RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     বুধবার   ২৫ নভেম্বর ২০২০ ||  অগ্রাহায়ণ ১১ ১৪২৭ ||  ০৮ রবিউস সানি ১৪৪২

ফল প্রত্যাখ্যান, পুনর্নির্বাচন দাবি জাপা প্রার্থী আসুদের

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:৪২, ১৯ অক্টোবর ২০২০   আপডেট: ১৭:৪৫, ১৯ অক্টোবর ২০২০
ফল প্রত্যাখ্যান, পুনর্নির্বাচন দাবি জাপা প্রার্থী আসুদের

অনিয়ম ও কারচুপির অভিযোগ এনে ঢাকা-৫ উপ-নির্বাচনের ফল প্রত্যাখ্যান করে পুনর্নির্বাচন দাবি করেছেন জাতীয় পার্টির প্রার্থী মীর আব্দুস সবুর আসুদ।

সোমবার (১৯ অক্টোবর) দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর রুনি মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি করেন।

এ সময় দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও নির্বাচনী সেলের সদস্য সচিব সাইফুদ্দিন আহমেদ মিলন, আলমগীর সিকদার লোটন, ভাইস চেয়ারম্যান আরিফুর রহমান খান, যুগ্ম মহাসচিব ফখরুল আহসান শাহজাদা, আমির উদ্দিন আহমেদ ঢালু, শ্রমিক পার্টির সাবেক সভাপতি শাহ আলম খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

অনিয়মের অভিযোগ এনে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য মীর আব্দুস সবুর আসুদ বলেন, কেন্দ্র থেকে আমার এজেন্টদের বের করে দেওয়া হয়েছে। ১২০০ পোলিং এজেন্ট ছিল। তাদের কাউকেই ভোট দিতে দেওয়া হয়নি। অধিকাংশ কেন্দ্র ঘুরে দেখা গেছে, সুষ্ঠু নির্বাচন করতে নির্বাচন কমিশনের কোনো চেষ্টাই ছিল না। অনিয়ম-অপমানের পর কোনো ভদ্র লোকের পক্ষে ভোট দিতে যাওয়া সম্ভব নয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বিচক্ষণ নেত্রী উল্লেখ করে আসুদ বলেন, আমরা মনে করেছিলাম এই উপ-নির্বাচন সুষ্ঠু হবে। এরশাদের উন্নয়ন-সমৃদ্ধির জন্য এ আসনে লাঙলের বিজয় সময়মাত্র ছিল। এজন্য শেষ পর্যন্ত নির্বাচনী মাঠে ছিলাম। কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর চোখের সামনে ঢাকা শহরের মতো এই উপ-নির্বাচনে যে অনিয়ম, কারচুপির মাধ্যমে লাঙলের জয় ছিনিয়ে নেওয়া হয়েছে তা নজিরবিহীন। এই অবস্থা অব্যাহত থাকলে ভবিষ্যতে কারও সম্মানের সঙ্গে নির্বাচন করা কঠিন হবে।

‘অনিয়ম ও কারচুপির এই নির্বাচনের ফল প্রত্যাখ্যান করে আবারও সুষ্ঠু নির্বাচন দাবি করছি।  সুষ্ঠু নির্বাচন হলে এখানে লাঙল বিজয়ী হবে’, বলেন জাপার এই প্রার্থী।

নির্বাচন কমিশনের পদত্যাগ চান কিনা জানতে চাইলে আসুদ বলেন, সরকারের সহযোগিতা ছাড়া নির্বাচন কমিশনের একার পক্ষে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়।  সরকার ও নির্বাচন কমিশনকে শতভাগ নিরপেক্ষ হতে হবে। 

জাপা মহাজোট ছাড়ছে কিনা এক প্রশ্নের জবাবে আসুদ বলেন, মহাজোটে নেই, আমরা বিরোধীদল। তবে এ ধরনের নির্বাচন হতে থাকলে ভবিষ্যতে প্রার্থী পাওয়া মুশকিল হবে। এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য পার্টির চেয়ারম্যানের হস্তক্ষেপ করার কথাও বলেন তিনি।

এর আগে ১৮ অক্টোবর জাপা প্রার্থী আসুদ নির্বাচনী অনিয়ম ও কারচুপির অভিযোগ এনে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নির্বাচন কমিশনে চিঠি দিয়েছিলেন।

নঈমুদ্দীন/সাইফ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়