ঢাকা     মঙ্গলবার   ১৬ আগস্ট ২০২২ ||  ভাদ্র ১ ১৪২৯ ||  ১৭ মহরম ১৪৪৪

আউটসোর্সিং কর্মচারীদের রাজস্ব খাতে স্থানান্তরের দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:৫৪, ৩ ডিসেম্বর ২০২১  
আউটসোর্সিং কর্মচারীদের রাজস্ব খাতে স্থানান্তরের দাবি

বিভিন্ন সরকারি দপ্তর-অধিদপ্তরে আউটসোর্সিং প্রথা বাতিলের দাবি জানিয়েছে ‘স্বাধীনতা আউটসোর্সিং কর্মচারী কল্যাণ পরিষদ’। আউটসোর্সিং কর্মচারীদের রাজস্ব খাতে স্থানান্তর ও চাকরি স্থায়ী করার দাবিও জানিয়েছে সংগঠনটি।

শুক্রবার (৩ ডিসেম্বর) রাজধানীর সচিবালয় লিংক রোডে মানববন্ধনে উল্লিখিত দাবি জানায় সংগঠনটি।

মানববন্ধনে সংগঠনের সভাপতি মো. মাহবুবুর রহমান আনিস এবং সাধারণ সম্পাদক এম এম জীবনসহ শতাধিক আউটসোর্সিং কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ‘আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে সরকারি দপ্তর-অধিদপ্তরে নিয়োজিত কর্মচারীদের দুঃখ অনেক। টেন্ডার জটিলতায় অনেকের চাকরি চলে যায়। বছর শেষে জুন মাসে চাকরি নবায়ন করার নামে প্রচুর টাকা ঘুষ দাবি করে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান। সেটি দিতে না পারলে চাকরি চলে যায়। প্রতি মাসে ঠিকমতো বেতন পাই না, কখনো কখনো ৫-৬ মাস, ১-২ বছরও বেতন বকেয়া থাকে।’

তারা বলেন, ‘মাতৃত্বকালীন ছুটি থেকেও বঞ্চিত হয় আউটসোর্সিংয়ে কাজ করা নারীরা। মাতৃত্বকালীন সময় কর্মস্থলে উপস্থিত না হতে পারলে তাকে চাকরিচ্যুত করা হয়।’ 

পরিষদের অন্য দাবিগুলো হলো—

আউটসোর্সিং নীতিমালা অনুযায়ী সেবা নেওয়া ও সেবা ক্রয়কারীর মধ্যে ঠিকাদারকে না রাখা।

আউটসোর্সিং প্রথা বন্ধ করে আউটসোর্সিং ও দৈনিক মজুরির ভিত্তিতে নিয়োজিত সব কর্মচারীর চাকরি পর্যায়ক্রমে বয়স শিথিল করে স্থায়ী করা।

সরকারি দপ্তর-অধিদপ্তর-পরিদপ্তরে বিনা অপরাধে বা ঠিকাদারকে ঘুষ না দিতে পারায় যাদের চাকরিচ্যুত করা হয়েছে, তাদের চাকরিতে পুর্নবহাল করা।

উৎসব বোনাসসহ সব ভাতা দেওয়া ও আউটসোর্সিংয়ে কর্মরত সব কর্মচারীর বকেয়া বেতন দ্রুত পরিশোধ করা।

ডিজিটাল বাংলাদেশে দাস প্রথায় মানব বেচাকেনা না করা।

মামুন/রফিক

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়