ঢাকা, রবিবার, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

কর্মসূচিতে হামলার নিন্দা বামজোটের: ওসি বলে সভাই হয়নি

সাজেদ রোমেল : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১১-২২ ৯:২১:২৮ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১১-২২ ৯:২১:২৮ পিএম

পেঁয়াজসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে সূত্রাপুরে বাসদের বিক্ষোভ কর্মসূচিতে পুলিশ ও ছাত্রলীগের হামলার অভিযোগ এনে নিন্দা জানিয়েছে বাম গণতান্ত্রিক জোট। কিন্তু ওই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বলেছেন, এ ধরনের কোন কর্মসূচিই হয়নি।

শুক্রবার বাসদের নেতা রাজেকুজ্জামান রতনের পাঠানো প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে পেঁয়াজসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে সূত্রাপুরে বাসদের বিক্ষোভ কর্মসূচিতে পুলিশ ও ছাত্রলীগের হামলার অভিযোগ এনে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানায় বামজোটের শীর্ষনেতারা।

বাম গণতান্ত্রিক জোটের সমন্বয়ক সিপিবির প্রেসিডিয়াম সদস্য আবদুল্লাহ ক্বাফী রতন ও পরিচালনা পরিষদের সদস্য কমরেড মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, কমরেড খালেকুজ্জামান, কমরেড শাহ আলম, কমরেড সাইফুল হক, কমরেড মুবিনুল হায়দার চৌধুরী, জোনায়েদ সাকি, মোশাররফ হোসেন নান্নু, মোশরেফা মিশু, হামিদুল হক, বজলুর রশীদ ফিরোজ, শুভ্রাংশু চক্রবর্ত্তী, অধ্যাপক আব্দুস সাত্তার, আকবর খান, ফিরোজ আহমেদ বিবৃতিতে বলেন, ‘পেঁয়াজ, চালসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য কারসাজির সিন্ডিকেটের হোতাদের গ্রেপ্তার ও বিচারের ধারাবাহিক আন্দোলনের অংশ হিসেবে শুক্রবার বিকেল ৪:৩০টায় বাসদ ঢাকা মহানগর শাখার উদ্যোগে সূত্রাপুরের বাহাদুর শাহ পার্কের সামনে সমাবেশ চলছিল। এ সময় পুলিশ বিনা উস্কানিতে হামলা করে মাইক, ব্যানার ও মোবাইল সেট ছিনিয়ে নেয়। ’

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ গণতান্ত্রিক আন্দোলনে পুলিশী হামলা আইন করে নিষিদ্ধ করার দাবি জানান। একই সাথে সরকারের দুর্নীতি, দুঃশাসন, লুণ্ঠন, মূল্যবৃদ্ধির বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ গণআন্দোলন গড়ে তোলার জন্য সর্বস্তরের জনগণের প্রতি আহ্বান জানান।

এদিকে বাসদের সুত্রাপুর থানা শাখার বিবৃতিতে হামলার পাশাপাশি সমাবেশে নারীদের শ্লীলতাহানীরও অভিযোগ আনা হয়।  

সেই বিবৃতিতে বলা হয়, ‘বাসদ সূত্রাপুর থানা শাখার সদস্যসচিব কমরেড উত্তম দাশের সভাপতিত্বে সমাবেশ শুরু হয়। উপস্থিত ছিলেন বাসদ ঢাকা নগরের সদস্য সচিব জুলফিকার আলী, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় সভাপতি আল কাদেরী জয়, সদস্য সুস্মিতা মরিয়ম, মুজাহিদ অনিক, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক তানজিম সাকিবসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। সমাবেশ শুরুর  কিছুক্ষণের মধ্যেই পুলিশ অতর্কিতভাবে এসে হামলা চালায়। পুলিশের সাথে  উপস্থিত এলাকার মাস্তানরাও এই হামলায়  ভূমিকা নেয়। সেইসাথে সমজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সহ-সভাপতি সুমাইয়া সোমা, সাংগঠনিক সম্পাদক নাজমুন নাহার আাঁখিকে শারীরিকভাবে আঘাত ও শ্লীলতাহানি করে। সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সুস্মিতা মরিয়মের মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয়। এখনো পর্যন্ত ফোন ফিরিয়ে দেয়া হয় নি। ‘

এদিকে সুত্রাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী ওয়াজেদ মিয়া বলেন, এ ধরনের কোন সমাবেশ হয়েছে বলে আমার জানা নেই। যেখানে কোন সভাই হয়নি, সেখানে হামলার প্রসঙ্গ আসে কীভাবে।’


ঢাকা/সাজেদ

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন