ঢাকা     বুধবার   ২৫ মে ২০২২ ||  জ্যৈষ্ঠ ১১ ১৪২৯ ||  ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩

৪৮ ঘণ্টায় রামচন্দ্রপুর খাল উদ্ধার, শুরু হ‌য়েছে খনন

জ্যেষ্ঠ প্রতি‌বেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:৪২, ২৫ জানুয়ারি ২০২২  
৪৮ ঘণ্টায় রামচন্দ্রপুর খাল উদ্ধার, শুরু হ‌য়েছে খনন

রাজধানীর মোহাম্মদপুর ব‌সিলার লাউতলা এলাকায় রোববার (২৩ জানুয়ারি) পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই রামচন্দ্রপুর খাল উদ্ধার অভিযানে নামে ঢাকা উত্তর সিটি কর‌পো‌রেশন (ডিএনসিসি)। 

প্রথম এবং দ্বিতীয় দিনের উদ্ধার অভিযানে দুটি বহুতল ভবন, একটি ট্রাক স্ট্যান্ড ও একটি কাঁচা বাজারসহ খালের জায়গার ওপর গড়ে ওঠা বেশ কয়েকটি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়।

উচ্ছেদের তৃতীয় দিন মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) বেলা সাড়ে ১১টা থেকে ট্রাক স্ট্যান্ড উচ্ছেদ করে খাল খননের কাজ শুরু করে। এ সময়ে খালের ওপর থাকা অবৈধ স্থাপনাগুলো উচ্ছেদ করতে সিটি কর্পোরেশন থেকে কাউকে বৈধ কোনো নোটিশ দিয়ে পূর্বে জানিয়ে দেওয়া হবে না বলে জানান ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম।

আজ (মঙ্গলবার) রামচন্দ্রপুর খালের জায়গা উদ্ধার করে খাল খননের কাজ পরিদর্শন করতে বেলা ১২টায় উপস্থিত হন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী তাজুল ইসলাম। এসময় বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে বিগ্রেডিয়ার জেনারেল আমিরুল ইসলাম খালের পুরাতন চিত্র এবং দখল হওয়ার পর খালের বর্তমান চিত্র দেখান। 

খাল উদ্ধার অভিযান পরিদর্শনে গিয়ে মন্ত্রী জানান, ঢাকায় দখল হওয়া সব কয়টি খালের মধ্যে ২৬টি খালকে উদ্ধার করতে ইতোমধ্যে একটি প্রকল্প হাতে নিয়ে ঢাকার দুই সিটিকে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ প্রকল্পের মধ্যে খালগুলোর দুপাশে দৃষ্টিনন্দন পার্ক, ওয়াকওয়ে, শিশুদের জন্য খেলার জায়গা ও বয়স্ক নাগরিকদের জন্য ব্যায়ামের জায়গা এবং সাইকেলের লেন গড়ে তোলা হবে। খালগুলো উদ্ধার করতে সরকারের পক্ষ থেকে যে কোনো সহায়তা দেওয়া হবে। ২৬টি খাল ছাড়াও বাকি খালগুলো উদ্ধারের জন্য সিটি কর্পোরেশনের কাছে দায়িত্ব হস্তান্তর করা হবে। 

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা ঢাকার জলাবদ্ধতা নিরসনে মৃত ৪২টি খালকে উদ্ধারে কাজ করছি। মৃত এই খালগুলি আমরা ক্রমান্বয়ে উদ্ধার করব। যে স্থাপনাই থাকুক না কেন, আমরা সব স্থাপনা উচ্ছেদ করে খাল উদ্ধার করব।’

তিনি বলেন, ‘আমরা যখন এ খালটি উদ্ধারে এসেছি, তখন খালের জায়গা দখল করে গড়ে তোলা ট্রাক স্ট্যান্ড বেদখল করতে গিয়ে আমাদের ইট পাটকেল খেতে হয়েছে। আমরা বিভিন্নজনের দ্বারা বাধার শিকার হয়েছি। কিন্তু আমরা পিছপা হইনি। যারাই খালের জায়গা দখল করে যা যা স্থাপনা করেছে, আমরা তা উচ্ছেদ করে খাল উদ্ধার করবই। আমরা ঢাকার প্রতিটি খালকে উদ্ধার করতে সরকারের কাছে ১০০ কোটি টাকা বরাদ্ধের প্রস্তাব করেছি।’ 

এসময় স্থানীয় এমপি আলহাজ্ব সাদেক খান ও স্থানীয় ৩৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আসিফ আহমেদ রামচন্দ্রপুরের এ খালটির ওপর গড়ে তোলা পার্কের নাম মেয়র আতিকুল ইসলাম পার্ক রাখার প্রস্তাব করেন।

এসময় স্থপতি মোবাশ্বের হোসেন, স্থানীয় সংসদ সদস্য সাদেক খান (এমপি), ঢাকা মহানগর উত্তরের আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ বজলুর রহমান ও স্থানীয় ৩৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আসিফ আহমেদসহ সিটি কর্পোরেশনের অনেক কর্মকর্তা কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন।

মেয়া/সনি

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়