RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     সোমবার   ৩০ নভেম্বর ২০২০ ||  অগ্রাহায়ণ ১৬ ১৪২৭ ||  ১৩ রবিউস সানি ১৪৪২

মুক্তিযোদ্ধাদের বাড়িতে মাশরাফির পূজার উপহার

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:১১, ২৭ অক্টোবর ২০২০   আপডেট: ১৮:১৩, ২৭ অক্টোবর ২০২০
মুক্তিযোদ্ধাদের বাড়িতে মাশরাফির পূজার উপহার

শারদীয় দুর্গাপূজার বিজয়া দশমীতে নির্বাচনী এলাকার সনাতন ধর্মাবলম্বী বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বাড়িতে শুভেচ্ছা উপহার হিসেবে মিষ্টি আর ফুল পাঠিয়েছেন নড়াইল-২ আসনের সাংসদ মাশরাফি বিন মুর্তজা।

শুভেচ্ছা উপহারের সঙ্গে পাঠানো এক শুভেচ্ছা বার্তায় মাশরাফি বলেন, ‘আমাদের প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে আপনার অসামান্য অবদান আজীবন আমরা শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করি। আপনারা বীর মুক্তিযোদ্ধারা, বাংলা মায়ের সূর্য সন্তান, নড়াইল জেলার অহংকার, আমাদের পথচলার অনুপ্রেরণা।’

তিনি আরও বলেছেন, ‘আজ শুভ বিজয়া’র এই মাহেন্দ্রক্ষণে আপনার প্রতি আমার শ্রদ্ধাপূর্ণ শুভেচ্ছা। আপনার ও আপনার পরিবারের সুস্থতা ও কল্যাণ কামনা করছি।’

মাশরাফির শুভেচ্ছা উপহার নিয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধা শিক্ষক রবীন্দ্রনাথ সরকারের নড়াইল পৌরসভার মহিষখোলার বাসভবনে যান সংসদ সদস্যের একান্ত সহকারী জামিল আহমেদ সানী ও শাকিল আহম্মেদ।

মাশরাফির শুভেচ্ছা পেয়ে আবেগাপ্লুত কণ্ঠে রবীন্দ্রনাথ বলেন, ‘আমাদের হীরার টুকরার এই শুভেচ্ছা উপহার পেয়ে আমরা অনেক খুশি হয়েছি। আর আজ এই ভেবে ভালো লাগছে যে, এমন একজন ভালো মানুষের নেতৃত্বে আজ নড়াইল এগিয়ে চলছে। শেষ জীবনে হলেও এমনটি দেখে যেতে পেরেছি, তাই ভালো লাগছে।’

লোহাগড়ার বীর মুক্তিযোদ্ধা অজয় কান্তি মজুমদার বলেন, ‘মাশরাফি আমাদের এলাকার গর্ব। সে যে সবার খবর রাখছে, সবাইকে যার যার প্রাপ্য সম্মান দিচ্ছে, এমনটাই একজন জনপ্রতিনিধির কাছে এলাকার জনগণের প্রত্যাশা থাকে। আমরা তার জন্য সবসময় আশীর্বাদ করি।’

পূজার ছুটিতে নিজ জেলা নেত্রকোনা থেকে শ্বশুরবাড়ি নড়াইলে এসে বীর মুক্তিযোদ্ধা শ্বশুরের প্রতি স্থানীয় সাংসদ মাশরাফির এমন সৌজন্যতায় অভিভূত অবসরপ্রাপ্ত অতিরিক্ত সচিব বিজন বৈশ্য। তিনি বলেন, ‘মাশরাফি যেমন করে ক্রিকেটের সোনালি যুগ এনেছিল, তেমনি নড়াইলে তার নেতৃত্বে সোনালি দিনের সূচনা হচ্ছে। পারষ্পরিক শ্রদ্ধাবোধ, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি, ভ্রাতৃত্ব ছাড়া মানবসমাজ এগোতে পারে না। মাশরাফি যেটা করছেন, তার সুদূরপ্রসারী ফল এই অঞ্চলের মানুষ অবিলম্বে ভোগ করবেন।’

জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি তরিকুল ইসলাম উজ্জ্বল ও সাধারণ সম্পাদক এস এম পলাশের নেতৃত্বে স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতারা এসব শুভেচ্ছা উপহার বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বাড়িতে বাড়িতে পৌঁছে দেন।

উল্লেখ্য, সনাতন ধর্মে বিজয়া দশমীতে মিষ্টি বিতরণ, গুরুজনের আশীর্বাদ নেওয়ার রীতি প্রচলিত রয়েছে। সংসদ সদস্য মাশরাফি নির্বাচনী এলাকার বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বাড়িতে শুভেচ্ছা উপহার পাঠিয়ে অসাম্প্রদায়িকতার এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন বলে জানান শুভেচ্ছা উপহার পাওয়া মুক্তিযোদ্ধাদের পরিবার।
ক্রিকেটার মাশরাফি বাংলাদেশের ‘রিয়েল হিরো’ হিসেবে সবসময় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের আখ্যায়িত করেন। তাদের প্রতি তার শ্রদ্ধা ও আবেগের কথা সবার জানা। এবারের শুভেচ্ছা উপহার তারই এক অনন্য নিদর্শন। 

জানা গেছে, মাশরাফির দুই সন্তান হুমায়রা ও সাহেল করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ঢাকার বাসায় চিকিৎসাধীন আছে। এজন্য তিনি ঢাকায় অবস্থান করছেন। উপহার সামগ্রী বিতরণকালে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতারা জানান, মাশরাফি তার সন্তানদের সুস্থতার জন্য সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন।

ঢাকা/পারভেজ/ফাহিম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়