ঢাকা     রোববার   ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||  আশ্বিন ১২ ১৪২৭ ||  ০৯ সফর ১৪৪২

ব‌্যবসায়ীদের পেঁয়াজ আমদানির সুযোগ চান জিএম কাদের

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:৩১, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০  
ব‌্যবসায়ীদের পেঁয়াজ আমদানির সুযোগ চান জিএম কাদের

মত বিনিময় সভা

বাজার স্বাভাবিক রাখতে ব্যবসায়ীদের পেঁয়াজ আমদানির সুযোগ দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের। 

বুধবার (১৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের বনানী কার্যালয়ে জাতীয় সড়ক পরিবহন মোটর শ্রমিক ফেডারেশন নেতাদের সঙ্গে মত বিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ দাবি জানান। 

জাপা চেয়ারম্যান বলেন, টিসিবি’র মাধ্যমে পেঁয়াজ সরবরাহ করে বাজার স্বাভাবিক করা সম্ভব নয়। একটি অংশকে রিলিফ দেওয়া সম্ভব। আবার বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে পেঁয়াজ আমদানি করে বাজার স্বাভাবিক রাখাও সম্ভব নয়। তাই বাজার স্বাভাবিক রাখতে ব্যবসায়ীদের পেঁয়াজ আমদানি করার সুযোগ দিতে হবে। 

ব্যবসায়ীদের আমদানি খরচসহ বিক্রি প্রক্রিয়ায় প্রয়োজনে সরকার তদারকি করতে পারে। এতে আমদানি বাড়বে এবং বাজারও স্বাভাবিক থাকবে, বলেন জিএম কাদের। 

শ্রমিকদের কল্যাণ তহবিলের নামে হাজার কোটি টাকা লুটপাট চলছে, ক্ষোভ প্রকাশ করে জাপা চেয়ারম‌্যান বলেন, সাধারণ শ্রমিকদের ভাগ্য উন্নয়নে শ্রমিক কল্যাণ তহবিলের টাকা কখনোই ব্যয় হয়নি। তাই শ্রমিক কল্যাণ তহবিলের অডিট হওয়া জরুরি। 

জাতীয় সড়ক পরিবহন মোটর শ্রমিক ফেডারেশন এর সভাপতি ও জাতীয় পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান মোস্তাকুর রহমান মোস্তাকের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য আজম খান, শামীম হায়দার পাটোয়ারী, ভাইস চেয়ারম্যান মেজর আব্দুস সালাম (অব.), আহসান আদেলুর রহমান এমপি, মো. মঞ্জুর হোসেন মঞ্জু, এম. এ. রাজ্জাক খান, দেলোয়ার হোসেন মিলন, আবুল কাশেম, শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান শিপন, আব্দুল লতিফ সরকার, জমিরুল হক লিটন, মো. আরিফুর রহমান, মো. খলিলুর রহমান খলিল, আশরাফুল সিকদার সবুজ, লাল মিয়া সরকার, বিএম এরশাদ, আব্দুল খালেক, কাজী রুবেল, আফজাল হোসেন বাবু, সোলাইমান মিয়া, আলতাফ হোসেন, পারভেজ, গোলাম রসুল, সোহাগ আহমেদ টিপু, ইউনুস আলী। 

সভাপতির বক্তৃতায় জাতীয় সড়ক পরিবহন মোটর শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি ও পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান মোস্তাকুর রহমান মোস্তাক বলেন, যারা শ্রমিকদের কল্যাণ তহবিলের টাকা লুটপাট করেছে তাদের দুর্নীতি দমন কমিশনের মাধ্যমে আইনের মুখোমুখি করতে হবে।

রাইজিংবিডি/নঈমুদ্দীন/জেডআর

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়