Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||  আশ্বিন ১১ ১৪২৮ ||  ১৭ সফর ১৪৪৩

কঠোর লকডাউন: হেঁটে বাসায় ফিরছেন মানুষ

নিজস্ব প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১১:৫৯, ২৩ জুলাই ২০২১  
কঠোর লকডাউন: হেঁটে বাসায় ফিরছেন মানুষ

পরিবার পরিজনের সঙ্গে ঈদ আনন্দ কাটিয়ে ঢাকায় ফিরেছে মানুষ। ঈদুল আজহার ছুটির পর শুক্রবার (২৩ জুলাই) সকাল ৬টা থেকে আগামী ৫ আগস্ট পর্যন্ত কঠোর লকডাউনের খবরে গতকাল রাত অবধি ঢাকা ফিরেছেন মানুষ। কিন্তু শুক্রবার ভোর থেকে সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ। তাই বিপাকে পড়তে হয়েছে ঢাকায় ফেরত অনেককেই।

শুক্রবার সকালেও মানুষ ভ্যান ও রিকশায় চড়ে যার যার বাসায় যাচ্ছেন। কেউ হেঁটে গন্তব্যে ফিরছেন। কঠোর লকডাউনের কারণে সকাল থেকেই রাস্তাঘাটে নিরবতা। ফাঁকা রাস্তায় রিকশা, ভ্যান, অ্যাম্বুলেন্স, পিকআপ ছাড়া তেমন কোনো যানবাহন দেখা যায়নি।

খুরশিদ আলম নামের এক কর্মজীবী রাইজিংবিডিকে বলেন, বৃহস্পতিবার বিকেলে বাড়ি থেকে বের হয়েছি। গাড়ি পেতে রাত হয়েছে। ঢাকায় ফিরেছি ফজরের সময়। কিন্তু কোনো গাড়ি পেলাম না। অনেকক্ষণ অপেক্ষা করে একটি ভ্যান গাড়ি পেয়েছি। তাতেই চড়ে পরিবার নিয়ে আজিমপুর বাসায় যাচ্ছি। আগামীকাল থেকে অফিস করতে হবে। তাই কষ্ট করেই আগে চলে আসা। আমার অফিস বন্ধ নেই। 

মামুন নামের একজন রাজধানীতে ফেরার দুর্ভোগ প্রসঙ্গে বললেন, 'আমার বাসা রাজধানীর কলাবাগান এলাকায়। কক্সবাজার থেকে ভোরবেলায় ঢাকায় এসে পৌঁছেছি। সায়েদাবাদ থেকে কোনো গাড়ি না পেয়ে হেঁটেই রওয়ানা দিলাম। সাথে তিন সহকর্মী। রিকশাওয়ালা ৪০০ টাকা ভাড়া চায়। ভাবলাম কয়েকজন আছি হেঁটেই চলে যাই। অবশেষে আল্লাহর নামে রওনা দিলাম।' 

সমির উদ্দিন নামের এক বেসরকারি কর্মজীবী বললেন, 'ঈদে যেহেতু বাড়ি যাওয়ার সুযোগ করে দিয়েছে সরকার, চাইলে আর দুটো দিন সুযোগ দিতে পারতো। শুক্র-শনিবার বাস সার্ভিস চালু থাকলে সবাই শান্তিপূর্ণভাবে ঢাকায় ফিরতে পারতো। সবকিছুই কেন জানি অপরিকল্পিত হচ্ছে। যাদের টাকা পয়সা নেই এমন মানুষ ডাবল ভাড়া দিয়ে হলেও ঢাকায় ফিরছে। এটা পুরাই অমানবিক।'

ঈদুল আজহার সময় মানুষের চলাচল ও পশুরহাটে কেনাবেচার বিষয় বিবেচনায় নিয়ে ১৪ জুলাই মধ্যরাত থেকে ২৩ জুলাই সকাল ৬টা পর্যন্ত লকডাউন শিথিল করেছিল সরকার। এ সময়সীমা শেষ হওয়ার পর আজ সকাল ৬টা থেকে শুরু হলো কঠোর লকডাউন। এ লকডাউন বহাল থাকবে ৫ আগস্ট মধ্যরাত পর্যন্ত। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন জানিয়েছেন, ঈদের পরের লকডাউন কঠোর থেকে কঠোরতর হবে। আগের লকডাউনে গার্মেন্টস খোলা থাকলেও এবার সবকিছু বন্ধ। কঠোর লকডাউনের আওতায় আসবে সারাদেশ। বন্ধ থাকবে গার্মেন্টস,শিল্প-কলকারখানা সহ সরকারি-বেসরকারি সব প্রতিষ্ঠান।

ঢাকা/ইয়ামিন/এমএম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়