Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     মঙ্গলবার   ৩০ নভেম্বর ২০২১ ||  অগ্রহায়ণ ১৬ ১৪২৮ ||  ২৩ রবিউস সানি ১৪৪৩

আপনার সামান‌্য প্রচেষ্টায় বেঁচে যেতে পারে অয়ন

নিউজ ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২২:০৯, ২৮ অক্টোবর ২০২১  
আপনার সামান‌্য প্রচেষ্টায় বেঁচে যেতে পারে অয়ন

অয়ন ভট্টাচার্য

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাপচিত্র বিভাগের ২০০৯-১০ সেশনের সাবেক শিক্ষার্থী অয়ন ভট্টাচার্য। জটিল কার্ডিয়াক ভাস্কুলার রোগ- ‘Dissecting aneurysm of descending and abdominal aorta’-এ আক্রান্ত। 

পড়াশোনা শেষে একটি বিজ্ঞাপনী সংস্থায় কাজ শুরু করেছিলেন অয়ন। তবে অসুস্থ হয়ে পড়ায় সেটি ছাড়তে হয়েছে।

ময়মনসিংহের পণ্ডিতবাড়ি এলাকার রবীন্দ্র নারায়ন ভট্টাচার্য ও ডলি রানী রায়ের ছেলে অয়ন। দীর্ঘদিন ধরেই অসুস্থ তিনি। টানা চিকিৎসার পর সম্প্রতি তার এই জটিল রোগের বিষয়টি জানা গেছে। 

অয়নের বাবা একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন। মা গৃহীনী। অয়নকে পুরোপুরি সুস্থ করতে এখন সার্জারি করা প্রয়োজন। এতে খরচ হবে প্রায় ৩৫-৪০ লাখ টাকা। পরিবারের পক্ষে এই খরচ বহন করা সম্ভব নয়।

অয়নের বাবা রবীন্দ্র ভট্টাচার্য বলেন, ‘অয়নের কার্ডিও ভাস্কুলার সার্জারি করাতে হবে। ভারতের এপোলো হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা করাতে পরামর্শ দিয়েছেন ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশনের চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. মেজর (অব.) এম কামরুল ইসলাম। এজন্য প্রায় ৩৫-৪০ লাখ টাকা প্রয়োজন। টাকা যা ছিল এখন পর্যন্ত ছেলের চিকিৎসায় সব ব্যয় হয়ে গেছে। বিক্রি করার মতো আমার আর কিছুই নেই।’

তিনি আরও বলেন, ‘ছেলের চিকিৎসায় যা ছিল সবই ব্যয় করেছি। এখন সংসারও চলছে না। টাকার অভাবে তাকে বিদেশে নিয়ে চিকিৎসা করাতে পারছি না। অথচ চিকিৎসকের মতে দ্রুত সার্জারি করাতে না পারলে যেকোনো সময় অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটে যেতে পারে। কখনও ভাবিনি কারো কাছে কোনো ব‌্যাপারে হাত পাততে হবে। আজ ছেলের জন‌্য হৃদয়বান ব‌্যক্তিদের কাছে মানবিক সহায়তার আবেদন জানাচ্ছি। আপনাদের সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় আমার ছেলেটি হয়েতো বেঁচে যেতে পারে। আবার হয়ে উঠতে পারে সুস্থ-স্বাভাবিক।’

একজন নিরুপায় বাবাকে সহায়তা করতে এবং অয়নের জীবন ফিরিয়ে দেওয়ার মহৎ উদ‌্যোগে সামিল হতে পারেন-

বিকাশ : ০১৬৩৯-৭৮৩৯২৯ (অয়ন ভট্টাচার্য)

ব্যাংক অ্যাকাউন্ট : অয়ন ভট্টাচার্য
একাউন্ট নং : ১৮-১৩৭৬৫২৪-০১
স্ট্যান্ডার্ড চার্টাড ব্যাংক, বসুন্ধরা শাখা, ঢাকা।

ঢাকা/সনি

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়