ঢাকা, রবিবার, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

শাসকরা মওলানা ভাসানীর সংগ্রামের ফল খায়, নাম নেয় না

নিউজ ডেস্ক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১১-১৭ ৯:৫২:৫১ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১১-১৭ ৯:৫২:৫১ পিএম

মজলুম জননেতা মওলানা ভাসানীর স্বাধীনতা ও মুক্তি সংগ্রামের ফল ভোগ করলেও তার জন্ম ও মৃত‌্যুদিনে রাষ্ট্রীয়ভাবে পালনে সরকার হীনমন‌্য বলে মনে করে বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি।

রোববার বিকালে সেগুনবাগিচায় সংহতি মিলনায়তনে মওলানা ভাসানীর ৪৩তম মৃত্যুবার্ষিকীর আলোচনা সভায় দলের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক এ কথা বলেন। 

আলোচনা সভায় সাইফুল হক বলেন, ‘বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও মুক্তিসংগ্রামের অবিসংবাদিত নেতা ছিলেন মজলুম জননেতা মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী।  এদেশের সাম্রাজ‌্যবাদবিরোধী অসাম্প্রদায়িক গণতান্ত্রিক আন্দোলনের পুরোধা ছিলেন মওলানা ভাসানী। তাঁর আপোষহীন নেতৃত্বেই ৬৯’র গণঅভ্যুত্থান সংঘটিত হয় এবং ১৯৭১ এর আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধের জমিন তৈরী হয়। প্রবাসী মুজিবনগর সরকারের উপদেষ্টা হিসেবে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। স্বাধীনতাত্তোর বাংলাদেশে একদিকে সরকারি দুঃশাসনের বিরুদ্ধে আর অন্যদিকে ভারতের কাছ থেকে পানির ন্যায্য হিস্যা আদায়সহ দেশের সার্বভৌমত্ব, জাতীয় স্বার্থ ও জাতীয় নিরাপত্তা নিশ্চিত করতেও তিনি বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করেন। এদেশের শ্রমিক-কৃষকসহ মজলুম নিপীড়িত জনগণের অধিকার ও মুক্তির ব্যাপারেও তিনি ছিলেন আজীবন সোচ্চার। ’

ক্ষোভের সাথে বামজোটের অন‌্যতম নেতা কমরেড সাইফুল উল্লেখ করেন, ‘দেশের স্বাধীনতা ও মুক্তিসংগ্রামের এই অবিসংবাদিত নেতার জন্ম ও মৃত্যুদিন রাষ্ট্রীয়ভাবে পালনে সরকার হীনমন্যতার পরিচয় দিয়েছে। এখনকার সরকার ও শাসকশ্রেণি মওলানার সংগ্রামের সুফল ভোগ করছে। কিন্তু তার প্রাপ্ত মর্যাদা দিতে কুণ্ঠিত, লাল মওলানার লড়াইয়ের ফল খায়, নাম নেয় না। ‘

মজলুম জননেতা ভাসানী ও বাংলাদেশ একসত্ত্বা বলে মন্তব‌্য করে ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব নিশ্চিত করতে মওলানা ভাসানীকে যোগ্য সম্মান ও স্বীকৃতি দিতে হবে। বিদ্যমান সর্বগ্রাসী চরম কর্তৃত্ববাদী দুঃশাসন মোকাবেলায় মওলানার সংগ্রামী ধারার রাজনীতির পুনরুত্থান ঘটাতে হবে এবং জুলুম ও জালেমশাহীর মোকাবেলায় প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক ও দেশপ্রেমিক শক্তিকে ব্যাপক গণঐক্য গড়ে তুলতে হবে।

পার্টির ঢাকা মহানগর কমিটির সভাপতি আকবর খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা বহ্নিশিখা জামালী, মহানগর কমিটির সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন মোশতাক, এ্যাপোলো জামালী, স্নিগ্ধা সুলতানা ইভা, ইমরান হোসেন, হুমায়ুন মুজিব, জোনায়েদ হোসেন, রোকসানা আক্তার প্রমুখ।

আলোচনা সভায় বক্তারা মওলানা ভাসানীর দেশপ্রেম এবং অসাম্প্রদায়িক গণতান্ত্রিক আদর্শের পথ ধরে স্বাধীনতার ঘোষণা, সাম্য, মানবিক মর্যাদা ও সামাজিক ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায় সংগ্রাম বেগবান করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

আলোচনা সভার শুরুতে মওলানা ভাসানীর প্রতিকৃতিতে পার্টির পক্ষ থেকে পুস্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা জানানো হয়।


ঢাকা/সাজেদ

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন