Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     শনিবার   ১৬ অক্টোবর ২০২১ ||  কার্তিক ১ ১৪২৮ ||  ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

বজ্রপাতে মৃত‌্যু কমাতে ৩০০ কোটি টাকার প্রকল্প

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:৫৪, ১৪ অক্টোবর ২০২১  
বজ্রপাতে মৃত‌্যু কমাতে ৩০০ কোটি টাকার প্রকল্প

রাজধানীর আইডিইবি ভবনে সেমিনারে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান জানিয়েছেন, বজ্রপাতে মৃত্যু কমিয়ে আনতে তালগাছ লাগানোর পাশাপাশি বজ্রপাতনিরোধক ছাউনি নির্মাণে ৩০০ কোটি টাকার প্রকল্প হাতে নিয়েছে সরকার।

বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) রাজধানীর কাকরাইলে আইডিইবি ভবনে ‘বজ্রপাতজনিত জাতীয় দুর্যোগের ক্ষয়ক্ষতি থেকে জানমাল রক্ষায় করণীয়’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ তথ‌্য জানান তিনি।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘বজ্রপাতে মৃত্যু কমাতে তালগাছ লাগানোর পাশাপাশি এবার লাইটার অ্যারেস্টার সম্বলিত বজ্রপাতনিরোধক কংক্রিটের ছাউনি (শেল্টার) নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। দেশের হাওরাঞ্চলসহ বজ্রপাতপ্রবণ ২৩ জেলায় এসব ছাউনি নির্মাণে ৩০০ কোটি টাকার প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে।’

প্রতিমন্ত্রী জানান, প্রাথমিকভাবে (পাইলট প্রকল্প) হাওর এলাকায় ১ কিলোমিটার পরপর বজ্রপাতনিরোধক কংক্রিটের ছাউনি নির্মাণ করা হবে। প্রতিটি ছাউনির সম্ভাব্য নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছে ৩ লাখ ২৫ হাজার টাকা। এক কিলোমিটার অন্তর অন্তর নির্মাণ করা হবে একেকটি শেল্টার, যাতে মেঘের গুড়ুম গুড়ুম আওয়াজ পেলেই মাঠের কৃষকসহ মানুষজন শেল্টারে আশ্রয় নিতে পারেন। প্রতিটি শেল্টারে লাইটার অ্যারেস্টার বসানো হবে।

প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে বজ্রপাতে প্রাণহানির সংখ্যা কমবে, জানিয়ে এনামুর রহমান বলেন, ‘বজ্রপাত ঠেকানো সম্ভব নয়। তবে, মৃত্যুর হার কমিয়ে আনতে আমরা তিনটি বিষয়কে অগ্রাধিকার দিচ্ছি। প্রথমটি হলো—আরলি ওয়ার্নিং সিস্টেম। বজ্রপাতের ৪০ মিনিট আগেই সংকেত দেবে সেই যন্ত্র । দ্বিতীয় হলো—বজ্রপাতনিরোধক কংক্রিটের শেল্টার নির্মাণ এবং তৃতীয় হলো—জনসচেতনতা বাড়ানো।’

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন মোয়াজ্জেম হোসেন রতন এমপি, রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক এমপি, এনামুল হক এমপি, সেভ দ্য সোসাইটি অ‌্যান্ড ঠান্ডারস্টর্ম অ্যাওয়ারনেস ফোরামের সভাপতি অধ‌্যাপক ড. কবিরুল বাশার এবং প্রকৃতি ও জীবন ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মুকিত মজুমদার বাবু। অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন আইডিইবি রিসার্চ অ্যান্ড টেকনোলজিক্যাল ইনস্টিটিউটের রিসার্চ ফেলো প্রকৌশলী মো. মনির হোসেন।

নঈমুদ্দীন/রফিক

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ