ঢাকা, সোমবার, ২৩ চৈত্র ১৪২৬, ০৬ এপ্রিল ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

৭৩ বছরে ৭২ পাউন্ড কেক কাটলেন কাদের

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০২-২৪ ৬:১৮:৫৯ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০২-২৪ ৬:১৮:৫৯ পিএম

৭২ বছর পার করে ৭৩-এ পা দিলেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপি।

১৯৪৮ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি এইদিনে এক মুসলিম সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। জিএম কাদের জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের ছোট ভাই। তার অবর্তমানে পার্টির চেয়ারম্যানের হাল ধরেছেন তিনি। পার্টির চেয়ারম্যানের দায়িত্ব নিয়ে এই প্রথম দলীয়ভাবে জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে নিজের জন্মদিন পালন করেন তিনি। পার করে আসা জীবনের ৭২ বছরকে স্মরণ রাখতে জন্মদিনে নেতা-কর্মীদের নিয়ে আসা ৭২ পাউন্ডের কেক কাটেন জাপা চেয়ারম্যান।

সোমবার দুপুরে বনানী কার্যালয়ে স্ত্রী শেরিফা কাদেরসহ নেতাদের সঙ্গে নিয়ে এই কেক কাটেন কাদের। এ সময় নেতা-কর্মীরা তাকে শুভেচ্ছা জানান। নেতারা ফুল দিয়ে অভিনন্দন জানান। নেতা-কর্মীদেরও শুভেচ্ছা জানান কাদের।

দলের কো-চেয়ারম্যান জিয়া উদ্দিন আহমেদ বাবলু, কো-চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম এমপি, পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা, প্রেসিডিয়াম সদস্য সুনীল শুভ রায়, সোলায়মান আলম শেঠ, রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, আলমগীর সিকদার লোটন, জহিরুল ইসলাম জহিরসহ সিনিয়র নেতারা।

এ সময় নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে জাপা চেয়ারম্যান বলেন, আমি নিজেকে সফল মনে করি। আপনারা যেভাবে নিঃস্বার্থ ভালোবাসা দেখিয়েছেন তাতে আমি মুগ্ধ। জনগণের ভালোবাসাই রাজনীতির প্রাপ্তি হওয়া উচিত।

তিনি বলেন, মানুষের অকৃত্রিম ভালোবাসাই রাজনীতিবিদদের কাম্য হওয়া উচিত। আমি মানুষের ভালোবাসা পেয়েছি, জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত এই ভালোবাসার মূল্য দিতে চাই।

জিএম কাদের বলেন, আমি কৃতজ্ঞতার সঙ্গে প্রয়াত এরশাদের কথা স্মরণ করছি। তিনি দল সৃষ্টি করেছিলেন বলে রাজনীতিতে এসে ভূমিকা রাখার সুযোগ পেয়েছি। মানুষের ভালোবাসা নিয়ে যেন কবরে শায়িত হতে পারি, মানুষের আস্থা আর বিশ্বাসের জায়গা যেন ধরে রাখতে পারি, এটাই আমার শেষ চাওয়া।

এ সময় জাতীয় পার্টির মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা বলেন, এরশাদ ও জিএম কাদের যেন এক গাছে দুটি ফুল। আমরা যেন জিএম কাদেরের নির্দেশ বিনা দ্বিধায় মেনে চলতে পারি। চেয়ারম্যান যেভাবে বলবেন, সেভাবে পার্টি চলবে। তিনি যে মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে ছিলেন, কোনো অভিযোগ ওঠেনি। জিএম কাদের ছিলেন সফল মন্ত্রী।

জাপা মহাসচিব বলেন, তার নেতৃত্বে দলে গতি এসেছে। জাপায় কোনো বিভেদ নেই, সর্বশেষ রওশন এরশাদকে দিয়ে বিভেদ সৃষ্টির চেষ্টা হয়েছিল, আমরা সবাই মিলে বিভেদ রোধ করতে সক্ষম হয়েছি। আমরা ভালো মানুষের নেতৃত্বে দল করছি, এভাবে দল চালাতে পারলে ক্ষমতায় যাওয়ার পথ সুগম হবে।

জিএম কাদেরের জন্মদিন উপলক্ষে সকালেই জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যানের বনানী অফিসে নেতা-কর্মীরা ফুল নিয়ে এসে হাজির বেলা ১১টার দিকে চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের সঙ্গে স্ত্রী শেরিফা কাদের-কে নিয়ে বনানী অফিসে পৌঁছালে নেতা-কর্মীরা শ্লোগানে নেতাকে বরণ করে নেন। এরপরে নেতা-কর্মীরা ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা হাসিবুল ইসলাম জয়, ভাইস চেয়ারম্যান মোস্তাকুর রহমান মোস্তাক, আদেলুর রহমান আদেল এমপি, ইসহাক ভূঁইয়া, রাজ্জাক খান, আশরাফুজ্জামান খান, মাসুদুর রহমান চৌধুরী, আবুল খায়ের, মাহমুদ আলম, সমরেশ মণ্ডল মানিক, জাকির হোসেন মৃধা, মীর নাজিম উদ্দিন, মাওলানা খলিলুর রহমান প্রমুখ।


ঢাকা/নঈমুদ্দীন/সাইফ