ঢাকা     শুক্রবার   ০১ জুলাই ২০২২ ||  আষাঢ় ১৭ ১৪২৯ ||  ০১ জিলহজ ১৪৪৩

গাফ্ফার চৌধুরীর মরদেহ দেশে আসবে বৃহস্পতিবার

কূটনৈতিক প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২২:২৫, ২০ মে ২০২২   আপডেট: ২২:২৫, ২০ মে ২০২২
গাফ্ফার চৌধুরীর মরদেহ দেশে আসবে বৃহস্পতিবার

আবদুল গাফ্ফার চৌধুরী (ফাইল ফটো)

প্রবীণ সাংবাদিক আবদুল গাফ্ফার চৌধুরীর মরদেহ বুধবার (২৫ মে) যুক্তরাজ্যের লন্ডন থেকে ঢাকার উদ্দেশে পাঠানো হবে। আশা করা হচ্ছে, বৃহস্পতিবার (২৬ মে) তার মরদেহ ঢাকায় পৌঁছাবে।

শুক্রবার (২০ মে) রাজধানীর ইস্কাটনে সরকারি বাসভবনে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এসব তথ্য জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

তিনি জানান, আবদুল গাফ্ফার চৌধুরীর মরদেহ দেশে আসার পর জাতীয় শহীদ মিনারে সর্বসাধারণের শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে জানাজা করা হবে। তবে, কোথায় জানাজা হবে, তা এখনও চূড়ান্ত হয়নি।

তিনি বলেন, ‘ব্রিটিশরা সোমবারে অফিস খুলে হাসপাতাল থেকে সার্টিফিকেট দিলে পরবর্তী ফ্লাইট হবে বুধবার। বুধবারে হয়ত লাশটা পাঠাবে। বৃহস্পতিবার আমরা ঢাকায় পাব।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে এ বিষয়ে আলাপের প্রসঙ্গ টেনে মন্ত্রী বলেন, ‘আমি নেত্রীর সঙ্গে আলাপ করেছি। তিনি বলেছেন, আপনারা আমাদের হাইকমিশনকে সাপোর্ট দিয়ে যান।’

গাফ্ফার চৌধুরীর মরদেহ দেশে এলে শহীদ মিনারে একটা অনুষ্ঠান আয়োজন করা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘কেউ কেউ বলছেন টেন্ট হবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শহীদ মিনারের পাশে। ওখান থেকে নিয়ে এসে মসজিদে জানাজা।’

বৃহস্পতিবার যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশ হাইকমিশনের প্রেস মিনিস্টার আশিকুন্নবী চৌধুরী জানিয়েছেন, গাফ্ফার চৌধুরীর অন্তিম ইচ্ছা অনুযায়ী ঢাকার মিরপুরে শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে স্ত্রীর পাশেই তাকে কবর দেওয়া হবে।

বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বার্তায় হাইকমিশন জানায়, সব প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে আবদুল গাফ্ফার চৌধুরীর মরদেহ আগামী সপ্তাহে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সে যত দ্রুত সম্ভব ঢাকায় পাঠানোর ব্যবস্থা করা হবে। তবে গাফ্ফার চৌধুরীর মরদেহ বাংলাদেশে নেওয়ার দিনক্ষণ হাসপাতালের ছাড়পত্রের ওপর নির্ভর করছে।

হাইকমিশন সূত্র জানিয়েছে, গাফ্ফার চৌধুরী ডায়াবেটিস, কিডনি রোগসহ বার্ধক্যজনিত নানা জটিলতায় ভুগছিলেন। গত প্রায় তিন মাস তিনি বার্নেট হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

আবদুল গাফ্ফার চৌধুরীর জন্ম ১৯৩৪ সালের ১২ ডিসেম্বর, বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জের উলানিয়া গ্রামে। ১৯৫৯ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন তিনি। স্কুলে পড়ার সময় কংগ্রেস নেতা দুর্গা মোহন সেন সম্পাদিত কংগ্রেস হিতৈষী পত্রিকায় কাজ শুরু করেন। ১৯৪৯ সালে তার প্রথম গল্প ছাপা হয় সওগাত পত্রিকায়। পরে দৈনিক ইনসাফ, দৈনিক সংবাদ, মাসিক সওগাত, মাসিক নকীব পত্রিকায় কাজ করেন। ১৯৫৬ সালে সহকারী সম্পাদক হিসেবে যোগ দেন দৈনিক ইত্তেফাকে। ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় তিনি জয় বাংলা, যুগান্তর ও আনন্দবাজার পত্রিকায় কাজ করেন।

সাহিত্যে অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে বাংলা একাডেমি পুরস্কার, ইউনেসকো পুরস্কার, বঙ্গবন্ধু পুরস্কার, মানিক মিয়া পদকসহ বিভিন্ন পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন গাফ্ফার চৌধুরী। বাংলাদেশ সরকার তাকে একুশে পদক ও স্বাধীনতা পুরস্কারে ভূষিত করেছে।

হাসান/রফিক

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়