Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ১৩ জুন ২০২১ ||  জ্যৈষ্ঠ ৩০ ১৪২৮ ||  ০২ জিলক্বদ ১৪৪২

৭০ টাকার ভাড়া ৩৫০ টাকা 

নিজস্ব প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১২:৫২, ১১ মে ২০২১   আপডেট: ১২:৫৭, ১১ মে ২০২১
৭০ টাকার ভাড়া ৩৫০ টাকা 

কয়েকদিন পরই ঈদ। প্রিয়জনের সঙ্গে ঈদ করতে হবে। করোনা সংক্রমণ রোধে সারা দেশে দূরপাল্লার বাস চলাচল বন্ধ।  গণপরিহন বন্ধে যাত্রীর চাপ থাকায় ৭০ টাকার ভাড়া ৩৫০ টাকা (গুলিস্তান-মাওয়া) করে নেওয়া হচ্ছে।

মঙ্গলবার (১১ মে) রাজধানীর গুলিস্তান গোলাপশাহ মাজারের সামনে ও ফুলবাড়িয়ায় এ চিত্র দেখা গেছে।

সকাল থেকে ঢাকা-মাওয়া সড়কে গাড়ির চাপ লক্ষ্য করা গেছে। গণপরিবহন চলাচল বন্ধ থাকলেও অনেকে মোটারসাইকেলে, প্রাইভেটকার, পিকআপে করে বাড়ি যাচ্ছেন।

গোলাপশাহ বাসস্ট্যান্ডে কথা হয় ফরিদপুরের মো. রোহান নামের এক ব্যক্তির সাথে। তিনি বলেন, একটি কোম্পানিতে কাজ করতাম।  লকডাউনের মধ্যে চাকরি চলে গেছে। ঢাকায় বসে কি খাব।  বাড়িতে বৃদ্ধ মা থাকেন।  ঢাকায় থেকে কি করবো। কষ্ট হবে জেনেও বাড়ি যাচ্ছি।  মাওয়া-গুলিস্তান ৭০ টাকা ভাড়া।  যাত্রীর চাপ থাকায় ৭০ টাকার ভাড়া ৩৫০ টাকা করে নেওয়া হচ্ছে।

ফুলবাড়িয়ায় কথা হয় মাদারীপুরের শিবচরের বাসিন্দা সজিব হালদারের সাথে। তিনি বলেন, ঘরমুখো যাত্রীদের জিম্মি করে ভাড়া আদায় করছে।  গুলিস্তান থেকে মাওয়া ৭০ টাকার ভাড়া ৩২০ টাকা করে নিচ্ছে। ফেরি খুলে দেওয়া হয়েছে অথচ বাস চলার অনুমোদন দেওয়া হয়নি। আর এ সুযোগে সিএনজিসহ বিভিন্ন পরিবহন যাত্রীদের জিম্মি করে ইচ্ছেমতো ভাড়া আদায় করছে। 

গোলাপশাহ মাজার স্ট্যান্ডে কথা হয় মো. কফিল উদ্দিন নামের এক সিএনজি চালকের সঙ্গে।  তিনি বলেন, লকডাউনের মধ্যে অসুস্থ ছিলাম। আজ সিএনজি নিয়ে বের হলাম। রাস্তায় পুলিশ ধরলে ৮০০ টাকার মামলা দেয়।  তাই যাত্রীদের কাজ থেকে বাড়তি টাকা নিচ্ছি।  আমাদের পরিবার আছে, বাড়তি টাকা না নিলে খাব কি? ভাড়া বেশি রাখার কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, রোজা রেখে সিএনজি চালানো অনেক কষ্টের। ঝুঁকি নিয়ে চালাই।  তাই ভাড়া বেশি নিচ্ছি।

ফুলবাড়িয়া চেকপোস্টে দায়িত্বরত ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) উপ-পরিদর্শক (এসআই) এন সবুজ বলেন, পরিবহন সংকটের কারণে বিভিন্ন পরিবহন বাড়তি ভাড়া নিচ্ছে।  সকালে দুই যাত্রী অভিযোগ করেছেন এবং তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছি।

আসাদ/সাইফ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়