Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     শনিবার   ০৪ ডিসেম্বর ২০২১ ||  অগ্রহায়ণ ২০ ১৪২৮ ||  ২৭ রবিউস সানি ১৪৪৩

১২ কিলোমিটার নদীতীর সংরক্ষণে ৩১৯ কোটি টাকার প্রকল্প

নিজস্ব প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:২৫, ১৭ অক্টোবর ২০২১  
১২ কিলোমিটার নদীতীর সংরক্ষণে ৩১৯ কোটি টাকার প্রকল্প

ফাইল ফটো

শরীয়তপুর ও মাদারীপুরের তিন উপজেলায় ১১.৯৪ কিলোমিটার নদীর তীর সংরক্ষণে ব্যয় হবে ৩১৯ কোটি ৩২ লাখ টাকা। এজন্য ‘শরীয়তপুর জেলার কীর্তিনাশা নদীর ডান ও বাম তীর রক্ষা’ শীর্ষক প্রকল্প বাস্তবায়ন করবে বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড। 

পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের এই প্রকল্পটি বাস্তবায়নে সম্পূর্ণ অর্থ সরকারি কোষাগার থেকে ব্যয় করা হবে।

পরিকল্পনা কমিশনের সংশ্লিষ্টরা জানায়, প্রকল্পটির মাধ্যমে নদীর তীর সংরক্ষণের মাধ্যমে ১১.৯৪ কিলোমিটার নদী ভাঙন রোধ ও বন্যা নিয়ন্ত্রণ করা হবে। একই সঙ্গে বিদ্যালয়, হাট-বাজার, রাস্তা, ব্রিজ, ফসলি জমি, ঘর-বাড়ি, ধর্মীয় উপাসনালয়, সরকারি-বেসরকারি স্থাপনা ইত্যাদি নদী ভাঙন থেকে রক্ষা করতে প্রকল্পটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। 

প্রকল্পটি সর্বশেষ একনেক সভায় অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। চলতি বছরের জুলাই থেকে জুন ২০২৪ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের সংশ্লিষ্টরা জানায়, ১১.৯৪ কিলোমিটার নদীতীর সংরক্ষণমূলক কাজ এবং ২টি মোটরাইজড রেগুলেটর স্থাপন করাই হচ্ছে প্রকল্পের মূল কাজ। এছাড়া, প্রকল্পটি অষ্টম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনায় পানি সম্পদ সেক্টরের অন্যতম উদ্দেশ্য ও লক্ষ্য হচ্ছে নদীতীর সংরক্ষণ, নদী বা খাল খনন-পুনঃখননের মাধ্যমে বন্যা নিয়ন্ত্রণ এবং নদী ভাঙন রোধ করে দুর্যোগ ঝুঁকি প্রশমন, মানুষের জীবনমান উন্নয়ন ও কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধি করা। প্রকল্পটি অষ্টম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনার লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যের সঙ্গে সংগতিপূর্ণ।

পরিকল্পনা কমিশনের কৃষি, পানি সম্পদ ও পল্লী প্রতিষ্ঠান বিভাগের সদস্য রমেন্দ্র নাথ বিশ্বাস বলেন, ‘প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে কীর্তিনাশা নদীর ডান ও বাম তীর নদীর ভাঙন থেকে রক্ষা করা সম্ভব হবে। যার মাধমে সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন স্থাপনা সুরক্ষিত হবে। মূলত নদী তীর সংরক্ষণের ফলে প্রকল্প এলাকার আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন ঘটবে। এজন্য প্রকল্পটি একনেক সভায় অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।’

ঢাকা/হাসিবুল/ইভা 

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়