর্তমান করোনা ভাইরাস সংক্রমণের বিষয় বিবেচনা করে সরকারি বিতরণ ব্যবস্থা সচল রাখাসহ নিরাপত্তা মজুত সুসংসহত করতে গম কেনা জরুরি।

সূত্র জানায়, রাশিয়ান ফেডারেশন থেকে কস্ট ইন্সুরেন্স ফ্রেইট-লাইনার আউট (সিআইএফ-এলও) টার্মে প্রতি মেট্টিক টন ৩৬৫ মার্কিন ডলার দরে (প্রতি কেজি ৩০.৯৫২ টাকা) এক লাখ মেট্টিক টন গম কিনতে তিন কোটি ৬৫ লাখ মার্কিন ডলার অর্থাৎ প্রতি মার্কিন ডলার ৮৪.৮০ টাকা হিসেবে সর্বমোট ৩০৯ কোটি ৫২ লাখ টাকা প্রয়োজন হবে।  যা পিপিআর ২০০৮ এর বিধি ৭৬ (২) এ উল্লেখিত মূল্য সীমার উর্ধ্বে হওয়ায় অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির নীতিগত অনুমোদন নেওয়া হয়েছে।  উক্ত অর্থ ২০২০-২০২১ অর্থবছরের গম ক্রয় খাত থেকে মিটানো হবে।

এ সংক্রান্ত একটি ক্রয় প্রস্তাবে অনুমোদনের জন্য পরবর্তী সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে উপস্থাপন করা হবে বলে খাদ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে।

হাসনাত/সাইফ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ