ঢাকা     বুধবার   ২৫ মে ২০২২ ||  জ্যৈষ্ঠ ১১ ১৪২৯ ||  ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩

জুরাইনে অবৈধ বিলবোর্ড ও খিলগাঁওয়ে মাছ বাজার উচ্ছেদ

নিজস্ব প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২৩:১৮, ১৭ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ২৩:২২, ১৭ জানুয়ারি ২০২২
জুরাইনে অবৈধ বিলবোর্ড ও খিলগাঁওয়ে মাছ বাজার উচ্ছেদ

রাজধানীর জুরাইনে অবৈধ বিলবোর্ড ও খিলগাঁওয়ের তিলপাপাড়ায় অবৈধ মাছ বাজার উচ্ছেদ করেছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ভ্রাম্যমাণ আদালত। অভিযানে সর্বমোট ৩৬ মামলায় প্রায় ২ লাখ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

সোমবার (১৭ জানুয়ারি) দক্ষিণ সিটির প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা রাসেল সাবরিনের তত্ত্বাবধানে কর্পোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে ধোলাইপাড় মোড় হতে জুরাইন রেলগেট সিটি কর্পোরেশন মার্কেটের উভয় পাশে অবৈধ বিলবোর্ড অপসারণ এবং কর্পোরেশনের সম্পত্তি কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ মুনিরুজ্জামান ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুস সামাদ শিকদারের যৌথ নেতৃত্বে খিলগাঁও তিলপাপাড়ায় রাস্তার উপর অবৈধভাবে প্রতিষ্ঠিত মাছ বাজার উচ্ছেদ করা হয়।

জুরাইনের অভিযানে ছোট-বড় ২০টি অবৈধ বিলবোর্ড অপসারণ করা হয়। এ ছাড়া অভিযানকালে মূল রাস্তা ও ফুটপাত দখল করে গড়ে ওঠা ২ শতাধিক অবৈধ অস্থায়ী দোকান-পাট উচ্ছেদ করা হয়। অভিযানের সময় মূল রাস্তা ও ফুটপাত দখল করে দোকান-পাট গড়ে তোলায় স্থানীয় সরকার (সিটি কর্পোরেশন) আইন, ২০০৯ এর ৯২(৭) ধারায় ৪টি অবৈধ স্থাপনার প্রতিটিকে ৩ হাজার টাকা করে মোট ৪ মামলায় ১২ হাজার টাকা, ট্রেড লাইসেন্স ছাড়া ব্যবসা করায় ১টি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে স্থানীয় সরকার (সিটি কর্পোরেশন) আইন, ২০০৯ এর ৯২(৩) ধারায় ১ মামলায় ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

এ ছাড়া মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাবার পরিবেশন করায় একটি খাবার হোটেলের বিরুদ্ধে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন, ২০০৯ এর ৩৮ ও ৫৩ ধারায় ১ মামলায় ৫০০০ টাকা এবং সরকারি বিধি-নিষেধ উপেক্ষা করে মাস্কবিহীন ঘুরে বেড়ানোর অপরাধে দণ্ডবিধি, ১৮৬০ এর ২৬৯ ধারায় ১ ব্যক্তিকে ১ মামলায় ২০০ টাকা অর্থদণ্ড আরোপ করা হয়।

অপরদিকে তিলপাপাড়ার অভিযানে রাস্তা ও ফুটপাত দখল করে অবৈধভাবে মাছ বাজার প্রতিষ্ঠা করায় স্থানীয় সরকার সিটি কর্পোরেশন আইনের ৯২ এর (৭), (৮) এবং ৯৩ ধারা অনুযায়ী ৪ ব্যবসায়ীর প্রত্যেককে ৩০ হাজার টাকা করে ৪ মামলায় ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড আরোপ করা হয়। এ সময় মাছ বাজারটি পুরোপুরি উচ্ছেদ করা হয়। এ ছাড়া ২৫ ফার্নিচার ব্যবসায়ীর প্রত্যেককে ২ হাজার টাকা করে ২৫টি মামলায় ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড আরোপ করা হয়।

অভিযান প্রসঙ্গে কর্পোরেশনের প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা রাসেল সাবরিন বলেন, জনদুর্ভোগ লাগবে অবৈধ বিলবোর্ডের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে। আগামীকাল আরও বৃহৎ পরিসরে জুরাইন এলাকায় অবৈধ বিলবোর্ড উচ্ছেদের লক্ষ্যে অভিযান পরিচালনা করা হবে।

আসাদ/কেআই

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়