ঢাকা, শুক্রবার, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

জুতা পায়ে বেদিতে উঠা নিষেধ

শাহীন ভূইয়া : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১১-১২ ৮:৩৩:১৩ এএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১১-১২ ১০:৪৭:৫১ এএম

১৯৪৮ থেকে ১৯৫২ সাল। এই চার বছরের ভাষা আন্দোলনে রক্তক্ষয়ী পরিণতির মধ্য দিয়ে পাকিস্তান শাসকগোষ্ঠী পূর্ববাংলার মানুষের ভাষার অধিকার স্বীকার করে নিতে বাধ্য হয়। ভাষা শহীদদের স্মৃতিকে অমর করে রাখার উদ্দেশ্যে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হোস্টেল প্রাঙ্গণে নির্মিত হয় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার।

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ভাষা আন্দোলনের গৌরবময় ইতিহাসের নিদর্শন। শহীদ মিনারের সামনে স্পষ্ট বাংলায় লেখা ‘মূল বেদিতে জুতা পায়ে দিয়ে উঠা ও বসা নিষেধ’। কিন্তু এ নিষেধাজ্ঞা থাকলেও তা কেউ-ই প্রায় মানেন না। সারা বছর অযত্ন-অবহেলায় পড়ে থাকতে দেখা যায় এই স্মৃতির মিনারকে। শুধু ফেব্রুয়ারি মাস এলেই এখানে চলে পরিচ্ছন্নতা অভিযান।

সম্প্রতি শহীদ মিনার প্রাঙ্গন ঘুরে অযত্ন-অবহেলার চিত্র দেখা যায়। এসব দৃশ্য ফ্রেমবন্দি করেছেন চিত্রগ্রাহক শাহীন ভূইয়া। এসব স্থিরচিত্র নিয়ে সাজানো হয়েছে ফটো ফিচার।

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের বেদিতে জুতা পায়ে উঠা ও বসা নিষেধ থাকলেও মানছে না দর্শনার্থীরা

‘মূল বেদিতে জুতা পায়ে দিয়ে উঠা ও বসা নিষেধ’—এসব কথা বোর্ডে লেখা থাকলেও দর্শনার্থীদের নিষেধ করার মতো কেউ যেন নেই

বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা ক্লাস ফাঁকি দিয়ে জুতা পরে আড্ডা জমায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের মূল বেদিতে

সেলফি তোলায় ব্যস্ত দর্শনার্থীরা, তাই ভুলেই গেছেন মূল বেদিতে জুতা পায়ে যেতে নেই

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে হর্কার প্রবেশ নিষেধ থাকলেও নিত্যদিন এমন দৃশ্যই দেখা যায়

ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে কী শিক্ষা দিচ্ছেন অগ্রজরা?

শোক নয় শহীদ মিনার যেন সুখ আর উল্লাস করার স্থান

 

ঢাকা/শান্ত

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন