ঢাকা     শুক্রবার   ০১ জুলাই ২০২২ ||  আষাঢ় ১৭ ১৪২৯ ||  ০১ জিলহজ ১৪৪৩

ফল উৎপাদনে সহযোগিতা করবে ফিলিপাইন, আলু নেবে শ্রীলঙ্কা

নিজস্ব প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:২২, ১১ মার্চ ২০২২   আপডেট: ১৬:২৩, ১১ মার্চ ২০২২
ফল উৎপাদনে সহযোগিতা করবে ফিলিপাইন, আলু নেবে শ্রীলঙ্কা

বাংলাদেশে উন্নত মানের রপ্তানিযোগ্য আনারসের জাত এমডি-২, জি-নাইন কলা, মাকাপুনো নারকেল এবং ডেলমন চা উৎপাদনে সহযোগিতা করবে ফিলিপাইন। এ বিষয়ে শিগগিরই বাংলাদেশ ও ফিলিপাইনের মধ্যে সমঝোতা স্মারক সই করা হবে।

শুক্রবার (১১ মার্চ) রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাকের সঙ্গে ফিলিপাইনের কৃষিমন্ত্রী উইলিয়াম ডি ডারের বৈঠকে এ তথ্য জানান হয়। ওই হোটেলে খাদ্য ও কৃষি সংস্থার (এফএও) ৩৬তম এশিয়া-প্যাসিফিক আঞ্চলিক সম্মেলনের সমাপনী দিনের সেশন শুরুর আগে দুই দেশের কৃষিমন্ত্রীর মধ্যে এ বৈঠক হয়।

বাংলাদেশ ইতোমধ্যে ফিলিপাইন থেকে এমডি-২ জাতের আনারসের ৩ লাখ চারা এনে চাষ শুরু করেছে। আরও ৪ লাখ চারা আনার প্রক্রিয়া চলছে। আগের চেয়ে আরও কম দামে ও সহজ শর্তে এ চারা বাংলাদেশকে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন ফিলিপাইনের কৃষিমন্ত্রী। এছাড়া, রপ্তানিযোগ্য সুস্বাদু জি-নাইন কলা, চা ও ধান চাষসহ কৃষি খাতে সহযোগিতা বাড়াতে সমঝোতা স্মারক সই করতে সম্মত হয়েছেন দুই মন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের কৃষি উন্নয়নে যেভাবে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে কাজ করছেন, তার উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেছেন ফিলিপাইনের কৃষিমন্ত্রী উইলিয়াম ডি ডার। তিনি বলেছেন, ‘বাংলাদেশের কৃষির উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পলিটিক্যাল উইল অ্যান্ড কমিটমেন্ট খুবই প্রশংসনীয়। তার নেতৃত্বে বাংলাদেশের কৃষি, অর্থনীতি ও মানবসম্পদ এখন শক্ত অবস্থানে আছে।’

কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক বাংলাদেশ থেকে আমের জাত ও ব্রি উদ্ভাবিত উচ্চ ফলনশীল ব্রি-৮৯ ধান নেওয়ার জন্য ফিলিপাইনের প্রতি আহ্বান জানান এবং ফিলিপাইনে গোল্ডেন রাইস চাষের অভিজ্ঞতা জানতে চান।

এ বিষয়ে ফিলিপাইনের মন্ত্রী জানান, তারা সে দেশে ইতোমধ্যে গোল্ডেন রাইস চাষের অনুমোদন দিয়েছে। বীজ উৎপাদনের কাজ এখন চলছে। এ বিষয়ে তাদের অভিজ্ঞতা বাংলাদেশের সঙ্গে শেয়ার করবে ও সহযোগিতা দেবে। উল্লেখ্য, বিশ্বে ফিলিপাইন একমাত্র দেশ যারা গোল্ডেন রাইস চাষের অনুমোদন দিয়েছে।

বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার কৃষিমন্ত্রীদের বৈঠক

পরে শ্রীলঙ্কার কৃষিমন্ত্রী মিথালাওয়ে মাহিনদানার আলুথগামেজের সঙ্গে বৈঠক করেন কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক। এ সময় বাংলাদেশ থেকে আলু আমদানির আগ্রহ প্রকাশ করেন শ্রীলঙ্কার কৃষিমন্ত্রী।

কৃষি খাতে সহযোগিতার বিষয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে শ্রীলঙ্কার দুটি সমঝোতা স্মারক রয়েছে। বৈঠকে এ সমঝোতা স্মারক বাস্তবায়নে অ্যাকশন প্ল্যান গ্রহণে সম্মত হন দুই মন্ত্রী।

শ্রীলঙ্কার কৃষিমন্ত্রী বাংলাদেশে চা ও দারুচিনি রপ্তানি করে বার্টার পদ্ধতিতে বাংলাদেশের আলু নেওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেন। তিনি জানান, চীনের সঙ্গে তাদের বার্টার সিস্টেম চালু আছে। বাংলাদেশ বার্টার সিস্টেমের সম্ভাবনা বিবেচনা করে দেখবে বলে জানান কৃষিমন্ত্রী ড. রাজ্জাক।

বৈঠকগুলোতে কৃষি সচিব মো. সায়েদুল ইসলাম, অতিরিক্ত সচিব মো. রুহুল আমিন তালুকদার উপস্থিত ছিলেন।

এএএম/রফিক

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়