ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||  আশ্বিন ৯ ১৪২৭ ||  ০৬ সফর ১৪৪২

ওয়ালটন জাতীয় লিগের পর্দা উঠছে বৃহস্পতিবার

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:১৬, ৯ অক্টোবর ২০১৯   আপডেট: ০৫:২২, ৩১ আগস্ট ২০২০
ওয়ালটন জাতীয় লিগের পর্দা উঠছে বৃহস্পতিবার

বিপ টেস্ট, ম্যাচ ফি, ভেন্যু, উইকেট, বল- গত এক সপ্তাহ দেশের ক্রিকেটাঙ্গনে এসব নিয়েই যত আলোচনা।

আলোচনার কারণ, দরজায় কড়া নাড়ছিল ওয়ালটন ২১তম জাতীয় ক্রিকেট লিগ। অপেক্ষার পালা শেষ। রাত পোহালেই শুরু হচ্ছে দেশের ঘরোয়া ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় মহাযজ্ঞ। মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হবে ঢাকা মেট্রো ও চট্টগ্রাম বিভাগ। আনুষ্ঠানিকভাবে এই ম্যাচ দিয়েই শুরু হচ্ছে জাতীয় ক্রিকেট লিগ। ম্যাচ শুরুর আগে টুর্নামেন্টের উদ্বোধন করবেন আয়োজকরা। 

জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা অংশগ্রহণ করায় এবার শুরু থেকেই টুর্নামেন্টটি আলো কাড়ছে। তামিম, মাহমুদউল্লাহ, মুশফিক, মোসাদ্দেক সবাই লিগের শুরু থেকে মাঠে নামবেন। তামিম খেলবেন বিভাগীয় দল চট্টগ্রামের হয়ে। মাহমুদউল্লাহ ও মুশফিকের ঠিকানা যথাক্রমে ঢাকা মেট্রো ও রাজশাহী বিভাগ। মোসাদ্দেক খেলবেন বরিশালের হয়ে।

ঘরোয়া টুর্নামেন্টগুলোতে নিয়মিত অংশগ্রহণ করে আসা মুমিনুল হক গতকাল এসেছেন শ্রীলঙ্কা থেকে। টানা খেলার ওপর থাকলেও মুমিনুল মাঠে নামতে মুখিয়ে আছেন। ‘প্রস্তুতি হিসেবে আমি জাতীয় লিগ বা বিসিএল হাতছাড়া করতে চাই না। আমার কাছে মনে হয়, এখানে ভালো খেলতে পারলে টেস্টের ভালো একটা প্রস্তুতি হবে’- বলছিলেন চট্টগ্রামের অধিনায়ক।

জাতীয় দলের খেলোয়াড়দের অংশগ্রহণে লিগ ভিন্ন মাত্রা পাবে বলে বিশ্বাস ঢাকা মেট্রোর অধিনায়ক মার্শাল আইয়ুবের, ‘জাতীয় দলের খেলোয়াড়রা আসছে। ওরা ম্যাচ খেলার সুযোগ পাচ্ছে। এ বছরটা একটু ভিন্ন হতে পারে, অনেক পরীক্ষা-নিরীক্ষা নিয়ে শুরু হচ্ছে এনসিএল। আশা করছি খুব ভালো একটা টুর্নামেন্ট হবে।’

লিগে অংশগ্রহণ করছে আটটি দল। মোট খেলোয়াড় সংখ্যা ১১২। জাতীয় ক্রিকেট লিগে স্পন্সরশিপ বাদেও মাঠের সৌন্দর্য্য বৃদ্ধি করতে প্রতিটি দলের খেলোয়াড়, ম্যাচ অফিসিয়ালদের (আম্পায়ার, রেফারি) জার্সি প্রদান করছে ওয়ালটন।

জমজমাট লিগের প্রত্যাশায় ওয়ালটন গ্রুপের নির্বাহী পরিচালক উদয় হাকিম, ‘আমরা চাই ভবিষ্যতে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল একটি শক্ত অবস্থানে পৌঁছাক এবং ক্রিকেটে যে পাইপলাইন তৈরি হয় সেখানে আমরা অবদান রাখতে চাই। এজন্য বছরের পর বছর আমরা জাতীয় ক্রিকেট লিগে পৃষ্ঠপোষকতা করে আসছি।’

‘অন্যান্য বছরের তুলনায় এই বছর টুর্নামেন্টটিকে আমরা একটু ভিন্ন দৃষ্টিতে দেখছি। ক্রিকেট বোর্ড এবারের এনসিএলকে অনেক বেশি গুরুত্ব দিয়েছে এবং এই বছর জাতীয় দলের খেলোয়াড়দেরও তারা খেলাচ্ছেন। আমার মনে হচ্ছে যে এর আগে যতগুলো আসর হয়েছে সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ এবারের এনসিএল’- যোগ করেন উদয় হাকিম।

মিরপুরসহ দেশের আরো তিনটি মাঠে একযোগে শুরু হবে জাতীয় লিগের খেলা। ফতুল্লায় খেলবে টুর্নামেন্টের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন রাজশাহী বিভাগ ও দ্বিতীয় স্তর থেকে প্রথম স্তরে উঠে আসা ঢাকা বিভাগ। খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হবে স্বাগতিক খুলনা ও রংপুর বিভাগ। রাজশাহীতে খেলবে বরিশাল ও সিলেট বিভাগ।

জাতীয় দলের খেলোয়াড়দের পাশাপাশি জাতীয় দল থেকে ছিটকে পড়া ক্রিকেটারদের দিকে বিশেষ নজর রাখতে চান নির্বাচক হাবিবুল বাশার, ‘আমরা চাই জাতীয় দলের খেলোয়াড় রান করুক, উইকেট নিক। তাদের আন্তর্জাতিক অভিজ্ঞতা যেন ঘরোয়া লিগে কাজে লাগায়। পাশাপাশি যারা বাইরে আছে তারা এমন কিছু করুক যেন আমরা তাদের দিকে নজর দিতে বাধ্য হই। অবশ্যই তরুণ খেলোয়াড়দের দিকে আমাদের বাড়তি নজর থাকবে। আশা করছি মাঠের ক্রিকেটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা দেখতে পারব।’


ঢাকা/ইয়াসিন/পরাগ

রাইজিংবিডি.কম

আরো পড়ুন  

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়