ঢাকা     বুধবার   ১৮ মে ২০২২ ||  জ্যৈষ্ঠ ৪ ১৪২৯ ||  ১৬ শাওয়াল ১৪৪৩

‘মেশিনে ভোট দেওয়া সোজা’

কেএমএ হাসনাত, মির্জাপুর থেকে || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:৩১, ১৬ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ১৮:৩১, ১৬ জানুয়ারি ২০২২
‘মেশিনে ভোট দেওয়া সোজা’

টাঙ্গাইল-৭ আসনের উপনির্বাচনে ভোট দিয়েছেন কুলসুম বিবি

জীবনের শেষ ভোটটা নৌকায় দেওয়ার ইচ্ছে নিয়ে মির্জাপুরের আজগানা ইউনিয়নের দুর্গম পাহাড়ি এলাকা থেকে কেন্দ্রে এসেছিলেন ৯০ বছর বয়সের কুলসুম বিবি। ভোট দেওয়ার পর তিনি রাইজিংবিডিকে বলেছেন, ‘মেশিনে ভোট দেওয়া খুব সোজা। এত কম সময়ে ভোট শেষ হইয়া গেল। আগে তো ঘণ্টার পর ঘণ্টা খাড়াইয়া থাইকা ভোট দেওন লাগত। এহন আর কষ্ট করতে হইবো না। শেখের বিটি বাঁইচা থাক।’

রোববার (১৬ জানুয়ারি) টাঙ্গাইল-৭ (মির্জাপুর) আসনে উপনির্বাচনে আজগানা ইউনিয়নের বংশাই স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে ভোট দেন কুলসুম বিবি। ছেলের বউয়ের হাত ধরে লাঠিতে ভর করে ভোট দিতে আসেন তিনি। বয়সের ভারে ন্যুব্জ হয়ে পড়লেও ভোট দিতে পিছপা হননি তিনি।

প্রায় দুই কিলোমিটার মাটির রাস্তায় হেঁটে আসার পর রিকশাভ্যানে চড়ে ভোট কেন্দ্রে আসেন কুলসুম বিবি। তার হাতে ধরা ছিল আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী খান আহমেদ শুভর একটি লিফলেট। কেন্দ্রে ঢোকার সময় হাতে ধরা লিফলেটটি রেখে যেতে বলেন এক আনসার সদস্য। এতে রেগে যান কুলসুম। তিনি বলেন, ‘এই কাগজ না নিয়ে গেলে ভোট দিতে পারুম না। আমার সাথে মস্করা করবা না।’

কুলসুম বলেন, ‘আমি হুনছি, ফারুক সাবের ছাওয়াল ভোটে দাঁড়াইছে। তারে ভোট দিমু না তো কারে দিমু। এইডাই হয়তো আমার শেষ ভোট। আর কয়দিন বাঁচুম, জানি না। শেষ ভোটটা আমি নৌকা মার্কাতেই দিমু। তয় হুনছি, এবার বলে মেশিনে ভোট দেওন লাগবো।’

তিনি আরও বলেন, ‘শেখ সাবরে নৌকায় ভোট দিছিলাম। তার পর থাইকা আর কোনো মার্কায় ভোট দেই নাই।’

হাসনাত/রফিক

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়